Advertisement

মৎস্যজীবী হত্যায় অভিযুক্ত ইটালির নাবিকদের বিরুদ্ধে মামলা বন্ধ করল সুপ্রিম কোর্ট

11:42 AM Jun 15, 2021 |
Advertisement
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মৎস্যজীবী হত্যায় অভিযুক্ত ইটালির দুই নাবিকের বিরুদ্ধে ভারতে চলা সমস্ত মামলা বন্ধ করল সুপ্রিম কোর্ট (Supreme Court)। এমনটাই খবর সংবাদ সংস্থা এএনআই সূত্রে।

Advertisement

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

[আরও পড়ুন: ৩ মাসে ৫০টি মডিউলার হাসপাতাল তৈরির পরিকল্পনা, করোনার তৃতীয় ঢেউ রুখতে প্রস্তুতি কেন্দ্রের]

জানা গিয়েছে, কেরল উপকূলে দুই ভারতীয় মৎস্যজীবীকে হত্যায় অভিযুক্ত ইটালির নাবিক সালভাতোর গিরোনে ও মাসসিমিলানো লাতোরের বিরুদ্ধে চলা সমস্ত মামলা বন্ধ করার নির্দেশ দিয়েছে বিচারপতি ইন্দিরা বন্দ্যোপাধ্যায় ও বিচারপতি এম আর শাহর পরিচালনাধীন বেঞ্চ। আদালত সূত্রে খবর, ওই মৎস্যজীবীদের পরিবারকে ১০ কোটি টাকা আর্থিক মদত দেওয়ার নিরিখেই এই রায় দেওয়া হয়েছে। এই অর্থ কেরল হাই কোর্টের কাছে পাঠানো হবে যাতে ওই পরিবারগুলি ক্ষতিপূরণ যথাযথ পায়। কূটনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, এই রায়ের ফলে ইটালি ও ভারতের মধ্যে দীর্ঘ দিনের টানাপোড়েন শেষ হয়েছে। কেরল উপকূলে ঘটা এই ঘটনার জেরে ফারল ধরেছিল দুই দেশের সম্পর্কে। বলে রাখা ভাল, ২০১২ সালে কেরল উপকূলে ভারতের এক্সক্লুসিভ ইকোনোমিক জোনে মাছ ধরছিল একটি নৌকা। সেই সময় সেখান দিয়ে যাচ্ছিল ইটালির একটি তেল বোঝাই জাহাজ। ওই জাহাজে ছিলেন সালভাতোর গিরোনে ও মাসসিমিলানো লাতোর। অভিযোগ, ভারতীয় জলসীমানায় ঢুকে পড়ার পর গুলি করে দুই ভারতীয় মত্‍সজীবীকে মেরে ফেলেন তাঁরা৷ ইতালীয় ওই দুই নাবিককে আটক করে ভারত৷ খুনের অভিযোগ আনা হয় দু’জনের বিরুদ্ধে৷ যদিও ইতালির তরফে বারংবার জানানো হয়, কেরলের দুই মত্‍সজীবীকে জলদস্যু ভেবেছিলেন গিরোনি, লাতোররা৷ ভুল বুঝে আত্মরক্ষার্থে গুলি চালিয়ে বসেন৷

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

উল্লেখ্য, গত এপ্রিল মাসেই কেন্দ্র সরকার সুপ্রিম কোর্টকে জানিয়েছিল যে ভারতীয় মৎস্যজীবী খুনের ঘটনায় উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে। এক্ষেত্রে ইটালি সরকার ১০ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়ার কথা জানিয়েছে। মৃত দুই মৎস্যজীবীর পরিবার চার কোটি টাকা করে ক্ষতিপূরণ নেওয়ার ব্যাপারে রাজি হয়েছেন। ইতিমধ্যে ২ কোটি টাকার করে ক্ষতিপূরণ দিয়েছে ইটালি সরকার। পাশাপাশি নৌকার জখম মালিক ২ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ নেওয়ার ব্যাপারে রাজি হয়েছেন। ২০২০ সালের আগস্ট মাসে আদালতের শুনানিতে জানানো হয়েছিল যে, মৃতের পরিজনদের যদি উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ দেওয়া হয় তবে মামলা সংক্রান্ত বিষয়গুলি বন্ধ করে দেওয়া হবে।

[আরও পড়ুন: ৩ মাসে ৫০টি মডিউলার হাসপাতাল তৈরির পরিকল্পনা, করোনার তৃতীয় ঢেউ রুখতে প্রস্তুতি কেন্দ্রের]

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
Advertisement
Next