Advertisement

ধোপে টিকল না বিরোধীদের আপত্তি, লোকসভায় পাশ ভোটার-আধার সংযুক্তির বিল

05:00 PM Dec 20, 2021 |

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বিরোধীদের হাজার আপত্তি ধোপে টিকল না। নির্বাচনী সংস্কারে বড় পদক্ষেপ নিয়ে ফেলল মোদি সরকার। লোকসভায় ধ্বনি ভোটে পাশ হয়ে গেল নির্বাচনী আইন (সংশোধনী) বিল, ২০২১ ( Election Laws (Amendment) Bill, 2021)। এর ফলে এবার থেকে ভোটার পরিচয়পত্রের (Voter Card) সঙ্গে আধার কার্ডের (Adhaar Card) সংযুক্তিকরণ আইনত হয়ে গেল। 

Advertisement

সোমবার কেন্দ্রীয় আইন মন্ত্রী কিরেন রিজেজু (Kiren Rijiju) নির্বাচনী আইন (সংশোধনী) বিল, ২০২১ পেশ করেন লোকসভায়। প্রথম থেকেই বিলের বিরোধীতা করে আসছে বিরোধী দলগুলি। এদিনও কংগ্রেস (Congress) , এআইএমআইএম (AIMIM), বিএসপি (BSP)-সহ বেশ কয়েকটি দল এই ভোটার ও আধার সংযুক্তির বিলের বিষয়ে আপত্তি তোলে। বিরোধীদের বক্তব্য, এর ফলে নাগরিকের অধিকার খর্ব হবে, কারণ ব্যক্তির গোপনীয়তাও হস্তক্ষেপ করা হবে নয়া বিলের সুযোগ নিয়ে। বিলটিকে ফিরিয়ে নিতে অনুরোধ করেছিল বিরোধী দলের নেতারা। যদিও এইসব কথায় কখনই কান দেয়নি কেন্দ্র। 

[আরও পড়ুন: ‘প্রকাশ্যে ফাঁসিতে ঝোলানো হোক’, তপ্ত পাঞ্জাবে ‘ধর্মীয় অবমাননা’ নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য সিধুর]

বরং আইন মন্ত্রী কিরেন রিজেজু সোমবার পালটা যুক্তি দেন। তিনি বলেন, ভুয়ো ভোটার চিহ্নিত করতে ও নির্বাচনকে স্বচ্ছ করতেই এই আইনি সংশোধন কাজে আসবে। যদিও রিজেজুর কথা শুনতে নারাজ ছিল বিরোধীরাও। এদিন নির্বাচনী আইন (সংশোধনী) বিলটিকে সংসদের সিলেক্ট কমিটিতে পাঠানোর দাবিতে সরব হন কংগ্রেস সাংসদ অধীর চৌধুরী (Ahdir Chowdhury)।

Advertising
Advertising

[আরও পড়ুন: দলাই লামার সঙ্গে সাক্ষাৎ মোহন ভাগবতের, তিব্বতিদের পাশে থাকার বার্তা RSS প্রধানের]

এদিকে এদিন নির্বাচনী আইন (সংশোধনী) বিল, ২০২১ পেশের সময় কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অজয় মিশ্রের (Ajay Mishra) পদত্যাগের দাবিতেও সরব হলেন তৃণমূল (TMC) এবং কংগ্রেসের সাংসদরা। লখিমপুর-কাণ্ডে (Lakhimpur Inicident) মন্ত্রীর ছেলে আশিস মিশ্র (Ashish Mishra) অভিযুক্ত হয়েছেন। আপাতত জেলবন্দি রয়েছেন তিনি। একইভাবে শ্রীলঙ্কা নৌসেনা কয়েকজন ভারতীয় মৎস্যজীবীকে আটক করেছে। তাঁদের মুক্তির দাবিতেও সংসদে সরব হতে দেখা গেল ডিএমকে (DMK) ও কংগ্রেসকে। সব মিলিয়ে বিরোধী হল্লায় দফায় দফায় মুলতুবি হয়েছে সংসদের দুইকক্ষ। বিজেপি (BJP) সাংসদদের অভিযোগ, সংসদ অচল রাখতে উদ্দেশ্যপ্রণোদিত হই-হট্টগোল করছে বিরোধীরা।

Advertisement
Next