Advertisement

আমেরিকার বিরুদ্ধে জলসীমা অতিক্রমের গুরুতর অভিযোগ রাশিয়ার, পালটা দিল ওয়াশিংটন

03:57 PM Oct 16, 2021 |

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আমেরিকার (US) বিরুদ্ধে চাঞ্চল্যকর অভিযোগ আনল রাশিয়া (Russia)। মস্কোর অভিযোগ, জাপান সাগরে তাদের জলসীমা অতিক্রম করে অনুপ্রবেশের চেষ্টা করছিল মার্কিন যুদ্ধজাহাজ। চিন ও রাশিয়ার যৌথ সেনা মহড়ার সময়ই ওই অনুপ্রবেশের ঘটনা ঘটে। কিন্তু তাদের বিরুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছে ওয়াশিংটন। আমেরিকার স্পষ্ট দাবি, এই অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যে।

Advertisement

ঠিক কী অভিযোগ রাশিয়ার? শুক্রবার রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের তরফে এই অভিযোগ আনা হয়। দাবি করা হয়, জলসীমা অতিক্রম করে মার্কিন যুদ্ধজাহাজ ভিতরে ঢুকে পড়ার সঙ্গে সঙ্গেই তাদের বারবার হুঁশিয়ারি দেওয়া হয় ফিরে যেতে। কিন্তু মার্কিন যুদ্ধজাহাজটি এরপরও এলাকা ছাড়েনি। তখন রাশিয়ার যুদ্ধজাহাজ সেটির পিছু নেয়। অবশেষে মার্কিন যুদ্ধজাহাজটি নিজের অভিমুখ বদলে ফের রুশদের এলাকা ত্যাগ করে অন্যদিকে চলে যায়।

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1630720090-3');});

[আরও পড়ুন: নরওয়েতে তীর-ধনুক নিয়ে হামলা, ‘সন্ত্রাসবাদী হানায়’ মৃত অন্তত ৫]

এদিকে মার্কিন নৌসেনার তরফে রাশিয়ার এই অভিযোগকে ‘ভিত্তিহীন’ বলে উড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। এক বিবৃতিতে আমেরিকার তরফে জানানো হয়েছে, তারা জাপান সাগরে রুটিন টহল দিচ্ছিল। সেই সময় চাফি নামের ওই যুদ্ধজাহাজটিকে দেখেই রাশিয়ার যুদ্ধজাহাজটি সেদিকে এগিয়ে আসে। এমনকী, সেটি মার্কিন জাহাজটির ৬৫ গজের মধ্যে চলে এসেছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত কোনও সমস্যা হয়নি। একথা জানিয়ে আমেরিকার তরফে পরিষ্কার জানিয়ে দেওয়া হয়, ”রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের তরফে জারি করা বিবৃতি ভিত্তি। দুই যুদ্ধজাহাজের মধ্যে কোনও টক্কর হয়নি। আমেরিকা আন্তর্জাতিক আইন মেনেই সর্বদা আকাশপথে, জলপথে সর্বত্র বিচরণ করে।”

মার্কিন মসনদে পালাবদলের পর আরও তিক্ত হয়েছে আমেরিকা ও রাশিয়ার সম্পর্ক। ফের তুঙ্গে পৌঁছেছে দুই মহাশক্তির ঠান্ডা লড়াই। একে অপরের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ তুলতে দেখা গিয়েছে দুই দেশকে। রাশিয়ার সাইবার হানার বিরুদ্ধে সরব হয়েছে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। আমেরিকার প্রেসিডেন্সিয়াল নির্বাচনে নাক গলানো ও সে দেশে সাইবার হামলা-সহ একাধিক শত্রুতাপূর্ণ কার্যকলাপ চালানোর অভিযোগে রাশিয়ার উপর অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল আমেরিকা। পালটা অভিযোগও জানাতে দেখা গিয়েছে রাশিয়াকে।

[আরও পড়ুন: কিমের কোরিয়ায় অনাহারের আশঙ্কা, রাষ্ট্রসংঘের রিপোর্টে প্রকাশ্যে উদ্বেগজনক তথ্য]

Advertisement
Next