Advertisement

তালিবানি শাসনেও আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে টেস্ট খেলতে পারে Team India!

02:23 PM Sep 02, 2021 |
Advertisement
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: তালিবানি (Taliban) শাসনে আদৌ ক্রিকেটাররা নিরাপদ তো? জেহাদিরা আদৌ খেলাধুলোয় আগ্রহ দেখাবে? আসন্ন টি-২০ বিশ্বকাপে রশিদ খানদের (Rashid Khan) দেখা যাবে তো? জেহাদিদের দখলে কাবুল চলে যাওয়ার পর থেকেই এই আশঙ্কাগুলিই ঘুরপাক খাচ্ছিল আফগান ক্রিকেট মহলে। তবে এখনও পর্যন্ত যা খবর, তাতে সেই আশঙ্কার অনেকটাই নিরসন হল। আফগান ক্রিকেট বোর্ড সূত্রের খবর, ক্রিকেটে কোনও রকম বাধা হয়ে দাঁড়াবে না তালিবান। বরং তারাও ক্রিকেট ভালবাসে।

Advertisement

আফগান ক্রিকেট বোর্ড জানিয়েছে, ইতিমধ্যেই অস্ট্রেলিয়ার (Australia) বিরুদ্ধে টেস্ট খেলার অনুমতি দেওয়া হয়েছে আফগানিস্তান দলকে। সম্ভবত আগামী মাসেই অজিদের বিরুদ্ধে টেস্ট খেলবেন রশিদ খানরা। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়াও সে খবর নিশ্চিত করেছে। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার তরফে জানানো হয়েছে, আফগান বোর্ডের সঙ্গে তাদের সুসম্পর্ক বজায় আছে এবং আগামী দিনেও থাকবে। তালিবানের সংস্কৃতি বিভাগের প্রধান আহমেদুল্লাহ ওয়াশিক জানিয়েছেন, আমরা সব দেশের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রাখতে চাই। অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে ভাল সম্পর্ক স্থাপন হলেই ক্রিকেটাররা সেখানে যেতে পারেন।

[আরও পড়ুন: ICC Test Ranking: টেস্ট ক্রমতালিকায় বিরাটকে টপকে গেলেন রোহিত, শীর্ষে ইংল্যান্ডের রুট]

শুধু অস্ট্রেলিয়া নয়। চমকপ্রদভাবে শোনা যাচ্ছে ভারতও নাকি আগামী বছর আফগানিস্তানের (Afghanistan) বিরুদ্ধে টেস্ট খেলতে পারে। আফগান ক্রিকেট বোর্ডের (Afghanistan Cricket Team) সিইও হামিদ সিনওয়ারি জানিয়েছেন, আগামী বছরের শুরুর দিকে ভারত আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে একটি টেস্ট সিরিজ খেলতে পারে। এই সিরিজের সম্ভাবনা প্রবল। এই সিরিজটি হতে পারে ভারতের মাটিতেই।

[আরও পড়ুন: India vs England: খারাপ পারফরম্যান্সের জেরে ছাঁটাই রাহানে! দলে ৩ বদল আনতে পারেন কোহলি]

প্রসঙ্গত, আফগানিস্তানে এর আগে তালিবান শাসনের সময় পুরোপুরি বন্ধ ছিল খেলাধুলো। এবারও রাজনৈতিক অশান্তির জেরে পাকিস্তানের (Pakistan) বিরুদ্ধে নির্ধারিত ৩ ম্যাচের সিরিজ পিছিয়ে দিতে বাধ্য হয়েছে আফগান বোর্ড। তারপরই আশঙ্কা করা হচ্ছিল, এবারেও হয়তো খেলাধুলোয় বাধা দেবে তালিবানরা। তবে, জেহাদিরা জানিয়ে দিয়েছে সমস্ত খেলা সূচি অনুযায়ীই চলবে। যার অর্থ টি-২০ বিশ্বকাপেও দেখা যাবে রশিদ খানদের। 

Advertisement
Next