Advertisement

শরীরের এই সব অংশে বিশেষ ম্যাসাজে মিলনে ব্যাকুল হয়ে উঠবেন সঙ্গীনি

11:00 PM Nov 28, 2020 |

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: নারী শরীর খুবই স্পর্শকাতর। আঙুলের সামান্য ছোঁয়াতেই তাতে শিহরণ জাগানো যায়। হাতের কেরামতিতেই দাবানলের মতো ছড়িয়ে পড়ে কামোত্তেজনা। ম্যাসাজ শরীরের পক্ষে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এমনটাই বলছেন মার্কিন যৌন বিশারদ অ্যান্ড্রিউ পারসিজিয়ান। তাঁর মতে, যৌনতাকে যদি সংগীতের সঙ্গে তুলনা করা হয়, তাহলে সুর-তাল-লয় এক্কেবারে সঠিকভাবে বুঝতে হয়। সঙ্গিনীর শরীরে কামের তীব্র আগুন জ্বালিয়ে দিতে পারে কয়েকটি বিশেষ স্থানের ম্যাসাজ (massage)। যেমন-

Advertisement

১) মনের কথা কবিতার ভাষায় ভালই লাগে। তবে বাস্তব জীবনের যুক্তিতে শরীর আসলে নিয়ন্ত্রণ করে মানুষের মস্তিষ্ক। তাই হেড ম্যাসাজ দিয়েই শুরু করা যাক। মাথার তালুর ঠিক মাঝখানে বুড়ো আঙুল রেখে বাকি আঙুলগুলি দুই কানের উপরে উঠে ম্যাসাজ দিতে হবে। প্রথমে শরীরের ক্লান্তিভাব দূর হবে, তারপর সোনায় সোহাগা!

২) শরীরের বেশিরভাগ নার্ভ পায়ের নিম্নভাগের সঙ্গে যুক্ত। পায়ের তালুর ঠিক মাঝখানের অংশ কিংবা তাঁর পাশের মাংসল অংশে ঠিকভাবে ম্যাসাজ করতে পারলে শরীরে রক্ত সঞ্চালন বাড়ে। আর নতুন উদ্যম জাগে। ভালবাসার ছোঁয়ায় ধীরে ধীরে আত্মসমর্পণ করে রক্তমাংসের শরীর।

[আরও পড়ুন: শুধু সঙ্গী নন, উদ্দাম যৌনতায় বড় ভূমিকা পরিবেশেরও, বুদ্ধি করে বাছুন মিলনের সঠিক ঠিকানা]

৩) পায়ের আরেকটি অংশ শরীরের আরামের ক্ষেত্রে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তা হল গোঁড়ালির ঠিক উপরের অংশ। এখানে ম্যাসাজের পাশাপাশি হালকা চুম্বনও করতে পারেন। তাতে সঙ্গিনীর শরীরে যৌন চাহিদা প্রবল বেড়ে যাবে। প্রেমের নতুন জোয়ারে ভেসে যাবেন।

৪) নাভির ঠিক নিচের অংশ শরীরের খেলায় ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ। হালকা ছোঁয়াতেই দাবানলের মতো ছড়িয়ে পড়তে পারে কামাগ্নি। খুবই আলতোভাবে এই স্থানে ম্যাসাজ করবেন। তারপরই কেল্লাফতে!

৬) উরু ও যোনির মধ্যবর্তী কটিসন্ধি এলাকাও যৌনতার ক্ষেত্রে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সঙ্গমের ঠিক আগে এই জায়গায় হালকা ম্যাসাজ দিন। ফল পাবেন হাতেনাতে।  

[আরও পড়ুন: যৌনতার থেকেও অন্তরঙ্গ বালিশে মাথা রেখে গপ্প, কেন এ কথা বলছেন বিশেষজ্ঞরা?]

Advertisement
Next