Advertisement

Post Poll Violence: রাজ্যের তৈরি SIT-কে তদন্তে সাহায্যের জন্য আরও ১০ অফিসার নিয়োগ

09:07 AM Sep 03, 2021 |
Advertisement
Advertisement

স্টাফ রিপোর্টার: রাজ্যের নির্বাচন পরবর্তী অপেক্ষাকৃত কম গুরুত্বপূর্ণ হিংসার (Post poll violence) অভিযোগের তদন্ত করতে কলকাতা হাই কোর্টের নির্দেশে তৈরি হয়েছিল বিশেষ তদন্তকারী দল বা সিট (SIT)। আইপিএস সৌমেন মিত্র, সুমনবালা সাহু এবং রণবীর কুমারের নেতৃত্বাধীন ওই বিশেষ তদন্তকারী দলকে সহযোগিতার জন্য পাঁচটি জোনে ভাগ করে মোট ১০ জন আইপিএস অফিসারকে নিয়োগের কথা জানানো হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাজ্যের তরফে প্রকাশিত এক বিজ্ঞপ্তিতে নতুন কার্যপদ্ধতির কথা জানানো হয়।

Advertisement

নির্দেশিকা অনুযায়ী, তদন্তের স্বার্থে নর্থ জোন, সাউথ জোন, ওয়েস্ট জোন ছাড়াও সিটের সদর দপ্তরে থাকবেন দু’জন করে। কলকাতা পুলিশের (Kolkata Police) দু’জন আধিকারিককেও দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। সিটের হেড কোয়ার্টারের দায়িত্বে থাকছেন রেলের ডিআইজি সোমা দাস মিত্র, ডিসি শুভঙ্কর ভট্টাচার্য। কলকাতা পুলিশের ক্ষেত্রে তদন্তে দায়িত্বে থাকবেন আইপিএস তন্ময় রায়চৌধুরী ও আইপিএস নীলাঞ্জন বিশ্বাস। এছাড়াও নর্থ জোন, উত্তরবঙ্গের দায়িত্বে আইজিপি ডিপি সিং ও মালদহ রেঞ্জের ডিআইজি প্রবীন কুমার ত্রিপাঠি। ওয়েস্ট জোনের দায়িত্বে থাকছেন পশ্চিমাঞ্চলের এডিজি সঞ্জয় সিং, বর্ধমান রেঞ্জের আইজিপি বি এল মীনা। সাউথ জোনে তদন্তের ভার থাকবে দক্ষিণবঙ্গের এডিজি সিদ্ধিনাথ গুপ্তা ও বারাসত রেঞ্জের ডিআইজি প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাতে।

[আরও পডুন: Visva Bharati: লাগাতার ছাত্র বিক্ষোভে অসুস্থ VC, চিকিৎসককে ঢুকতেই দিল না আন্দোলনকারীরা]

নির্বাচন-পরবর্তী হিংসার ঘটনায় গত ১৯ আগস্ট খুন, ধর্ষণ ও ধর্ষণের চেষ্টার মতো গুরুতর অভিযোগের তদন্তের জন্য সিবিআইকে তদন্তভার দেয় কলকাতা হাইকোর্ট। পাশাপাশি, অপেক্ষাকৃত কম গুরুত্বপূর্ণ হিংসার মামলার তদন্তের জন্য তিনজন আইপিএস অফিসারের নাম ঠিক করে দেয় কলকাতা হাই কোর্ট (Calcutta HC)। এদিন এই তিনজনের নেতৃত্বে একটি বিশেষ তদন্তকারী দল গঠনের এই বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে রাজ্য।

[আরও পডুন: তুলির টানে চায়ের কাপে অনবদ্য ছবি, India Book of Records’এ নাম তুললেন বালুরঘাটের সৃষ্টি]

অন্যদিকে, ভোট পরবর্তী সময়ে বীরভূমের (Birbhum) নলহাটিতে ব্যবসায়ী মনোজ জয়সওয়ালের দেহ উদ্ধারের ঘটনায় এবার চার্জশিট পেশ করল সিবিআই (CBI)। ভোট পরবর্তী হিংসা মামলায় এটাই রাজ্যের প্রথম চার্জশিট। তাতে মূল অভিযুক্ত হিসেবে ৫ জনের নাম রয়েছে বলে সিবিআই সূত্রে খবর। শুক্রবার সকালে জগদ্দলে এক বিজেপি কর্মীর মায়ের খুনের ঘটনায় অভিযুক্ত হিসেবে একজনকে গ্রেপ্তার করেছে সিবিআই। আজ ফের হাই কোর্টের পাঁচ বিচারপতির বৃহত্তর বেঞ্চে এই মামলার শুনানি।

Advertisement
Next