‘কামাখ্যা মন্দিরের জমি দিয়েছিলেন ঔরঙ্গজেব’, অসমের বিধায়কের মন্তব্যে বিতর্ক

08:46 PM Dec 07, 2021 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ভারতে হিন্দুদের অন্যতম তীর্থ গুয়াহাটির কামাখ্যা মন্দিরের (Kamakhya Temple in Guwahati) জমি দান করেছিলেন মুঘল সম্রাট ঔরঙ্গজেব (Aurangzeb)। এমনই দাবি করলেন অল ইন্ডিয়া ইউনাইটেড ডেমেক্র্যাটিক ফ্রন্টের (All India United Democratic Front) জনৈক বিধায়ক অমিনুল ইসলাম। একটি ভিডিওতে একাধিক বিতর্কিত মন্তব্য করেছেন AIUDF বিধায়ক। উল্লেখ্য, এর আগেও বিতর্কিত মন্তব্যের গ্রেপ্তার হয়েছিলেন অসমের এই বিধায়ক।

Advertisement

AIUDF-এর ধিং বিধানসভা কেন্দ্রের বিধায়ক আমিনুল ইসলাম।বিতর্কিত ভিডিওতে অমিনুল দাবি করেন, “ঔরঙ্গজেব কামাখ্যা মন্দির ছাড়াও ভারতের বহু হিন্দু মন্দির নির্মাণে জমি দান করেছিলেন, এই বিষয়ে তথ্যও রয়েছে।” তবে অমিনুল এও দাবি করেন, “সেকালে হিন্দু রাজারাও মসজিদ নির্মাণের জন্যও জমি দান করতেন, কারণ তখন জাতপাত নিয়ে এত বিভেদ ছিল না।”

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1630720090-3');});

[আরও পড়ুন: ‘সন্ত্রাসবাদীদের জেলমুক্ত করতে চায় লাল টুপি’, গোরক্ষপুরে সমাজবাদী পার্টিকে তোপ মোদির]

এদিকে আমিনুলের এই মন্তব্যকে কড়া ভাষায় খণ্ডন করেছেন অসমের মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত বিশ্ব শর্মা (Assam Chief Minister Himanta Biswa Sarma)। তাঁর মতে আমিনুল “ভারতীয় সংস্কৃতিকে অসম্মান করেছেন।” হেমন্ত বলেন, “আমার সরকার এই ধরনের মন্তব্যকে সহ্য করবে না। কেউ কামাখ্যাকে ছিনিয়ে নিতে পারবে না । শঙ্করদেব বা প্রফেট মহম্মদও নয়।”

Advertising
Advertising

প্রসঙ্গত, এর আগে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ে সাম্প্রদায়িক মন্তব্য করায় গ্রেপ্তার হয়েছিলেন এই AIUDF বিধায়ক। তাঁর বক্তব্য ছিল, করোনায় বিশেষ সম্প্রদায়কে টার্গেট করা হচ্ছে এবং যাঁরা কোয়ারেনটাইনে আছেন, তাদের হত্যা করা হতে পারে।

[আরও পড়ুন: অধিকাংশ দাবি মানতে রাজি কেন্দ্র! বুধবারই বিক্ষোভ প্রত্যাহার করতে পারেন কৃষকরা]

এদিন কামাখ্যা মন্দির নিয়ে মন্তব্য করে নতুন বিতর্ক উসকে দিলেন অমিনুল ইসলাম। তিনি জানিয়েছেন, কামাখ্যা মন্দিরের জন্য ঔরঙ্গজেবের জমি দানের নথি ব্রিটিশ মিউজিয়ামে (British Museum) রক্ষিত আছে। ইতিমধ্যে আমিনুলের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছে কুটুম্ব সুরক্ষা মিশন (Kutumba Surakshya Mission) নামের একটি হিন্দু সংগঠন।

Advertisement
Next