রাষ্ট্রসংঘে আমেরিকার প্রতিনিধির সঙ্গে বৈঠক ভারতের, হাজির কোয়াডের সদস্যরা

03:09 PM Jun 15, 2022 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কয়েকদিন আগেই কোয়াড (QUAD) সম্মেলনে যোগ দিয়েছিলেন চারটি দেশের রাষ্ট্রপ্রধান। প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে পারস্পরিক সহযোগিতা বজায় রাখার জন্য ফের বৈঠকে বসলেন চার দেশের প্রতিনিধি। রাষ্ট্রসংঘে ভারতের স্থায়ী প্রতিনিধি টিএস তিরুমূর্তি টুইট করে এই বৈঠকের কথা জানিয়েছেন। প্রসঙ্গত, মে মাসের শেষের দিকেই কোয়াড বৈঠকের পরে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (Narendra Modi) জানিয়েছিলেন, ফলপ্রসূ হয়েছে এই সম্মেলন।

Advertisement

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782001027-0'); });

বুধবার নিউ ইয়র্কে আলোচনায় বসেছিলেন চার দেশের প্রতিনিধি। তিরুমূর্তি (TS Tirumurti) টুইট করে জানিয়েছেন, “টোকিওতে চার দেশের শীর্ষ নেতারা বৈঠক করেছেন। তারপরেই রাষ্ট্রসংঘে (United Nations) কোয়াড দেশগুলির নিযুক্ত স্থায়ী প্রতিনিধিরাও আলোচনায় বসেন। আন্তর্জাতিক আইন মেনে চলার বিষয়ে কথা হয়েছে। এছাড়াও বিশ্বের নানা প্রান্তের সমস্যাগুলি সমাধান করার জন্য কী কী পদক্ষেপ করতে পারে রাষ্ট্রসংঘ, তা নিয়েও আলোচনা করেছেন চার দেশের প্রতিনিধিরা।”

Advertising
Advertising

[আরও পড়ুন: শ্রীলঙ্কার পর পাকিস্তান! দৈনিক ১২ ঘণ্টার বেশি সময় অন্ধকারে ডুবে গোটা দেশ]

প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে চিনের একাধিপত্য আটকানোই কোয়াডের একমাত্র উদ্দেশ্য। রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের পর চিনের (China) সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা বেড়েছে পুতিনের দেশের। সেই কারণেই সতর্ক থাকতে চাইছে আমেরিকা। কোয়াডের সদস্য দেশগুলির সঙ্গে সহযোগিতা বাড়াতে চাইছে তারা। চার দেশের এই জোটকে ন্যাটোর সমকক্ষ বলে দাবি করেছে চিন। তবে সেই দাবি উড়িয়ে দিয়ে বলা হয়েছে, সামরিক ভাবে কোনও দেশের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ করবে না এই জোট। 

প্রশান্ত মহাসগারীয় অঞ্চলে স্বাধীনতার পক্ষে সওয়াল করে কোয়াড। এই এলাকায় যেন স্বাধীনভাবে বাণিজ্য করা যায়, সেই দাবি করা হয় কোয়াডের তরফে। একই সঙ্গে কোনও দেশ যেন নিরাপত্তার অভাব বোধ না করে, সেই বিষয়েও উদ্যোগ নিতে আগ্রহী কোয়াড। জানা গিয়েছে, এবারের বৈঠকে ইন্দো-প্যাসিফিক অঞ্চলের উন্নতি ও উৎপাদনশীলতা বাড়ানোর জন্য যৌথ উদ্যোগে পরিকাঠামো উন্নয়ন নিয়ে আলোচনা হয়েছে।

[আরও পড়ুন: সর্বসম্মতিক্রমেই রাষ্ট্রপতি নির্বাচন চায় BJP! কংগ্রেসকে ফোন রাজনাথের, কথা হতে পারে মমতার সঙ্গেও]

 

Advertisement
Next