বোলিং নিয়ে দুশ্চিন্তায় ভারত, ইন্দোরে নিয়মরক্ষার ম্যাচে বিশ্রামে বিরাটের সঙ্গে রাহুলও

09:01 AM Oct 04, 2022 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: গুয়াহাটিতে সিরিজ জয় নিশ্চিত হয়ে গিয়েছে। মহানবমীর রাতে শুধু একটা কাজই বাকি। ইন্দোরের মাটিতে দক্ষিণ আফ্রিকাকে (South Africa) টি-টোয়েন্টি সিরিজে হোয়াইটওয়াশ করা। তবে টিম ইন্ডিয়ার টার্গেট যে আরও উঁচু তারে বাঁধা! তা হল অস্ট্রেলিয়ার (Australia) মাটিতে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। আর তার কথা মাথায় রেখেই ইন্দোরে নিয়মরক্ষার তৃতীয় ম্যাচে বিশ্রামে পাঠানো হল ভারতীয় দলের দুই স্তম্ভ বিরাট কোহলি (Virat Kohli) এবং কেএল রাহুলকে (KL Rahul)।

Advertisement

সোমবার সকালেই গুয়াহাটি থেকে মুম্বই রওনা দেন কোহলি। মুম্বই থেকে ৬ অক্টোবর বিশ্বকাপের জন্য রওনা দেবে ভারতীয় দল। সেখানেই দলের সঙ্গে যোগ দেবেন ‘তরতাজা’ বিরাট-রাহুল। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, বিশ্বকাপে নামার আগে মঙ্গলবারের ম্যাচই শেষ প্রতিযোগিতামূলক টি-টোয়েন্টি ম্যাচ হতে চলেছে ভারতীয় দলের জন্য। আর সেই ম্যাচে পরীক্ষা নিরীক্ষার পথেই হয়তো হাঁটতে দেখা যাবে টিম ম্যানেজমেন্টকে। বিরাটের জায়গায় সুযোগ মিলতে পারে শ্রেয়স আইয়ারের। রাহুলকেও বিশ্রাম পাঠানোয় অধিনায়ক রোহিত শর্মার সঙ্গে ওপেনিংয়ে জুটি বাঁধতে পারেন টপ-ফর্মে থাকা সূর্যকুমার যাদব কিংবা ঋষভ পন্থ। পাশাপাশি সুযোগ মিলতে পারে বাংলার অলরাউন্ডার শাহবাজ আহমেদেরও। উমেশ যাদব কিংবা জসপ্রীত বুমরা পরিবর্তে দলে আসা মহম্মদ সিরাজ প্রথম এগারোয় সুযোগ পান কিনা, সেটাও দেখার। 

[আরও পড়ুন: বিশ্বকাপ থেকে ছিটকেই গেলেন বুমরা, সরকারিভাবে জানিয়ে দিল বিসিসিআই]

 

গতবছর সংযুক্ত আরব আমিরশাহির মাটিতে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্যায় থেকে বিদায় নেওয়ার পিছনে অন্যতম কারণ ছিল দলের ব্যাটিং ব্যর্থতা। সেই ধাক্কা সামলে ক্রমশ ছন্দে ফিরেছে ভারতের হেভিওয়েট ব্যাটিং লাইন আপ। সবচেয়ে বড় প্রাপ্তি কোহলির ফর্মে ফিরে আসাটা। এশিয়া কাপ থেকে তিনটি হাফসেঞ্চুরি আর একটি শতরান এসেছে বিরাট-রাজার ব্যাট থেকে। স্ট্রাইক  রেট ১৪০-এর ঘরে। যা নিঃসন্দেহে বিরাটোচিত। পাশাপাশি চার নম্বরে সূর্যকুমারের ব্যাটিং-তেজও বিশ্বকাপের আগে ভারতের জন্য বড় স্বস্তি। ছন্দে রয়েছেন রোহিত-রাহুলও।

Advertising
Advertising

কেএল, সূর্যদের খেলায় নজর কাড়ছে আল্ট্রা-অ্যাগ্রেসিভ ব্যাটিং। অধিনায়ক রোহিতের গলায় টিমগেমের সুর। ‘‘গত ৮-১০ মাসে দেখেছি, অনেকে দলের জন্য নিজেকে উজাড় করে দিচ্ছে। যাদের অভিজ্ঞতা কম তারাও চেষ্টায় খামতি রাখছে না।’’ বক্তব্যে স্পষ্ট ইঙ্গিত, বিশ্বকাপের আগে গোটা দলকে একসুতোয় বাঁধতে চাইছেন হিটম্যান।

এই প্রাপ্তি-যোগের মধ্যে চিন্তার কাঁটা একটাই। তা হল, ভারতীয় দলের বোলিং, বিশেষ করে ডেথ ওভারে। অস্ট্রেলিয়া সিরিজে তো বটেই, প্রোটিয়াদের বিরুদ্ধেও সেই ভূত পিছু ছাড়ছে না। গুয়াহাটিতে তাই স্কোরবোর্ডে ২৩৭ রান তুললেও তা বোলারদের সৌজন্যে কখনই নিরাপদ দেখাচ্ছিল না। অধিনায়ক রোহিত অবশ্য অর্শদীপ, চাহারদের পাশেই দাঁড়াচ্ছেন। তাঁর কথায়, ‘‘শেষ পাঁচ-ছয়টা ম্যাচে আমরা ডেথ ওভারে ভাল বল করতে পারিনি ঠিকই। তবে চিন্তার কারণ নেই। আমরা বোলিংয়ের ক্ষেত্রে একটা নির্দিষ্ট পরিকল্পনা ধরে এগোনোর চেষ্টা করছি। আসলে ডেথ ওভারে বোলিং কিংবা ব্যাটিং খুব কঠিন কাজ। কারণ অধিকাংশ ম্যাচের ভাগ্য ডেথ ওভারেই ঠিক হয়ে যায়। এই মুহূর্তে বোলারদের পাশে দাঁড়িয়ে উৎসাহিত করা দরকার। উচিত হবে, একসঙ্গে মিলে নিজেদের দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করা।’’

মঙ্গলবার ইন্দোরে নিয়মরক্ষার ম্যাচে সেই কাঁটা উপড়ে ফেলাই চ্যালেঞ্জ টিম ইন্ডিয়ার।

আজ টিভিতে- ভারত বমাম দক্ষিণ আফ্রিকা
ইন্দোর, সন্ধে ৭.০০টা,স্টার স্পোর্টসে 

[আরও পড়ুন: জার্সিতে জামদানি! বিশ্বকাপের আগে চমক বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের]

Advertisement
Next