Advertisement

১৫ দিনে ৯ বার বাড়ল পেট্রল-ডিজেলের দাম, নয়া রেকর্ড কলকাতায়

11:38 AM May 16, 2021 |
Advertisement
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দেশ কাবু করোনার (Coronavirus) দ্বিতীয় ঢেউয়ে। অধিকাংশ শহরে লকডাউন। অনেকের কমেছে বেতন। কাজ হারিয়ে হাড়ির হাল বহু সংসারে। কিন্তু এসবের মধ্যেও লাগাতার বেড়ে চলেছে জ্বালানির দাম। রবিবার ফের একধাক্কায় বেশ খানিকটা বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে জ্বালানির দাম। এই নিয়ে চলতি মাসে ৯ বার। ইতিমধ্যেই মধ্যপ্রদেশ, মহারাষ্ট্র এবং রাজস্থানের বেশ কয়েকটি শহরে পেট্রল সেঞ্চুরি পেরিয়েছে। অন্যান্য বেশ কয়েকটি শহরও সেঞ্চুরির দিকে এগোচ্ছে। লাগাতার বৃদ্ধির জেরে কলকাতাতেও নয়া রেকর্ড গড়েছে পেট্রল-ডিজেলের মূল্য।

Advertisement

রাষ্ট্রায়ত্ত তেল সংস্থাগুলির মূল্য সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি অনুসারে, রবিবার সকালে কলকাতায় লিটার প্রতি ২৪ পয়সা বেড়েছে পেট্রলের (Petrol) দাম। ডিজেলের দাম বেড়েছে লিটারপ্রতি ২৭ পয়সা। এই মুহূর্তে কলকাতায় জ্বালানির দাম সর্বকালের সর্বোচ্চ। রবিবার শহরে পেট্রল বিকোচ্ছে ৯২ টাকা ৬৭ পয়সা প্রতি লিটারে।লিটারপ্রতি ডিজেলের দাম হয়েছে ৮৬ টাকা ৬ পয়সা। এটাও রেকর্ড। শুধু কলকাতা নয়, মুম্বইতেও পেট্রলের দাম বেড়ে হয়েছে প্রতি লিটারে ৯৮.৮৮ টাকা। ডিজেলের দাম প্রতি লিটারে ৯০ টাকা ৪৮ পয়সা। রাজধানী দিল্লিতেও পেট্রলের দাম ২৪ পয়সা বেড়েছে। লিটারপ্রতি রাজধানীতে পেট্রলের দাম হয়েছে ৯২.৫৮ টাকা। অন্যদিকে,ডিজেলের (Diesel) দাম লিটারে ২৭ পয়সা বেড়ে হয়েছে ৮৩ টাকা ২২ পয়সা।

[আরও পড়ুন: সঠিক পরিসংখ্যান প্রকাশ করা হচ্ছে না! করোনা নিয়ে রাজ্যগুলিকে দুষলেন প্রধানমন্ত্রী]

বিশ্বজুড়ে করোনার দাপটে একধাক্কায় অনেকটা কমেছে জ্বালানি তেলের চাহিদা। যার জেরে অপরিশোধিত তেলের দামও নিম্নমুখী। গত বছরও করোনার কোপ আর লকডাউনের জেরে পেট্রল-ডিজেলের আমদানি কমিয়ে ফেলেছিল ভারত। এবছরও নতুন করে মারণ ভাইরাসের চোখ রাঙানির কারণে ফের একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি হচ্ছে। পূর্ণ ও আংশিক লকডাউনের পথে হেঁটেছে একাধিক শহর। ফলে চাহিদা কমছে পেট্রল-ডিজেলের। কিন্তু তা সত্ত্বেও ভোট শেষ হতেই দেশে লাগাতার পেট্রল-ডিজেলের দাম বাড়ায় ফের সমালোচনায় বিদ্ধ কেন্দ্র সরকার। আসলে, বিভিন্ন এলাকায় লকডাউনে উৎপাদন কমেছে। ফলে কমেছে সরকারি রাজস্ব। আর কেন্দ্র চাইছে জ্বালানি থেকেই সেই রাজস্ব ঘাটতি পূরণ করতে। কিন্তু এর ফলে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম বিপুল হারে বাড়তে পারে। সেটাই চিন্তা বাড়াচ্ছে আম আদমির।

Advertisement
Next