Babita Sarkar: লড়াকু মানসিকতাকে সম্মান! আইনি লড়াইয়ে জিতে চাকরি পাওয়া ববিতা ডাক পেলেন পুজো উদ্বোধনে

09:24 PM Sep 30, 2022 |
Advertisement

তারক চক্রবর্তী, শিলিগুড়ি: মন্ত্রীকন্যার সঙ্গে লড়াই করে নিজের অধিকার আদায় করেছেন। পেয়েছেন চাকরি। আইনি লড়াইতে জিতে বর্তমানে স্কুল শিক্ষিকা তিনি। দেবীপক্ষে সেই ‘লড়াকু’ ববিতাই যেন নারীশক্তির প্রতীক। তাই দুর্গাপুজো উদ্বোধনে আমন্ত্রণ পেলেন তিনি। মহাষষ্ঠীতে শিলিগুড়ির আদর্শ নগরের মহিলা শক্তি সংগঠনের পুজো উদ্বোধন করবেন ববিতা।

Advertisement

২০১৬ সালের ৪ ডিসেম্বর এসএসসি (SSC) পরীক্ষায় বসেছিলেন ববিতা সরকার। ২০১৭ সালের ২৭ নভেম্বর প্রকাশিত হয়েছিল মেধাতালিকা। সেখানে ওয়েটিং লিস্টে নাম ছিল তাঁর। সাধারণত প্যানেল লিস্টে থাকা কর্মপ্রার্থীদের চাকরি হওয়ার পর ওয়েটিং লিস্টে থাকা চাকরি প্রার্থীদের পালা আসে। তাই আশায় বুক বেঁধে বসেছিলেন শিলিগুড়ির কোর্ট মোড়ের বাসিন্দা ববিতা সরকার। কিন্তু সেই চাকরি আর জোটেনি। তারই মধ্যে তালিকা প্রকাশের দাবিতে আন্দোলনে নামেন কর্মপ্রার্থীরা।

[আরও পড়ুন: পুজোয় কলকাতায় আসছেন না অমিত শাহ, হতাশ গেরুয়া শিবির]

ববিতা সরকারের নাম রয়েছে ২০ নম্বরে। কিন্তু দ্বিতীয় কাউন্সেলিংয়ের পর তিনি জানতে পারেন তাঁর নাম চলে গিয়েছে ২১ নম্বরে। অদৃশ্য হাতের ম্যাজিকে এক নম্বরে পৌঁছে গিয়েছেন শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী পরেশ অধিকারীর কন্যা অঙ্কিতা। এরপরই ন্যায় বিচারের দাবিতে কলকাতা হাই কোর্টের (Calcutta High Court) দ্বারস্থ হন ববিতা সরকার। অঙ্কিতার চাকরি বাতিলের নির্দেশ দেয় হাই কোর্ট।

চাকরি পাওয়ার পর এই প্রথম পুজো ববিতার। এবারই প্রথম পুজো উদ্বোধনে আমন্ত্রণও পেয়েছেন তিনি। উচ্ছ্বসিত ববিতা। তিনি বলেন, “নেতামন্ত্রীরা যেমন পুজো উদ্বোধন করেন এটা ঠিক তেমন নয়। আসলে শিলিগুড়ির আদর্শ নগরের মহিলা শক্তি সংগঠনের সদস্যরা আমার লড়াইয়ে অনুপ্রাণিত। সে কারণে তাঁরা আমাকে পুজো উদ্বোধনে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন। আমি যাব।” এখনও চলছে চাকরিপ্রার্থীদের আন্দোলন। দাবি আদায়ের আশায় বুক বাঁধছেন তাঁরা। “আন্দোলনকারীরা আরও শক্তি দাও মা”, দুর্গতিনাশিনীর কাছে একটাই প্রার্থনা ববিতার। 

Advertising
Advertising

[আরও পড়ুন: ৬২০০ ফুট উঁচু পাহাড়ের কোলে দুর্গার আরাধনা, ঝান্ডি ও সুন্তালেতে অভিনব পুজোর আয়োজনে স্থানীয়রা]

Advertisement
Next