Advertisement

ত্রিপুরায় প্রশান্ত কিশোরের টিমকে ‘হেনস্তা’, নিন্দায় সরব Abhishek

08:23 PM Jul 26, 2021 |
Advertisement
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ত্রিপুরায় (Tripura) ‘হেনস্তা’র শিকার ভোটকুশলী প্রশান্ত কিশোরের  দল। তাঁর দলের ২৩ জন সদস্যকে রবিবার রাত একটা থেকে আচমকা জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে পুলিশ। এমনকী, সোমবারও তাঁদের হোটেল থেকে বের হতে দেওয়া হয়নি।  অভিযোগ, জিজ্ঞাসাবাদের নামে তাঁদের আটকে রাখা হয়েছে। এই ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। টুইটারে তিনি লেখেন, “এ রাজ্যে (ত্রিপুরা) তৃণমূলের আসার আগেই বিজেপি ভয় পাচ্ছে। এই ঘটনায় সেটা স্পষ্ট হয়ে গেল। বাংলায় আমাদের জয়ে ওঁরা শঙ্কিত। তাই আই প্যাকের ২৩ জনকে হোটেলে আটকে রেখেছে।”

Advertisement

তৃণমূলের (TMC) এবারের পাখির চোখ ত্রিপুরা। সেখানে দলের সংগঠন মজবুত করার চেষ্টা চালাচ্ছে ঘাসফুল শিবির। একুশে জুলাই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বার্তা শোনানো হয় ত্রিপুরায়। আর এই সংগঠন বৃদ্ধির দায়িত্ব বর্তেছে পিকের টিমের উপর। ত্রিপুরায় ঘাসফুল ফোটাতে ২০২৩ সাল পর্যন্ত পিকের সঙ্গে তৃণমূলের চুক্তি হয়েছে। তাই সেই রাজ্যের মানুষের মন বোঝার চেষ্টা করছে প্রশান্ত কিশোর তথা আই প্যাক টিমের (I Pac Team) সদস্যরা। সেই উদ্দেশে ত্রিপুরায় গিয়েছেন তাঁরা। আপাতত মঠচৌমুহনি সংলগ্ন পুরানো জেল রোড যাওয়ার রাস্তায় একটি হোটেলে রয়েছেন আই প্যাক সদস্যরা।

 

[আরও পড়ুন: ব্রাহ্মণ তুমি কার? উত্তরপ্রদেশ জিততে ‘বর্ণশ্রেষ্ঠ’দের নিয়ে টানাটানি মায়া-অখিলেশের]

গত এক সপ্তাহ ধরে আগরতলা-সহ গোটা রাজ্যে তাঁরা তৃণমূলের হয়ে জনমত সমীক্ষা চালাচ্ছেন। অভিযোগ, তাঁদের পরিচয় জানতে রবিবার রাত একটা থেকে হোটেলে আটক করে রাকা হয়েছে। পরিচয় জানার নামে হয়রানি করা হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এ প্রসঙ্গে ত্রিপুরার তৃণমূলের রাজ্য সভাপতি আশিসলাল সিং জানান, “রুটিন জিজ্ঞাসাবাদের নামে পিকের টিমের সদস্যদের আটকে রাখা হয়েছে। ওঁরা শুধু তৃণমূল নয় সমস্ত দলের সঙ্গেই কথা বলছিল। আসলে বিজেপি সবকিছুর মধ্যে ভূত দেখছে।” তাঁর কথায়, “এটা গণতান্ত্রিক কাঠামোয় কুঠারাঘাত। একজন ত্রিপুরাবাসী হিসেবে আমি লজ্জিত।”

উল্লেখ্য, ২১ জুলাই  কৈলাস নগরে জমায়েত করেছিলেন তৃণমূলের বর্ষীয়ান নেতা আশিসলাল সিনহা-সহ অন্যান্য নেতারা। ওই দিন তৃণমূল সুপ্রিমোর বার্তা শোনানোর ব্যবস্থা করা হয়েছিল। সেই সময় বিজেপি কর্মীরা তাঁদের উপর হামলা চালায় বলে অভিযোগ। এমনকী, ৮২ জন তৃণমূল নেতা-কর্মীকে গ্রেপ্তার করে ত্রিপুরার পুলিশ। এর পর ফের একবার তৃণমূলের ভোট টিমকে হেনস্তা করার অভিযোগ উঠল। 

[আরও পড়ুন: #AbkiBaarDidiSarkar, কেন্দ্রে মমতার সরকার চেয়ে টুইটারে ট্রেন্ডিং নতুন হ্যাশট্যাগ]

Advertisement
Next