Murder By The Sea Review: গতানুগতিক কাহিনি, চেনা ছকের বাইরে বের হতে পারল না ‘মার্ডার বাই দ্য সি’ওয়েব সিরিজ

03:44 PM Aug 16, 2022 |
Advertisement

সুপর্ণা মজুমদার: ‘মার্ডার ইন দ্য হিলস’-এর পর ‘মার্ডার বাই দ্য সি’ (Murder By The Sea)। ওয়েবদুনিয়ার দর্শকদের জন্য আরও এক খুনের রহস্য নিয়ে হাজির হয়েছেন পরিচালক অঞ্জন দত্ত (Anjan Dutt)। দুইয়ের তফাত খুব একটা নেই। বেশিরভাগ অভিনেতাও একই। 

Advertisement

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782001027-0'); });

Advertising
Advertising

window.unibots = window.unibots || { cmd: [] }; unibots.cmd.push(()=>{ unibotsPlayer('sangbadpratidin'); });

‘মার্ডার ইন দ্য হিলস’ সিরিজে বাঙালির সাধের দার্জিলিংয়ের প্রেক্ষাপটে কাহিনি সাজিয়েছিলেন অঞ্জন দত্ত। এবার তিনি ওয়েব সিরিজের মাধ্যমে দর্শকদের পুরী ঘুরিয়ে দিয়েছেন। ছোটবেলার ট্রমা থেকে মুক্তি পেতে পরিচালক স্বামী রাজার (অঞ্জন দত্ত)  সঙ্গে পুরীতে চলে আসে রহস্য উপন্যাসের লেখিকা অর্পিতা সেন (অনন্যা চট্টোপাধ্যায়)। সেখানে তাঁকে বিক্রম রায়ের (সুমন্ত মুখোপাধ্যায়) জন্মদিনের পার্টিতে নিয়ে যায় সদ্য পরিচিত অরুণ রায় (রূপঙ্কর বাগচী)। বাইপোলার ডিসঅর্ডার রয়েছে অর্পিতার। পার্টির লোকজন বেশিক্ষণ সহ্য হয় না তার। কিছুক্ষণ বাদেই সেখান থেকে চলে যায়।

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782050143-0'); });

এর মধ্যেই ঘটে বিপত্তি। যাঁর জন্মদিনের পার্টিতে অর্পিতা গিয়েছিল সেই বিক্রম রায় আচমকা খুন হয়ে যায়, আর বিক্রমের মৃতদেহ সমুদ্রের ধারে অর্পিতাই দেখতে পায়। পুলিশ এসে মৃতদেহ উদ্ধার করে বটে অর্পিতার রহস্য উপন্যাসের লেখিকা সত্ত্বা জেগে ওঠে। সেও চায় খুনির সন্ধান পেতে। প্রাইম সাসপেক্ট বিক্রম রায়ের ছেলে অর্জুন (অর্জুন চক্রবর্তী), রক্ষিতা বিমলা (পায়েল সরকার), উকিল বরুণ (সুজন নীল মুখোপাধ্যায়), বিক্রমের সেক্রেটারি রমেন (সুপ্রভাত দাস) এবং ফটোগ্রাফার অরুণ। 

[আরও পড়ুন: মা হতে চলেছেন বিপাশা বসু, বেবি বাম্পে আদরের চুমু স্বামী করণের, দেখুন ছবি]

সময়ের সঙ্গে সঙ্গে জটিল হয়েছে গল্প। এতে আবার অর্পিতার ছোটবেলার দুর্ঘটনাও যুক্ত হয়েছে। আর কী কী হয়েছে, তা হইচই OTT প্ল্যাটফর্মে আটটি এপিসোডে দেখে নিতে পারে। প্রত্যেকটি এপিসোডের সঙ্গে গল্প ক্রমশ জটিল হয়েছে। রহস্য গল্পে জটিলতা বাঞ্ছনীয়। তবে মাঝে মধ্যেই তা খেই হারিয়েছে। শেষের দিকে রহস্য কম, ড্রামা বেশি মনে হয়েছে।  অঞ্জন দত্তের সিনেমা হোক বা সিরিজ, তাতে মদ এবং সিগারেটের দৃশ্য প্রচুর থাকবে। এক্ষেত্রেও তার অন্যথা হয়নি। কিন্তু বিষয়গুলি এখন বড্ড একঘেয়ে ঠেকছে। রিনার চরিত্রে তৃণা সাহার উপস্থিতি শুধুমাত্র যেন ক্লাইমেক্সের খাতিরেই। আবার অর্জুন চক্রবর্তীর মতো অভিনেতা কেবল বদরাগী বড়লোকের ছেলে হয়ে রয়ে গেলেন।

রূপঙ্কর অভিনয় মন্দ করেননি। কিন্তু কিছু দৃশ্যে তাঁকে একটু বেশি নাটুকে মনে হয়েছে। অনন্যা জাতীয় পুরস্কারজয়ী অভিনেত্রী। এ সিরিজের মুখ্য চরিত্র তিনি। তবে এবার তাঁকেও যেন কেমন একটু নিস্প্রভ মনে হল। আর অঞ্জন দত্তর সিনেমা মানেই তাঁর ছেলে নীল দত্ত সংগীতের দায়িত্বে। এ সিরিজে আবার ক্রিয়েটিভ প্রযোজকের দায়িত্বও পালন করেছেন নীল। সবমিলিয়ে বলতে গেলে গতানুগতিকতার বাইরে বের হতে পারেনি  ‘মার্ডার বাই দ্য সি’।

সিরিজ – ‘মার্ডার বাই দ্য সি’
অভিনয়ে – অঞ্জন দত্ত, অনন্যা চক্রবর্তী, অর্জুন চক্রবর্তী, তৃণা সাহা, পায়েল সরকার, সুপ্রভাত দাস, সুজন নীল মুখোপাধ্যায়, সুমন্ত মুখোপাপাধ্যায়।
পরিচালনায় – অঞ্জন দত্ত

[আরও পড়ুন: ৭ দিনেই সিনেমা হল থেকে বিদায় নেবে ‘লাল সিং চাড্ডা’? ভেঙে পড়েছেন আমির খান]

This browser does not support the video element.

Advertisement
Next