Advertisement

করোনা টিকার একবিন্দু অপচয় নেই বঙ্গে, শীর্ষে এই দুই রাজ্য, দাবি রিপোর্টের

09:36 AM Apr 12, 2021 |
Advertisement
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দেশে ফের মাথাচাড়া দিয়েছে করোনার সংক্রমণ (Corona Pandemic)। দৈনন্দিন আক্রান্তের সংখ্যা পেরিয়ে গিয়েছে এক লক্ষ। দেশে যে ভ্যাকসিনের ঘাটতি রয়েছে, সেই খবর কয়েকদিন আগেই শিরোনামে উঠে এসেছিল। এর পাশাপাশি দেশের একাধিক রাজ্যে ভ্যাকসিন নষ্টও হয়েছে। আর সেই তালিকায় শীর্ষে রয়েছে তামিলনাড়ু (Tamil Nadu)। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে হরিয়ানা (Haryana)। তবে এক্ষেত্রে তুলনামূলক অনেকটাই ভাল কাজ করেছে পশ্চিমবঙ্গ (West Bengal), গোয়ার (Goa) মতো রাজ্যগুলি। এই রাজ্যগুলিতে ভ্যাকসিন অপচয় শূন্য। সম্প্রতি এমনই রিপোর্ট প্রকাশিত হয়েছে একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমে।

Advertisement

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দেশের রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলির মধ্যে করোনার টিকা সবচেয়ে বেশি অপচয় হয়েছে তামিলনাড়ুতে। যার পরিমাণ ১২.৪ শতাংশ। দ্বিতীয় স্থানে থাকা হরিয়ানায় টিকার অপচয় হয়েছে ১০ শতাংশ। তৃতীয় স্থানে রয়েছে বিহার (৮.১ শতাংশ)। এছাড়া দিল্লি (৭ শতাংশ), অন্ধ্রপ্রদেশ (৭.৩ শতাংশ), পাঞ্জাব (৮ শতাংশ), অসম (৭.৩ শতাংশ), মণিপুরেও (৭.২ শতাংশ) টিকার অপচয় হয়েছে।

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1615550701979-0'); });

[আরও পড়ুন: উন্নাওয়ের ধর্ষক কুলদীপের স্ত্রীকে প্রার্থী করেও পিছু হঠল বিজেপি, বাতিল প্রার্থীপদ]

বিগত কয়েকদিন ধরে দেশের একাধিক রাজ্য টিকার সরবরাহ নিয়ে সরব হয়েছে। রাজ্যগুলির দাবি, কেন্দ্র টিকা সরবরাহ করছে না। আবার কেন্দ্রের তরফ থেকে রাজ্যগুলিকে টিকা অপচয়ের ব্যাপারে পালটা সতর্কবার্তা দেওয়া হয়েছে। মহারাষ্ট্র সরকারের বিরুদ্ধে বিপুল পরিমাণ টিকা অপচয়ের অভিযোগ আনা হয়েছে কেন্দ্রের পক্ষ থেকে। তবে এই পরিস্থিতিতে আবার গোয়া, লাক্ষাদ্বীপ, কেরল, আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জ এবং পশ্চিমবঙ্গ প্রশংসনীয় কাজ করেছে। কারণ এই রাজ্যগুলিতে করোনা টিকা অপচয়ের পরিমাণ শূন্য।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

এদিকে, মহারাষ্ট্রের করোনা পরিস্থিতি যেন ক্রমেই নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাচ্ছে। নাইট কারফিউ করে দৈনিক করোনা সংক্রমণের হার কমেছে অত্যন্ত সামান্য। তাই করোনাকে বাগে আনতে লকডাউন ছাড়া অন্য কোনও পথ নেই বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। কিন্তু শনি ও রবিবার একাধিক বৈঠকের পরও রাজ্যে লকডাউন নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে পারলেন না মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে। সংশ্লিষ্টজনদের সঙ্গে সোমবার ফের বৈঠক করবেন তিনি। তারপরই লকডাউন নিয়ে সিদ্ধান্ত ঘোষণা করবেন মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী। অর্থাৎ ১৪ এপ্রিলের পরই হয়তো সরকারি ঘোষণা করা হবে। তবে কমপক্ষে ১৪ দিনের লকডাউন হওয়া কার্যত নিশ্চিত।

[আরও পড়ুন: বাড়ছে করোনা সংক্রমণ, রেমডেসিভির ইঞ্জেকশন রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞা কেন্দ্রের]

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
Advertisement
Next