Advertisement

রাজস্থানের চম্বল নদীতে নৌকাডুবি, শিশু ও মহিলা-সহ কমপক্ষে ১৪ জনের মৃত্যুর আশঙ্কা

01:56 PM Sep 16, 2020 |

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রাজস্থানের চম্বল নদীতে নৌকাডুবির জেরে শিশু ও মহিলা-সহ কমপক্ষে ১৪ জনের মৃত্যুর আশঙ্কা করা হচ্ছে। বুধবার সকালে দুর্ঘটনাটি ঘটেছে কোটা জেলার খাটোলি এলাকার কাছে। খবর পেয়েই দুর্ঘটনাস্থলে গিয়ে উদ্ধার কাজ শুরু করেছেন রাজ্য বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীর সদস্যরা। স্থানীয় গ্রামবাসীদের পাশাপাশি তাঁদের সাহায্য করছে স্থানীয় প্রশাসন ও পুলিশ।

Advertisement

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, করোনা সংক্রমণের কারণে দীর্ঘদিন ধরে কোটা জেলার বিখ্যাত মন্দির কমলেশ্বর ধাম (Kamleshwar Dham) -এর দরজা বন্ধ ছিল। সম্প্রতি সরকারি স্বাস্থ্যবিধি মেনে তা খোলার সিদ্ধান্ত নেয় মন্দির কর্তৃপক্ষ। বুধবার সকালে কোটা জেলার গোঠাডা কালা গ্রামের প্রায় ৬০ জন বাসিন্দা একটি নৌকা করে সেই মন্দিরে পুজো দিতে যাচ্ছিলেন। আচমকা খাটোলি এলাকার কাছে এসে নৌকাটি উলটে যায়। কিছু মানুষ সাঁতার কেটে নদীর পাড়ে উঠতে পারলেও বাকিরা জলে তলিয়ে যেতে থাকেন। বিষয়টি দেখতে পেয়ে তাঁদের বাঁচানোর চেষ্টা করার পাশাপাশি প্রশাসনকে খবর দেন স্থানীয় বাসিন্দারা। পরে পুলিশের পাশাপাশি রাজ্য বিপর্যয় মোকাবিলা দলের সদস্যরা এসে উদ্ধার কাজে হাত লাগান। এখনও পর্যন্ত ওই নৌকায় থাকা বেশিরভাগ মানুষকে উদ্ধার করার পাশাপাশি ৪ জনের মৃতদেহ পাওয়া গিয়েছে। নিখোঁজ রয়েছে আরও ১০ জনের বেশি। তাদের মধ্যে শিশু এবং মহিলারাও রয়েছে।

[আরও পড়ুন: করোনা কালে ‘খেয়ালি পোলাও’ রান্না করেছে মোদি সরকার, কেন্দ্রকে ফের খোঁচা রাহুলের ]

এপ্রসঙ্গে কোটার জেলা কালেক্টার উজ্জ্বল সিং রাঠোর জানা, বুধবার সকালে ওই নৌকাটি করে গোঠডা কালা গ্রামের কিছু বাসিন্দা চম্বল (Chambal) নদী দিয়ে কমলেশ্বর ধাম দর্শন করতে যাচ্ছিলেন। আচমকা নৌকা উলটে মর্মান্তিক এই দুর্ঘটনা ঘটে যায়। খবর পেয়ে স্থানীয় প্রশাসন ও গ্রামবাসীরা উদ্ধার কাজ শুরু করে। পরে দুর্ঘটনাস্থলে গিয়ে পৌঁছয় রাজ্য বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীর সদস্যরা। এখনও পর্যন্ত নদী থেকে চার জনের মৃতদেহ উদ্ধার হয়েছে। পাশাপাশি নিখোঁজ যাত্রীদের খোঁজে তল্লাশি চলছে।

[আরও পড়ুন: গত ৬ মাসে চিন সীমান্ত দিয়ে একজনও অনুপ্রবেশ করেনি, সংসদে সাফ জানাল কেন্দ্র]

The post রাজস্থানের চম্বল নদীতে নৌকাডুবি, শিশু ও মহিলা-সহ কমপক্ষে ১৪ জনের মৃত্যুর আশঙ্কা appeared first on Sangbad Pratidin.

Advertisement
Next