ফিল্মি কায়দায় নেপালে খুন ভারতের রাডারে থাকা ISI চর

10:45 AM Sep 22, 2022 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: জহুর মিস্ত্রি, রিপুদমন সিংহ মালিকের পর লাল মহম্মদ। প্রথম দুজনের মতো একই কায়দায় বিদেশের মাটিতে খতম ভারতের আরেক শত্রু লাল মহম্মদ ওরফে লাল দরজি। গোয়েন্দা সংস্থার দাবি, নিহত লাল মহম্মদ পাকিস্তানি গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই ঘনিষ্ঠ ছিল। এদেশে জাল নোট চক্রের চাঁইও ছিল সে। ১৯ সেপ্টেম্বর নেপালে নিজের বাড়ির সামনেই খুন হয় এই জাল নোট কারবারি।

Advertisement

এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত সিসিটিভি ফুটেজে দেখা গিয়েছে, সোমবার নেপালে নিজের বাড়ির সামনে এক বিলাসবহুল গাড়ি থেকে নামে লাল মহম্মদ (৫৫)। সঙ্গে সঙ্গে তাকে লক্ষ্য করে এলোপাথাড়ি গুলি ছুঁড়তে শুরু করে দুই আততায়ী। বাইকে চেপে এসেছিল তারা। গাড়ির আড়ালে লুকিয়ে প্রাণ বাঁচানোর শেষ চেষ্টা করেছিল ওই ISI এজেন্ট। গুলির শব্দে শুনে বাড়ির একতলার বারান্দায় বেরিয়ে এসেছিলেন লাল মহম্মদের মেয়ে। বাবাকে বাঁচাতে একতলার বারান্দা থেকে ঝাঁপ দেন তিনি। কিন্তু ততক্ষণে গুলিবিদ্ধ হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে লাল মহম্মদ। বাইকে চেপে চম্পট দেয় দুই অভিযুক্ত। এখনও তাদের হজিশ মেলেনি।

[আরও পড়ুন: বিয়েতে রাজি ছিল না পরিবার, একই গাছে ফাঁস দিয়ে আত্মঘাতী নদিয়ার দুই স্কুল পড়ুয়া]

গোয়েন্দা সূত্রে খবর, ভারতবিরোধী বিভিন্ন কার্যকলাপের সঙ্গে যুক্ত ছিল মৃত লাল মহম্মদ। সবচেয়ে বড় জাল নোট সরবরাহকারী ছিল সে। শুধু তাই নয়, এদেশে আইএসআইয়ের স্লিপার সেল তৈরি, অস্ত্র-অবৈধ সামগ্রী পাচারে সাহায্য করত ৫৫ বছরের এই ব্যবসায়ী। ভারতে পাকিস্তানি জেহাদি, ISI এজেন্টদের আশ্রয় দিত সে। এমনকী, দাউদ ইব্রাহিমের ডি গ্যায়ের সঙ্গেও যোগাযোগ ছিল তার। সেখান থেকেই জাল নোটের কারবার ফেঁদেছিল লাল মহম্মদ। আচমকাই নেপালে দুই অজ্ঞাত পরিচয় আততায়ীর হাতে খুন হল বহু অপকীর্তির চক্রী লাল মহম্মদ ওরফে লাল দরজি।

Advertising
Advertising

উল্লেখ্য়, চলতি বছরে বিদেশের মাটিতে খুন হয়েছে এরকমই কুখ্যাত দুই চক্রী। এক, জহুর মিস্ত্রি, দুই, রিপুদমন সিংহ মালিক। ১৯৯৯-এর কান্দাহার বিমান হাইজ্যাক কাণ্ডের অন্যতম খলনায়ক ছিল জহুর মিস্ত্রি। কুখ্যাত সন্ত্রাসবাদী হাফিজ সৈয়দকে জেল থেকে ছাড়াবার জন্য বিমান হাইজ্যাক করেছিল জঙ্গিরা। সেই হাইজ্যাকারদের অন্যতম মাথা পাকিস্তানি জহুর মিস্ত্রিকে গত মার্চে পাকিস্তানের বুকে দাঁড়িয়ে, গুলি করে মারে দুই বাইক আরোহী দুষ্কৃতী।

আবার ১৯৮৫ সালের ২৩ জুন দিল্লি থেকে কানাডার মন্ট্রিয়লগামী এয়ার ইন্ডিয়ার ফ্লাইট ১৮২ কণিষ্ক বিমানে মাঝ আকাশে বোমা বিস্ফো’রণ ঘটেছিল। প্রাণ গিয়েছিল ৩৩১ জনের। অভিযুক্ত হিসেবে খালিস্তনি সমর্থক রিপুদমন সিংহ মালিক, ইন্দ্রজিৎ সিংহ রেয়াত এবং আজেইব সিংহ বাগরির নাম প্রকাশ্যে এসেছিল। কিছুদিন আগে কানাডায় রিপুদমন সিংহ মালিককে লক্ষ্য করে পরপর গুলি চালায় তিন দুষ্কৃতী। একই কায়দায় নেপালে খুন হল লাল মহম্মদ।

[আরও পড়ুন: কলকাতায় NIA অভিযান, জঙ্গিযোগে পিএফআই নেতার অফিসে তল্লাশি কেন্দ্রীয় গোয়েন্দাদের]

Advertisement
Next