Advertisement

বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ধর্ষণ ও প্রতারণার অভিযোগে গ্রেপ্তার কঙ্গনার দেহরক্ষী

01:08 PM May 31, 2021 |

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ‘ধর্ষণ’ ও প্রতারণার অভিযোগে গ্রেপ্তার হলেন কঙ্গনা রানাউতের (Kangana Ranaut) ব্যক্তিগত দেহরক্ষী। কর্ণাটকের এক গ্রামের বাসিন্দা অভিযুক্ত কুমার হেগড়েকে (Kumar Hedge) গ্রেপ্তার করা হয়েছে তাঁর বাড়ি থেকেই। তিনি মুম্বই থেকে পালিয়ে নিজের বাড়িতে চলে গিয়েছিলেন। খবর পেয়ে সেখানে পৌঁছে যায় মুম্বই পুলিশের একটি দল। সেখানেই আটক করা হয় তাঁকে।

Advertisement

ঠিক কী অভিযোগ হেগড়ের বিরুদ্ধে? নির্যাতিতার বয়ান অনুযায়ী, প্রায় আট বছর ধরে কুমার হেগড়েকে (Kumar Hedge) চেনেন তিনি। গত বছর জুন মাসে কুমার ওই মহিলাকে বিয়ের প্রস্তাব দেন। অভিযোগ, বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে একাধিকবার তাঁর সঙ্গে যৌন সম্পর্কও তৈরি হয় কুমারের। গত ২৭ এপ্রিল নির্যাতিতার কাছ থেকে পঞ্চাশ হাজার টাকাও নেন তিনি। তারপর আর ওই মহিলার সঙ্গে কোনও যোগাযোগ রাখেননি কুমার।

[আরও পড়ুন: ভোটে হারের জের! শ্রাবন্তী-সহ বিজেপির তারকা প্রার্থীদের নিরাপত্তা প্রত্যাহার করল কেন্দ্র]

ইতিমধ্যে অন্য এক বন্ধুর মাধ্যমে পেশায় বিউটিশিয়ান ওই মহিলা জানতে পারেন কুমার তাঁর সঙ্গে সম্পর্ক রাখতে চান না। তার ঠিক বেশ কয়েকদিন পর এক মহিলা নিজেকে কুমারের মা পরিচয় দিয়ে ওই মহিলাকে ফোন করেন। কুমারের অন্যত্র বিয়ে ঠিক হয়েছে বলেও জানান। তাই কুমারের সঙ্গে সম্পর্ক রাখতেও বারণ করে দেন ফোনের অপরপ্রান্তের ওই মহিলা। এরপরই লিভ ইন পার্টনারের বিরুদ্ধে পুলিশে অভিযোগ জানানোর সিদ্ধান্ত নেন ওই মহিলা।

গত ১৯ মে কুমারের বিরুদ্ধে ডিএন নগর থানায় এফআইআর দায়ের করে মুম্বই পুলিশ (Mumbai Police)। ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৬ এবং ৩৭৭ ধারায় মামলা রুজু করেছে। প্রতারণার অভিযোগে ৪২০ ধারাতেও ধৃতের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের হয়েছে। ব্যক্তিগত দেহরক্ষী হওয়ায় একাধিকবার কুমার হেগড়ের সঙ্গে দেখা গিয়েছে কঙ্গনা রানাউতকে। এমনকী কুমারের জন্মদিন উদযাপন করতেও দেখা গিয়েছে অভিনেত্রীকে।

[আরও পড়ুন: থ্যালাসেমিয়ায় আক্রান্ত রোগীর জন্য রক্তদান মীরের, সাহায্যের আহ্বান জানালেন অন্যদেরও]

Advertisement
Next