Advertisement

Visva Bharati: গরিমা নষ্টের অভিযোগ, উপাচার্যের বিরুদ্ধে কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রীকে চিঠি অধ্যাপকদের

07:53 PM Sep 07, 2021 |
Advertisement
Advertisement

ভাস্কর মুখোপাধ্যায়, বীরভূম: পড়ুয়াদের অসন্তোষে এখনও শিরোনামে বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয় (Visva Bharati University)। তিন পড়ুয়াকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত খারিজের দাবিতে রবিবার থেকে অনশনে বসেছেন সংগীত ভবনের ছাত্রীরা। দাবিপূরণ না হওয়া পর্যন্ত অনশন চলবে বলেই জানিয়েছেন আন্দোলনকারীরা। এই পরিস্থিতিতে বিশ্বভারতীকে বাঁচানোর আবেদন জানিয়ে কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রীর কাছে চিঠি পাঠাল বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক সংগঠন। সেখানে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের বিরুদ্ধে একরাশ অভিযোগ তোলা হয়েছে।

Advertisement

বেতন ও পেনশন না দেওয়া, অনৈতিকভাবে বেতন কেটে নেওয়া, কথায় কথায় অধ্যাপক, ছাত্র-ছাত্রী এবং কর্মীদের সাসপেন্ড করা, বহিষ্কার করা, বদলি করা-সহ নানা অভিযোগ তোলা হয়েছে। সেই সঙ্গে অভিযোগ করা হয়েছে, উপাচার্যের (Vice Chancellor Bidyut Chakrabarty) সিদ্ধান্তের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের বিরুদ্ধে প্রচুর মামলা আদালতে চলছে, যার ফলে বিশ্ববিদ্যা‌‌লয়ের ব্যয় বেড়েছে অনেকটাই। এমনকী ২০১৮ সালের অক্টোবর মাস থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক পদে কোনও নিয়োগ হয়নি। সহ উপাচার্য, রেজিস্ট্রার, ফিনান্স অফিসার -সহ বহু পদ ফাঁকা রয়েছে।

[আরও পড়ুন: পরিচিত পুরুষের পাশে বসে ট্রেনে যাতায়াত, সালিশি সভায় মাতব্বরদের নিদানে একঘরে মহিলা]

ওই চিঠিতে আরও অভিযোগ করা হয়েছে, স্থানীয়দের সঙ্গে উপাচার্যের খারাপ ব্যবহার করেন। তার ফলে বিশ্ববিদ্যালয় সম্পর্কে ভুল ধারণা মানুষের মধ্যে গেঁথে গিয়েছে। তাই বিশ্বভারতীর মতো ঐতিহ্যবাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের গরিমা ফেরাতে অবিলম্বে কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রীর হস্তক্ষেপ প্রয়োজন। বিশ্বভারতী সূত্রে খবর, শুধুমাত্র ছাত্রদের আন্দোলন মঞ্চে থাকা নয়, এবার যৌথ মঞ্চ করে উপাচার্যের বিরুদ্ধে আন্দোলন করার পরিকল্পনা নেওয়া হচ্ছে। সেখানে বিশ্বভারতীর এই আন্দোলনরত পড়ুয়ারা ছাড়াও অধ্যাপকদের একটা বড় অংশ, স্থানীয় ব্যবসায়ী সমাজ, হস্তশিল্পীদের সংগঠন, বিশ্বভারতীর আলাপিনী মহিলা সমিতি-সহ বেশ কিছু সংগঠন যোগ দিতে চলেছে।

এদিকে, সোমবারও উপাচার্যের সরকারি আবাসন পূর্বিতার সামনে শিক্ষক দিবসে দেওয়া পড়ুয়াদের পুষ্পস্তবক পড়ে থাকতে দেখা যায়। এদিন সকালে উপাচার্যের গাড়িতে তল্লাশি চালান আন্দোলনকারীরা। কলকাতা হাই কোর্টের নির্দেশ থাকা সত্ত্বেও কেন উপাচার্যের গাড়ি তল্লাশি করল পড়ুয়ারা  তা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। উপাচার্যের নিরাপত্তারক্ষীদের বিরুদ্ধে আন্দোলনকারীদের বাধা না দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। 

[আরও পড়ুন: লাগবে না পৃথক ব্যাংক অ্যাকাউন্ট, ‘লক্ষ্মীর ভাণ্ডারে’ই মিলবে যক্ষ্মা রোগীর মাসিক ভাতা!]

Advertisement
Next