পাকিস্তানে সেনা পাঠাচ্ছে চিন! ভারতকে ঘিরে ফেলার ছক?

12:34 PM Aug 17, 2022 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: শ্রীলঙ্কায় (Sri Lanka) পৌঁছে গিয়েছে চিনের ‘নজরদারি’ জাহাজ। এবার নাকি পাকিস্তানে সেনা পাঠাচ্ছে বেজিং (Beijing)। কূটনৈতিক মহলে কান পাতলে শোনা যাচ্ছে এমনই খবর। স্বাভাবিকভাবেই সীমান্তের এত কাছে দুই প্রতিবেশী দেশে লালফৌজের এহেন বজ্রআঁটুনি চাপ বাড়াচ্ছে নয়াদিল্লির উপর।

Advertisement

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782001027-0'); });

আর্থিক সাহায্যের নামে পাকিস্তানে একের পর এক প্রকল্প গড়ছে চিন (China)। ইতিমধ্যে সে দেশে চিনের বিনিয়োগের পরিমাণ ছাড়িয়েছে ৬০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। বেল্ট অ্যান্ড রোড ইনিসিয়েটিভ (BRI) প্রকল্পে আফগানিস্তান-পাকিস্তান সীমান্তে রাস্তা বানাচ্ছে চিন। এদিকে শুধুমাত্র অর্থনৈতিকভাবেই নয়, ক্রমাগত বেজিংয়ের উপর সামরিক এবং কূটনৈতিকভাবে নির্ভরশীল হয়ে পড়ছে ইসলামাবাদ। মধ্য এশিয়ায় প্রভাব বাড়াতে আফগানিস্তানের দিকেও হাত বাড়িয়েছে বেজিং। এমন পরিস্থিতিতে নয়াদিল্লির উপর চাপ বাড়াতে নয়া কৌশল নিয়েছে তারা।

window.unibots = window.unibots || { cmd: [] }; unibots.cmd.push(()=>{ unibotsPlayer('sangbadpratidin'); });

[আরও পড়ুন: মাদক ঘিরে গোলমাল, ‘বন্ধু’র ছুরির আঘাতে খুন যুবক, গ্রেপ্তার অভিযুক্ত]

সূত্রের খবর, আফগানিস্তান-পাকিস্তান সীমান্তের প্রকল্পের নিরাপত্তার স্বার্থে ইসলামাবাদের জমিতে আউটপোস্ট বানাতে চাইছে বেজিং। সেখানে সশস্ত্র লালফৌজ মোতায়েন করতে তৎপর জিনপিং সরকার। ইতিমধ্যে এ নিয়ে পাক সরকারের উপর চাপ তৈরি করতে ইসলামাবাদের মোতায়েন চিনা রাষ্ট্রদূত নং রং দফায় দফায় বৈঠক সেরেছেন। আলোচনা করেছেন পাক প্রধানমন্ত্রী শেহবাজ শরিফ, বিদেশমন্ত্রী বিলাওয়াল ভুট্টো এবং পাক সেনা প্রধান জেনারেল বাজওয়ার সঙ্গে। সূত্রের খবর, পাকিস্তানের মাটিতে আউটপোস্ট তৈরি করে সেখানে সশস্ত্র বাহিনী তৈরি করার বিষয় চাপ দিতে শুরু করেছে চিন।

Advertising
Advertising

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782050143-0'); });

প্রসঙ্গত, ভারতের আপত্তি উড়িয়ে মঙ্গলবার সকালে শ্রীলঙ্কার (Sri Lanka) হামবানটোটা বন্দরে নোঙর ফেলেছে চিনা (China) জাহাজ ‘ইউয়ান ওয়াং ৫’। চিনা ‘নজরদারি’ জাহাজ শ্রীলঙ্কার সমুদ্র উপকূলে নোঙর ফেলায় অসন্তুষ্ট দিল্লি (Delhi)। এর মধ্যেই চিনের তরফে এক বিবৃতিতে জানিয়ে দেওয়া হল, তাদের ‘উচ্চ প্রযুক্তির গবেষণা জাহাজ’ কোনও দেশের নিরাপত্তায় বিঘ্ন ঘটাবে না। ফলে এই বিষয়ে তৃতীয়পক্ষের হস্তক্ষেপও উচিত নয়। তৃতীয়পক্ষ বলতে যে মূলত ভারতকেই বুঝিয়েছে চিন, তা স্পষ্ট।

[আরও পড়ুন: পুরীর হোটেলে কাকিমার সঙ্গে ঘনিষ্ঠ অবস্থায় যুবক! কাকার নজরে পড়তেই ভয়ংকর পরিণতি]

Advertisement
Next