উলটপুরাণ! ভারতের শত্রু মাসুদ আজহারের গ্রেপ্তারি চাইছে পাকিস্তান

09:43 AM Sep 14, 2022 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সন্ত্রাসবাদী মাসুদ আজহারের গ্রেপ্তারি চাইছে পাকিস্তান! ইসলামাবাদের বিশ্বাস আফগানিস্তানে লুকিয়ে আছে জেহাদি সংগঠন জইশ-ই-মহম্মদের প্রতিষ্ঠাতা। এই মর্মে কাবুলের তালিবান সরকারকে চিঠিও দিয়েছে শাহবাজ শরিফের প্রশাসন বলে খবর।

Advertisement

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782001027-0'); });

পাক সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর, আফগানিস্তানের (Afghanistan) নানগরহার প্রদেশে লুকিয়ে রয়েছে রাষ্ট্রসংঘের (United Nation) ‘আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদী’ তকমা পাওয়া মাসুদ আজহার। সেখান থেকেই সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপ চালাচ্ছে ওই জঙ্গি। আশ্চর্যের বিষয় হচ্ছে, জম্মু ও কাশ্মীর সন্ত্রাস ছড়াতে মাসুদকে মদত দিয়ে জইশ তৈরি করেছে পাকিস্তান। আর আজ তাকেই গ্রেপ্তার করতে চাইছে তারা। ইতিমধ্যেই নাকি আজহারের গ্রেপ্তারির দাবিতে তালিবানকে চিঠি দিয়েছে পাক প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফের সরকার। তবে অনেকেই মনে কছেন এই পদক্ষেপ আসলে বড়সড় ধাপ্পাবাজি মাত্র। আন্তর্জাতিক মঞ্চের নজর ঘোরাতেই এই চাল পাক সেনার।

window.unibots = window.unibots || { cmd: [] }; unibots.cmd.push(()=>{ unibotsPlayer('sangbadpratidin'); });

[আরও পড়ুন: এডিনবরায় চোখের জলে চিরবিদায়, শেষযাত্রায় লন্ডন পৌঁছল রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের মরদেহ]

এবার প্রশ্ন উঠছে, ভারতের শত্রু মাসুদকে কেন গ্রেপ্তার করতে চাইছে পাকিস্তান? উত্তর হচ্ছে, ‘FATF’-এর সুনজরে থাকতে চাইছে পাকিস্তান। আন্তর্জাতিক সংস্থা ফিনান্সিয়াল অ্যাকশন টাস্ক ফোর্স (Financial Action Task Force) বা এফএটিএফ গোটা বিশ্বে অর্থপাচার তথা সন্ত্রাসবাদে আর্থিক মদত সংক্রান্ত বিষয়টি নজর রাখে। লস্কর ও জইশের মতো জঙ্গিগোষ্ঠীগুলিকে আর্থিক মদত দেওয়া জন্য ২০১৮ সালেই পাকিস্তানকে ‘ধূসর তালিকা’ভুক্ত করে তারা। এই বিষয়ে সংস্থার তরফে পাক সরকারকে একাধিকবার হুঁশিয়ারিও দেওয়া হয়। সেই সময় বলা হয়েছিল, আগামী দিনে তাদের (পাকিস্তান) বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ করা হবে। তারপর থেকেই ধূসর তালিকা থেকে বেরতে মরিয়া ঋণের দায়ে জর্জটিত ইসলামাবাদ।

Advertising
Advertising

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782050143-0'); });

এদিকে, মাসুদ আজহার গ্রেপ্তার হলেও ভারতের বিশেষ লাভ হবে না বলে মনে করছেন বিশ্লেষকদের একাংশ। কারণ, প্রথমত, আন্তর্জাতিক মঞ্চের মনরক্ষায় গোটা প্রক্রিয়াই আসলে লোক দেখানো। দ্বিতীয়ত, আইএসআইয়ের হাত রয়েছে মাসুদের মাথায়। ফলে জেলে থেকে ক্ষমীরে সন্তরস চালিয়ে যেতে সক্ষম হবে ওই জঙ্গিনেতা।

[আরও পড়ুন: চিনে পাসের হার মাত্র ১৬ শতাংশ! MBBS পড়ুয়াদের সতর্ক করে বিবৃতি বেজিংয়ের ভারতীয় দূতাবাসের]

Advertisement
Next