Advertisement

‘মাস্কহীন ২০২১’ -এর শুভেচ্ছাপত্রেও রাজ্য সরকারকে খোঁচা ধনকড়ের

09:14 PM Dec 31, 2020 |
Advertisement
Advertisement

দীপঙ্কর মণ্ডল: মহামারীর বছর পার করে অবশেষে নতুন বছরে পা রাখছে গোটা বিশ্ব। তার আগে সকলের একটাই প্রার্থনা, পুরনো ছন্দে ফিরুক রোজকার জীবন। বৃহস্পতিবার নতুন বছরের শুভেচ্ছা জানাতে গিয়ে সে কথা বললেন বাংলার রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়ও (Jagdeep Dhankar)। লিখলেন, “মাস্কহীন হোক নতুন বছর।” তবে সেই শুভেচ্ছাপত্রেও রাজ্যকে খোঁচা দিতে ছাড়লেন না তিনি।

Advertisement

এদিন রাজ্যবাসীকে নতুন বছরের শুভেচ্ছা জানিয়ে ধনকড় লেখেন, “২০২০ মানুষকে অনেক কিছু শিখিয়েছে। বহু বিপদ দেখেছে গোটা বিশ্ব। টানা ১০ দিন অসহনীয় কষ্ট সহ্য করেছে কলকাতাবাসী। সে সময় কলকাতা পুরসভা ও রাজ্য প্রশাসনের ব্যর্থতা চাক্ষুষ করেছে মানুষ। সেনা ও জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীর সহায়তায় ফের ঘুরে দাঁড়িয়েছে শহর।” বলাইবাহুল্য, শুভেচ্ছাপত্রে আমফানের কথা তুলে ধরতে চেয়েছেন তিনি।  রাজ্যপালের কথায়, “এই বছরটি মানুষকে সহ্যক্ষমতা দিয়েছে, পরস্পরকে সহযোগিতার করতে শিখিয়েছে।”

[আরও পড়ুন : রাতের কলকাতায় শুটআউট, গুলিবিদ্ধ অবস্থায় হাসপাতালে ভরতি ব্যবসায়ী]

তাৎপর্যপূর্ণভাবে রাজ্যপালের শুভেচ্ছাপত্রে উঠে এসেছে কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের কবিতা দু’টি পঙক্তিও। সঙ্গে রাজ্যপাল আরও লিখেছেন, “নতুন বছরে বাংলার ঐতিহ্য আরও পরিপূর্ণ হোক। সংবিধানকে সম্মান করে চলুক সকলে।” শুভেচ্ছাপত্রে উল্লেখিত হয়েছে ‘বহিরাগত’দের কথা। বহিরাগতদের বিভেদমূলক যড়যন্ত্র এড়িয়ে চলার আরজিও জানিয়েছেন তিনি।

রাজ্যপালের কথায়, “বাংলার ঐতিহ্যের পাশাপাশি অশান্তিহীন বিধানসভা নির্বাচন করে দেশে নজির গড়া উচিৎ।” এক্ষেত্রে রাজ্যের পুলিশকে রাজনৈতিকভাবে নিরপেক্ষ থাকার আরজিও জানিয়েছেন তিনি। সবমিলিয়ে বছর শেষে শুভেচ্ছাপত্রে রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড় ফের একবার রাজ্যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারকে খোঁচা দিলেন বলেই মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।

[আরও পড়ুন : টেটের বিজ্ঞপ্তি জারি করল প্রাথমিক শিক্ষা সংসদ, জেনে নিন সময়সূচি]

Advertisement
Next