Advertisement

অবরুদ্ধ গাজায় ‘মুক্তির স্বাদ’, সংঘাতের আবহে বড় পদক্ষেপ ইজরায়েলের

02:40 PM Jun 21, 2021 |
Advertisement
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ইহুদি-আরব দ্বন্দ্বে উত্তপ্ত মধ্যপ্রাচ্য। মিশরের পৌরহিত্যে সাময়িক শান্তি ফিরলে এখনও যুদ্ধের মেঘ রয়েছে ‘অবরুদ্ধ’ গাজার (Gaza) আকাশে। তবে এহেন পরিস্থিতিতে মানবিকতার খাতিরে গাজা থেকে সাময়িকভাবে পণ্য রপ্তানিতে সবুজ সংকেত দিয়েছে ইজরায়েল (Israel)। ফলে কিছুটা মুক্তির স্বাদ পেয়েছে অঞ্চলটির মানুষ। 

Advertisement

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

[আরও পড়ুন: মেক্সিকো সীমান্তে মাফিয়াদের গুলির লড়াই, প্রাণ গেল ১৮ নাগরিকের]

সংবাদ সংস্থা রয়টার্স সূত্রে খবর, সোমবার গাজা স্ট্রিপ থেকে দিন তিনেকের জন্য কৃষিপণ্য ও বস্ত্রের রপ্তানি শুরু করার অনুমতি দিয়েছে ইজরায়েলের নতুন প্রধানমন্ত্রী নফতালি বেনেটের প্রশাসন। ইজরায়েলের প্রতিরক্ষামন্ত্রক এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, “সম্প্রতি ওই অঞ্চলের নিরাপত্তা খতিয়ে দেখে আমরা সাময়িকভাবে পণ্য রপ্তানির ক্ষেত্রে ছাড় দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। গাজা স্ট্রিপ থেকে কৃষিপণ্য ও বস্ত্র রপ্তানি কড়া যাবে। তবে গোটা প্রক্রিয়াই নির্ভর করছে অঞ্চলটির নিরাপত্তার উপর। পরিস্থিতি উদ্বেগজনক মনে হলে এই অনুমতি প্রত্যাহার করা হবে।” বলে রাখা ভাল, গাজায় প্রায় ২০ লক্ষ মানুষের বাস। তার মধ্যে ১০ হাজার মানুষ বস্ত্রশিল্পে কাজ করে। কয়েক হাজার মানুষ চাষের সঙ্গে যুক্ত। ফলে পণ্য রপ্তানি ওই অঞ্চলটির আয়ের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তাই ইজারায়েলের এই সিদ্ধান্তে অনেকেই খুশি।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

উল্লেখ্য, গত মে মাসে প্যালেস্তানের জঙ্গি গোষ্ঠী হামাসের সঙ্গে যুদ্ধে জড়িয়ে পড়ে ইজরায়েল। জেরুজালেমের আল আকসা মসজিদে ইহুদি ও মুসলিম সম্প্রদায়ের অনুগামীদের মধ্যে সংঘাত শুরু হয়। তারপর তা ক্রমে ভয়াবহ আকার নেয়। গাজা থেকে হামাসের রকেট হামলার পালটা বিমান হানা চালায় ইজরায়েল। গোটা অঞ্চলটিকে ঘিরে ফেলে ইজরায়েলী ফৌজ। অবরুদ্ধ হয়ে লক্ষ লক্ষ মানুষ। রমজানের নমাজ পড়তে জেরুজালেমের আল আকসা মসজিদে জড়ো হয়েছিলেন হাজার হাজার মুসলমান। সেখান থেকেই সংঘাতের সূত্রপাত। তারপর প্রায় ১১ দিন ধরে হামাস ও ইজরায়েলী সেনাবাহিনীর মধ্যে যুদ্ধ হয়। অবশেষে মিশরের হস্তক্ষেপে যুদ্ধবিরতি ঘোষণা করেছিল যুযুধান দুই পক্ষ। কিন্তু সেটা আর টিকবে কিনা সেই নিয়েই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। ইতিমধ্যে বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু সরকারের পতন ঘটিয়ে মসনদে বসেছেন নাফতালি বেনেট। কিন্তু গাজায় সেই অর্থে পরিস্থিতির উন্নতি হয়নি।

[আরও পড়ুন: এ কোন বিপদের হাতছানি! বন্যার পর মাকড়সার জালে ঢাকল অস্ট্রেলিয়ার বিস্তীর্ণ এলাকা]

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
Advertisement
Next