‘এটা যুদ্ধের সময় নয়’, পুতিনকে দেওয়া মোদির বার্তায় খুশি আমেরিকা

04:27 PM Sep 23, 2022 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের (Vladimir Putin) সঙ্গে বৈঠকে বসে নরেন্দ্র মোদি (Narendra Modi) বলেছিলেন, এটা যুদ্ধ করার সময় নয়। ভারতের প্রধানমন্ত্রীর এই মন্তব্যে যথেষ্ট সন্তুষ্ট হয়েছে আমেরিকা, এমনটাই জানিয়েছেন মার্কিন প্রতিরক্ষা বিভাগের শীর্ষ আধিকারিক এলি রাটনার। রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধে বরাবর শান্তিপূর্ণভাবে সমাধান চেয়েছে ভারত, সেই অবস্থানেরও প্রশংসা করেছে আমেরিকা। রাশিয়ার সঙ্গে দীর্ঘদিনের বন্ধুত্ব থাকা সত্বেও পুতিনের আগ্রাসী নীতিকে সমর্থন করেনি ভারত, সেই বিষয়টিও বেশ ভাল নজরেই দেখেছে মার্কিন প্রশাসন।

Advertisement

এসসিও সম্মেলনে (SCO Summit) যোগ দিতে গিয়ে রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিনের সঙ্গে আলাদা করে দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে বসেছিলেন মোদি। সেখানে তিনি বলেন, “যুদ্ধ করার জন্য এই সময়টা একেবারেই আদর্শ নয়। আমি ফোনেও আপনার সঙ্গে এই বিষয়ে কথা বলেছিলাম।” উত্তরে পুতিন বলেন, “ইউক্রেন প্রসঙ্গে আপনাদের চিন্তার কারণ রয়েছে তা বুঝতে পারছি। আমরাও চাই খুব তাড়াতাড়ি এই যুদ্ধ শেষ হোক।”রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ শুরু হওয়ার পরে একাধিক বার ফোনে কথা বলেছিলেন মোদি-পুতিন। প্রকাশ্যেও বারবার যুদ্ধের পরিবর্তে কূটনৈতিক ভাবে আলোচনা করে সীমান্ত সমস্যা মিটিয়ে ফেলার পক্ষে সওয়াল করেছে ভারত। আমেরিকা-সহ বেশ কয়েকটি দেশের চাপের মুখে পড়েও রাশিয়ার নিন্দা করেনি নয়া দিল্লি।

[আরও পড়ুন: অধিকৃত ইউক্রেনে গণভোট শুরু রাশিয়ার, পর্তুগালের সমান ভূখণ্ড হাতছাড়া কিয়েভের!]

তারপরেই আমেরিকার (USA) নিরাপত্তা উপদেষ্টা জ্যাক সুলিভান বলেছিলেন, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি যা মনে করেন, সেটাই বলেছেন। তাঁর এই বক্তব্যকে স্বাগত জানাচ্ছে আমেরিকা। সেই মন্তব্যের রেশ টেনেই রাটনার বলেছেন, “নিরাপত্তা সংক্রান্ত বেশ কিছু বিষয়ে রাশিয়ার সঙ্গে ভারতের দীর্ঘদিনের বন্ধুত্ব। অস্ত্র আমদানি করা থেকে শুরু করে দেশের উন্নয়ন, সমস্ত ক্ষেত্রেই দুই দেশ একে অপরের সঙ্গে সহযোগিতা করেছে।” তবে ভারতকে সাহায্য করতে প্রস্তুত রয়েছে আমেরিকা, সেই বার্তাও দিয়েছেন রাটনার।

Advertising
Advertising

প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্নের প্রকল্প ‘মেড ইন ইন্ডিয়া’র গুরুত্বও উঠে এসেছে রাটনারের কথায়। তিনি বলেছেন, “প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে আত্মনির্ভর হতে চাইছে ভারত। সেই কথা মাথায় রেখে, দেশীয় অস্ত্র উৎপাদনে ভারতকে সাহায্য করতে চায় আমেরিকা।” তাঁর সঙ্গে আলোচনার সময়ে উঠে আসে পাকিস্তানকে সামরিক ভাবে উন্নতি করার জন্য মার্কিন অনুদানের বিষয়টিও। বিশেষজ্ঞদের মতে, রাশিয়ার সঙ্গে ভারতের বন্ধুত্বকে ভাল চোখে দেখছে না আমেরিকা। সেই কারণেই পাকিস্তানকে সামরিক প্যাকেজ দেওয়া হয়েছে। তবে সেই দাবি একেবারে উড়িয়ে দিয়ে রাটনার বলেছেন, ”পূর্ববর্তী চুক্তি অনুযায়ী পাকিস্তানের এফ ১৬ বিমান রক্ষণাবেক্ষণের জন্য অনুদান দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে ভারতের কোনও ভূমিকা নেই।”

[আরও পড়ুন: ‘কানাডায় বাড়ছে ভারতবিদ্বেষ’, পড়ুয়া ও পর্যটকদের সতর্ক করল কেন্দ্র]

Advertisement
Next