বিয়েবাড়িতে খাবার কম, বর-কনেপক্ষের সংঘর্ষে জখম ১০, খালি হাতেই ফিরলেন পাত্র

04:35 PM May 21, 2022 |
Advertisement

সুকুমার সরকার, ঢাকা: বিয়ে বাড়িতে কত কিছুই নিয়েই ঝামেলা বাঁধে। অনেক সময় বিয়ে পর্যন্ত ভেঙে যায়। তবে খাবার কম পড়া নিয়ে বাংলাদেশের (Bangladesh) নরসিংদীতে বিয়েবাড়িতে যা ঘটল, তা রীতিমতো শোরগোল ফেলার মতো। খাবার কম দেওয়াকে কেন্দ্র করে বর ও কনেপক্ষের লোকজনের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে কমপক্ষে ১০ জন জখম হয়েছেন। শুক্রবার বিকেলে ঢাকা থেকে ৯০ কিলোমিটার দূরের জেলা নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলার পূর্ব হরিপুর গ্রামে এই কাণ্ড ঘটে। পরে বিয়ে বাদ রেখেই বর সঙ্গীদের নিয়ে বাড়ি ফিরে যান।

Advertisement

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, রায়পুরা উপজেলার মুছাপুর ইউনিয়নের পূর্ব হরিপুর গ্রামের রফিকুল ইসলামের মেয়ের সঙ্গে রায়পুরা ইউনিয়নের মাহমুদপুর গ্রামের আতাউরের ছেলের দীর্ঘদিনের প্রেমের (Love) সম্পর্ক ছিল। সেই সূত্র ধরেই দুই পরিবারের সম্মতিতে শুক্রবার বিয়ের (Marriage) দিন ধার্য হয়। দুপুরের পর বরযাত্রী বিয়েবাড়িতে উপস্থিত হলে শুরু হয় খাওয়াদাওয়া। সেখানেই বিপত্তি ঘটে।

[আরও পড়ুন: ‘ভেবেছিলাম বেঁচে আছে পল্লবী’, থানায় জেরার মুখে পুলিশকে বললেন প্রেমিক সাগ্নিক]

একসময়ে বরপক্ষ অভিযোগ তোলেন, তাঁদের খাবার কম পরিমাণে দেওয়া হয়েছে। বরের বাবা রফিকুল ইসলাম খাবার ভরতি প্লেট ঢিল মেরে ফেলে দেন। এরপরই শুরু হয় দু’পক্ষের তর্ক-বিতর্ক। তা হাতাহাতি থেকে ধুন্ধুমার মারামারিতে পৌঁছে যায়। এই ঘটনায় দুপক্ষের ১০ জন আহত হয়েছেন। পরে রায়পুরা থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

Advertising
Advertising

[আরও পড়ুন: কলকাতায় নতুন ঠিকানা সৌরভের, শহরের বুকে বাড়ির দাম জানলে চমকে যাবেন!]

রায়পুরা থানার এসআই (SI) রাকিবুল ইসলাম বলেন, ‘‘বর পক্ষকে খাবার কম দেওয়ার অভিযোগ তুলে বরের পিতা খাবার-সহ প্লেট ফেলে দিলে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। এ সময় দু’পক্ষের মধ্যে হাতাহাতি হয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করে।’’ তিনি আরও বলেন, ‘‘ঘটনাস্থল থেকে আমরা চলে আসার পর জানতে পারি, বরপক্ষ বিয়ে সম্পন্ন না করেই চলে গেছে। এই ঘটনায় কোনও পক্ষই থানায় অভিযোগ করেনি।’’

Advertisement
Next