আচমকা রশ্মিকা মান্দানাকে বয়কটের ডাক! বিপাকে ‘পুষ্পা ২’ছবির নির্মাতারা

02:07 PM Nov 26, 2022 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দেখুন কী কাণ্ড! এক সাক্ষাৎকারের চোটে বড়সড় বিপাকে পড়ে গেলেন দক্ষিণী তারকা রশ্মিকা মান্দানা। গুঞ্জনে শোনা গেল কন্নড় ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি নাকি একেবারে নিষিদ্ধ করতে চলেছে রশ্মিকাকে! ইন্ডাস্ট্রি বহু পরিচালক, প্রযোজক নাকি কাজ করতে চাইছেন না। এমনকী, রশ্মিকার অনুরাগীরাও ক্ষেপে গিয়েছেন অভিনেত্রীর উপর।

Advertisement

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782001027-0'); });

তা ঠিক কী ঘটেছে?

window.unibots = window.unibots || { cmd: [] }; unibots.cmd.push(()=>{ unibotsPlayer('sangbadpratidin'); });

সম্প্রতি একটি সাক্ষাৎকারে রশ্মিকা নিজের কেরিয়ার শুরুর দিনগুলোর কথা বলেছিলেন। তা বলতে গিয়েই রশ্মিকা এক প্রোডাকশন হাউজের নাম নিতে ভুলে যান। যে প্রোডাকশন হাউজেই হাতেখড়ি হয়েছিল রশ্মিকার। আর তাতেই ক্ষেপে গিয়েছেন রশ্মিকার অনুরাগীরা। সবার একটাই কথা, রশ্মিকা অকৃতজ্ঞ। আর এই সাক্ষাৎকারের কারণেই রশ্মিকাকে বয়কট করার ডাক উঠেছে দক্ষিণী ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির মধ্যে। তবে আপাতত, এই বিষয় নিয়ে মুখ খুলতে চাননি রশ্মিকা।

Advertising
Advertising

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782050143-0'); });

প্রসঙ্গত, ‘পুষ্পা’র ‘শ্রীভল্লি’ তিনি। পেয়েছেন ‘ন্যাশনাল ক্রাশ’-এর তকমা। এরপরও মনখারাপ রশ্মিকা মান্দানার (Rashmika Mandanna)। নিন্দুকদের লাগাতার ব্যঙ্গ, বিদ্রুপ ও কটাক্ষে অত্যন্ত আহত তিনি। খোলা চিঠি লিখে নিজের মনের অবস্থা অনুরাগীদের জানালেন অভিনেত্রী।

[আরও পড়ুন: এক ছবিতেই ফ্যান! জন্মের ১ মাসের মধ্যেই বার্সেলোনার বিশেষ স্বীকৃতি পেল রণলিয়ার মেয়ে ]

২০১৬ সালে কন্নড় সিনেমা ‘কিরিক পার্টি’র মাধ্যমে অভিনয় জগতে রশ্মিকার সফর শুরু হয়। তারপর তামিল, তেলুগু ভাষাতেও চুটিয়ে অভিনয় করেছেন। সারা ভারতে রশ্মিকা তুমুল জনপ্রিয়তা পান ‘পুষ্পা: দ্য রাইজ’ সিনেমায় শ্রীভল্লির ভূমিকায় অভিনয় করে। অনুরাগীরা তাঁকে ‘ন্যাশনাল ক্রাশ’ হিসেবে অভিহিত করেন। তবে প্রশংসার পাশাপাশি অভিনেত্রীকে বহুবার নিন্দার মুখেও পড়তে হয়েছে। নানা কুরুচিকর মন্তব্যও করা হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। মনে করা হচ্ছে, প্রথম বলিউড সিনেমা ‘গুডবাই’ ব্যর্থ হওয়ার পর থেকেই সমালোচনা মুখে পড়তে হচ্ছে রশ্মিকাকে। তার জেরেই এই চিঠি তিনি লিখেছেন।

অবশ্য রশ্মিকার বক্তব্য, নিন্দার এই পালা এক সপ্তাহ, মাস কিংবা এক বছরের বিষয় নয়, তার আগে থেকেই চলছে। অনেকেই রশ্মিকাকে এমন কটাক্ষ এড়িয়ে যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। কিন্তু অভিনেত্রীর মনে হয়েছে জবাব তাঁর দেওয়া প্রয়োজন। তাই খোলা চিঠি লিখেছেন।নিজের চিঠিতে রশ্মিকা জানিয়েছেন, কেরিয়ারের শুরু থেকেই তাঁকে নানা নেতিবাচক কথা শুনতে হয়েছে। পাঞ্চিং ব্যাগের মতো আঘাত করা হয়েছে তাঁকে। এই বিষয়গুলিতে তিনি ভীষণভাবে আহত হয়েছেন।

রশ্মিকা জানেন, এ পৃথিবীতে সকলের ভালবাসা পাওয়া সম্ভব নয়। তবে মনখারাপ তো হয়ই! অভিনেত্রী লেখেন, “নেটদুনিয়ায় আমায় যখন হাসির খোরাক বা নিন্দার পাত্র করা হয়, যা বলিনি তা নিয়ে কটাক্ষ করা হয়, আমার মন ভেঙে চুরমার হয়ে যায়। সত্যি কথা বলতে কি এগুলো চূড়ান্ত হতাশাজনক।” সমালোচনাকে রশ্মিকা সবসময় স্বাগত জানান। কারণ, তা কোনও মানুষকে নিজের ভুল শুধরে এগিয়ে যেতে সাহায্য করে। কিন্তু এই ঘৃণা আর নিন্দার প্রবনতা আমাদের কোথায় নিয়ে যাচ্ছে? প্রশ্ন করেন অভিনেত্রী। এতকিছুর মধ্যেও নিজের কাজ চালিয়ে যাবেন বলে জানান তিনি। অনুরাগীদের প্রতি ভালবাসাও ব্যক্ত করেছেন।

[আরও পড়ুন: বলিউড অভিনেতা বিক্রম গোখলের শারীরিক অবস্থার উন্নতি, তবে কাটেনি সংকট ]

Advertisement
Next