ভারতের ‘অঙ্গুলিহেলনে’ নির্বাচন, হাসিনা সরকারকে তোপ বিএনপির

04:52 PM Dec 06, 2023 |
Advertisement

সুকুমার সরকার, ঢাকা: ভোটমুখী বাংলাদেশে চড়ছে পারদ। ৭ জানুয়ারি হতে চলা সাধারণ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে শাসক-বিরোধী তরজা ক্রমেই জোরাল হচ্ছে। নির্বাচন বয়কট করেছে দেশের প্রধান বিরোধী দল বিএনপি। এই প্রেক্ষাপটে খালেদা জিয়ার দলের দাবি, ভারতের সমর্থন ও অঙ্গুলিহেলনেই ভোট করাচ্ছে হাসিনা সরকার। 

Advertisement

শেখ হাসিনা সরকারের পদত্যাগ ও তদারকি সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবি পূরণ হয়নি বিএনপির। তাই ২০১৪ ও ২০১৯ সালের মতো এবারও নির্বাচন বর্জন করেছে তারা। খালেদা জিয়ার দলের অভিযোগ, পশ্চিমা বিশ্বের চাপ উপেক্ষা করে ভারতের প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ সমর্থনের কারণেই শেষ পর্যন্ত আরেকটি বিরোধী দলহীন নির্বাচনের দিকে এগিয়ে যেতে পারছে আওয়ামি লিগ সরকার।

বিএনপির কথায়, “বাংলাদেশের জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে ভারত। পশ্চিমা বিশ্বের চাপ ও বাংলাদেশের বিরোধী দলগুলোর দাবিকে উপেক্ষা করে দেশটি যে অবস্থান নিয়েছে তা ভুল।” বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আবদুল মইন খান বলেছেন, বাংলাদেশে গণতন্ত্রের পুনরুজ্জীবন স্পষ্টতই বাধাগ্রস্ত করছে ‘বন্ধু’ রাষ্ট্র ভারত। ভারতের কট্টর বিরোধী হিসাবে পরিচিত বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভি বলছেন, ভারতের একতরফা সমর্থনের কারণে আরেকটি ভোটারবিহীন নির্বাচনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে সরকার, যা তাদের কাছে অপ্রত্যাশিত ছিল।

[আরও পড়ুন: রোহিঙ্গা শিবিরে জেহাদিদের মধ্যে ভয়াবহ গুলির লড়াই, নিহত ৩]

এদিকে, দ্বাদশ জাতীয় নির্বাচনে দেশের দক্ষিণ জনপদ জেলা গোপালগঞ্জ-৩ (কোটালীপাড়া-টুঙ্গিপাড়া) আসনে আওয়ামি লিগ সভাপতি তথা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিপক্ষে লড়বেন চারজন প্রার্থী। তাঁরা হলেন- ন্যাশনাল পিপলস পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য শেখ আবুল কালাম, জাকের পার্টির গোপালঞ্জ জেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুব মোল্লা, বাংলাদেশ সুপ্রিম পার্টির গোপালগঞ্জ জেলা শাখার সদস্য এম নিজামউদ্দিন লস্কর এবং গণফ্রন্টের প্রেসিডিয়াম সদস্য সৈয়দা লিমা রহমান। গত সোমবার গোপালগঞ্জ-৩ আসনের রিটার্নিং অফিসার ও জেলাশাসক কাজী মাহবুবুল আলম আওয়ামি লিগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা-সহ পাঁচ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করেন।

বরাবর আওয়ামি লিগের দুর্গ হিসাবে পরিচিত এই আসনে দলের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এর আগে সপ্তমবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। এবার তিনি অষ্টম বারের মতো সংসদ সদস্য হওয়ার জন্য নির্বাচনে লড়ছেন। আওয়ামি লিগের স্থানীয় নেতৃবৃন্দ মনে করছেন, অন্যান্যবারের মতো এবারও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা (Seikh Hasina) এই আসন থেকে বিপুল ভোটে জয়ী হয়ে ফের দেশের প্রধানমন্ত্রী হবেন। তাঁরা মনে করছেন, যে চারজন প্রার্থী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিপক্ষে নির্বাচনে লড়ছেন তাঁদের জামানত বাজেয়াপ্ত হবে।

[আরও পড়ুন: সমাবেশের অনুমতি দিল না নির্বাচন কমিশন, বিকল্প কর্মসূচি আওয়ামি লিগের

Advertisement
Next