Advertisement

‘আমার শাসনে সাড়ে চার বছরে একটাও দাঙ্গা হয়নি’, ভোটের মুখে সদর্প ঘোষণা যোগীর

04:40 PM Sep 19, 2021 |
Advertisement
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: উত্তরপ্রদেশে বিজেপি (BJP) শাসনের সাড়ে চার বছরে একটিও দাঙ্গা হয়নি। বিধানসভা ভোটের ঠিক ছ’মাস আগে সদর্পে ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ (Yogi Adityanath)। দাবি করলেন, একসময় যে উত্তরপ্রদেশে দাঙ্গা-হাঙ্গামা নিত্য নৈমিত্তিক ঘটনা হয়ে দাঁড়িয়েছিল, সেটাই এখন পুরোপুরি হিংসামুক্ত রাজ্য।

Advertisement

বস্তুত, সাড়ে চার বছর আগে যোগী আদিত্যনাথ যখন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী পদে বসেন, তখন নিন্দুকেরা রাজ্যের সংখ্যালঘুদের নিয়ে রীতিমতো উদ্বেগ প্রকাশ করেছিলেন। যোগীর শাসনে উত্তরপ্রদেশে (Uttar Pradesh) দাঙ্গা-হাঙ্গামা রোজকার ঘটনা হয়ে দাঁড়াবে, আশঙ্কা করছিলেন তথাকথিত বুদ্ধিজীবীদের একটা বড় অংশ। কিন্তু যোগীর মুখ্যমন্ত্রিত্বের সাড়ে চার বছর পর নাকি পুরোপুরি অন্য ছবি দেখা যাচ্ছে।

ফাইল ছবি

[আরও পড়ুন: উত্তরপ্রদেশে যোগীর বিরুদ্ধে দলের মুখ প্রিয়াঙ্কাই! ঘোষণা শীর্ষ কংগ্রেস নেতার]

অন্তত যোগীর নিজের দাবি অনুযায়ী, তাঁর রাজ্য এখন পুরোপুরি দাঙ্গামুক্ত। আসলে, রবিবারই মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে সাড়ে চার বছর পূর্ণ করেছেন যোগী আদিত্যনাথ। সরকারের এই সাড়ে চার বছরের সাফল্য তুলে ধরতে একটি পুস্তিকাও প্রকাশ করেছেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী। সেখানেই তিনি দাবি করেছেন,”উত্তরপ্রদেশের মতো রাজ্যে সাড়ে চারবছর ধরে সুশাসন বজায় রাখাটা খুব গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। উত্তরপ্রদেশ সম্পর্কে গোটা দেশের ধারণাই পালটে গিয়েছে। এটা সেই উত্তরপ্রদেশ যেখানে একটা সময় দাঙ্গাটা ট্রেন্ড হয়ে দাঁড়িয়েছিল। কিন্তু গত সাড়ে চার বছরে এখানে একটাও দাঙ্গা হয়নি।”

[আরও পড়ুন: Babul Supriyo Joins TMC: তৃণমূলে যোগ দেওয়া বাবুল সুপ্রিয়র নিরাপত্তা কমিয়ে দিল কেন্দ্র]

যোগীর এই দাবি যদি সত্যি হয়, তাহলে নিঃসন্দেহে তা বড় সাফল্য। কারণ, যোগী আদিত্যনাথ যেসময় উত্তরপ্রদেশের ক্ষমতায় এলেন তখন রাজ্যের বিস্তীর্ণ অঞ্চলে সাম্প্রদায়িক অশান্তির আবহ। মুজফফরপুর দাঙ্গার স্মৃতি তখনও টাটকা। সেখান থেকে গোটা রাজ্যে শান্তি ফেরানোটা সত্যিই কৃতিত্বের। কিন্তু সত্যিই কি যোগীর করা দাবির সারবত্তা আছে? সেটা নিয়েও প্রশ্ন রয়েছে। বস্তুত যোগীর আমলে উত্তরপ্রদেশে বড় কোনও দাঙ্গার ঘটনা না ঘটলেও সংখ্যালঘুদের মধ্যে একটা অজানা ভীতি যে কাজ করছে, সেটা অস্বীকার করার কোনও জায়গা নেই বলেই মনে করেন স্থানীয়রা। তাছাড়া, যোগীরাজ্যে ধর্মীয় কারণে ছোটখাট অনেক হিংসার ঘটনাই ঘটছে। যা হয়তো জনসমক্ষে আসছে না।

Advertisement
Next