রাজ্যসভা নির্বাচন: একাধিক রাজ্যে ক্রস ভোটিং! রাজস্থানে চাপে বিজেপি, হরিয়ানায় চিন্তা কংগ্রেসের

04:31 PM Jun 10, 2022 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রাজ্যসভা নির্বাচনে (Rajya Sabha Election) শেষবেলায় চমক দেখানোর পথে কংগ্রেস! একাধিক রাজ্যে বিরোধী দলের বিধায়করা কংগ্রেসের পক্ষে ক্রস ভোট করেছেন। যার ফলে রাজস্থানে চাপে পড়ে গিয়েছে বিজেপি। কর্ণাটকে আবার কংগ্রেসের পক্ষে ভোট দিয়েছেন দুই জেডিএস বিধায়ক। তবে কংগ্রেস সবচেয়ে বেশি চিন্তায় থাকবে হরিয়ানা নিয়ে।

Advertisement

রাজস্থানে ৪ আসনের জন্য ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। সেরাজ্যের বিধানসভার অঙ্ক অনুযায়ী দু’টি আসনে কংগ্রেসের জয় নিশ্চিত। আর বিজেপির জয় নিশ্চিত একটি আসনে। লড়াই ছিল মূলত চতুর্থ আসনের জন্য। কংগ্রেসের (Congress) তৃতীয় প্রার্থী এবং নির্দল প্রার্থী সুভাষ চন্দ্রের মধ্যে। রাজস্থান বিধানসভার অঙ্ক অনুযায়ী, এই পর্বে একজন প্রার্থীকে জেতাতে ৪১ জন বিধায়কের সমর্থন প্রয়োজন। রাজ্যে কংগ্রেসের বিধায়ক সংখ্যা ১০৮। সেই সঙ্গে ১৩ জন নির্দল, দু’জন সিপিএম এবং একজন আরএলডি বিধায়ক কংগ্রেসকে সমর্থন করছে বলে দাবি হাত শিবিরের। শেষপর্যন্ত ভারতীয় ট্রাইবাল পার্টির দুই বিধায়কও তাঁদের সমর্থন করছে বলে দাবি কংগ্রেসের। যদিও নির্দলরা কাকে ভোট দিয়েছেন স্পষ্ট নয়। এদিকে বিজেপির চাপ আরও বেড়ে গিয়েছে তাঁদেরই দলের দুই বিধায়ক ক্রস ভোট করায়। ক্রস ভোটের ব্যাপারটি প্রকাশ্যে আসতেই ওই দুটি ভোট বাতিলের দাবি জানিয়েছে বিজেপি (BJP)। হার একপ্রকার স্বীকার করে নিয়ে দলের ওই বিধায়কদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন রাজস্থানের বিজেপি সভাপতি।

[আরও পড়ুন: হজরত মহম্মদ বিতর্কে রাষ্ট্রসংঘেও ধাক্কা খাবে ভারত! প্রধানমন্ত্রীর নীরবতা নিয়ে প্রশ্ন প্রাক্তন উপরাষ্ট্রপতির]

রাজস্থানে বাজিমাত করলেও হরিয়ানা নিয়ে মহা দুশ্চিন্তায় কংগ্রেস। সেরাজ্যের দুটি আসনে ভোট হচ্ছে। কংগ্রেস এবং বিজেপির একটি একটি করে আসন জেতার কথা। কিন্তু বিজেপি আবার নির্দল প্রার্থী কার্তিকেয় শর্মাকে সমর্থন করছে। হরিয়ানায় জয়ের জন্য ৩০জন বিধায়ক দরকার। বিজেপির বিধায়ক সংখ্যা ৪০। আর কংগ্রেসের বিধায়ক সংখ্যা ৩১। সেক্ষেত্রে বিজেপির প্রথম প্রার্থীর জয় নিশ্চিত। দ্বিতীয় আসনটিতে লড়াই কংগ্রেসের অজয় মাকেন এবং বিজেপি সমর্থিত কার্তিকেয় শর্মার মধ্যে। সব বিধায়ক কংগ্রেসকে ভোট দিলে মাকেনের জয় নিশ্চিত। কিন্তু শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত অন্তত দু’জন কংগ্রেস বিধায়ক ক্রস ভোট করেছেন। পদ্ধতিগত ত্রুটির অভিযোগ তুলে কংগ্রেসের আরও দুই বিধায়কের ভোট বাতিলের দাবি জানিয়েছে বিজেপি। নির্বাচন কমিশন (Election Commission) যা খতিয়ে দেখার আশ্বাস দিয়েছে। আবার নির্দল প্রার্থী বিজেপির ৯, জেজেপির ১০ এবং ৬ জন নির্দলের সমর্থন পেয়েছেন। হরিয়ানা লোকহীত পার্টির এক বিধায়কও নির্দল প্রার্থীকেই সমর্থন করছেন। সব মিলিয়ে তাঁরও ২৮ ভোট পাওয়ার কথা। শেষপর্যন্ত যদি কংগ্রেসের দুই বিধায়কের ভোট বাতিল হয়ে যায়, তাহলে মাকেনের (Ajay Maken) জয় নিয়ে রীতিমতো সংশয় তৈরি হয়ে যাবে।

Advertising
Advertising

[আরও পড়ুন: বিনিয়োগকারীদের ধাক্কা, রেকর্ড পতন এলআইসির শেয়ারে]

কর্ণাটকেও ক্রসভোটিং হয়েছে। সেখানে আবার কংগ্রেসকে ভোট দিয়েছেন দুই জেডিএস বিধায়ক। ফলে কর্ণাটকের চতুর্থ আসনটির লড়াইও জমে উঠেছে। দুই জেডিএস (JDS) বিধায়ক ক্রস ভোট করায় তাঁরা এখন কার্যত লড়াইয়ের বাইরে। লড়াইয়ে রয়েছে কংগ্রেসের দ্বিতীয় প্রার্থী এবং বিজেপির তৃতীয় প্রার্থী। কংগ্রেসের এক এবং বিজেপির দুই আসন জয় নিশ্চিত। হিসাব বলছে, কংগ্রেস এবং জেডিএসের ক্রস ভোটিংয়ের জেরে কর্ণাটকের চতুর্থ আসনে অ্যাডভান্টেজ পেয়ে যাচ্ছে বিজেপি। মহারাষ্ট্রে অবশ্য এখনও কোনও ক্রস ভোটিংয়ের খবর পাওয়া যায়নি। তবে তাৎপর্যপূর্ণভাবে এই প্রথমবার শিব সেনা জোটকে সমর্থন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে আসাদুদ্দিন ওয়েইসির এআইএমআইএম। সেরাজ্যের ৬ আসনের মধ্যে শাসক জোটের ৩ এবং বিজেপির দুই প্রার্থীর জয় নিশ্চিত। এআইএমআইএম (AIMIM) এবং সিপিএমের সমর্থন পাওয়ায় ষষ্ঠ আসনটিতেও এগিয়ে শিব সেনা জোটই।  

Advertisement
Next