রবীন্দ্রজয়ন্তীর অনুষ্ঠান ঘিরে TMCP’র দুই গোষ্ঠীর সংঘর্ষ, রণক্ষেত্র কালনা কলেজ, সাসপেন্ড অস্থায়ী কর্মী

04:14 PM May 20, 2022 |
Advertisement

অভিষেক চৌধুরী, কালনা: রবীন্দ্রজয়ন্তীর অনুষ্ঠানকে কেন্দ্র করে তৃণমূল ছাত্র পরিষদের দুই গোষ্ঠীর সংঘর্ষ। রণক্ষেত্রের চেহারা নিল পূর্ব বর্ধমানের কালনা কলেজ (Kalna College)। অধ্যক্ষকে উদ্দেশ্য করে ‘গো ব্যাক’ স্লোগান তোলে একদল। সব মিলিয়ে তুমুল চাঞ্চল্য ছড়ায় কলেজ চত্বরে। জখম হয়েছেন এক ছাত্র। অশান্তির ঘটনায় জড়িত সন্দেহে সাসপেন্ড করা হল কলেজের এক অস্থায়ী কর্মীকে। 

Advertisement

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782001027-0'); });

জানা গিয়েছে, রবীন্দ্র জয়ন্তী উপলক্ষ্যে শুক্রবার বাংলা বিভাগের তরফে কালনা কলেজে একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল। সেখানে হাজির হয়েছিলেন কালনার বিধায়ক দেবপ্রসাদ বাগ, কালনা পুরসভার চেয়ারম্যান আনন্দ দত্ত, কালনা কলেজের অধ্যক্ষ-সহ বিশিষ্টজনেরা। তৃণমূল ছাত্র পরিষদের (TMCP) একাংশ এদিন দাবি করে, এই অনুষ্ঠানে তাঁদের আমন্ত্রণ জানানো হয়নি। প্রতিবাদে বাংলা বিভাগের সামনে বিক্ষোভ দেখায় বিক্ষুব্ধ ছাত্র পরিষদের নেতা ও সমর্থকরা।

[আরও পড়ুন: দেড় মাস পর কলকাতা থেকে বাড়ির উদ্দেশে রওনা দিলেন অনুব্রত, বোলপুরে সাজ সাজ রব]

এরপরই বচসায় জড়ায় তৃণমূল ছাত্র পরিষদের দুই গোষ্ঠী। ক্রমেই উত্তেজনা বাড়ে। প্রথমে বাংলা বিভাগের সামনে বিক্ষোভ ও স্লোগান চলতে থাকে। এরপর লাঠি নিয়ে একে অপরের উপর চড়াও হয়। অধ্যক্ষকে উদ্দেশ্য করে ‘গো ব্যাক’ স্লোগান তোলে। সব মিলিয়ে তুমুল উত্তেজনা ছড়ায়। গুরুতর জখম হন এক ছাত্র। মাখা ফেটেছে তাঁর। আহত অবস্থায় ওই ছাত্রকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে বলে খবর। এ বিষয়ে কলেজের অধ্যক্ষ তাপসকুমার সামন্ত জানিয়েছেন, অশান্তি-হামলার সময় সেখানে দেখা গিয়েছে অস্থায়ী কর্মী সন্দীপ চক্রবর্তীকে। সেই কারণে তাকে সাসপেন্ড করা হয়েছে।

Advertising
Advertising

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782050143-0'); });

শিক্ষাঙ্গনে অশান্তির ঘটনা এই প্রথম নয়। ঘটনার পুনরাবৃত্তি যাতে না ঘটে সেই কারণে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের তরফে পদক্ষেপও করা হয়েছে। তা সত্ত্বেও ফের একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি।

[আরও পড়ুন: খাগড়াগড়ের ‘জঙ্গি ডেরা’র কাছেই জাল নোট ছাপানোর কারখানার হদিশ! গ্রেপ্তার ৩]

Advertisement
Next