নেতাজির অন্তর্ধান রহস্যভেদে নতুন তদন্ত কমিটি নিয়োগের দাবি, মোদিকে চিঠি পাঠাচ্ছে ফরওয়ার্ড ব্লক

09:53 AM Apr 29, 2022 |
Advertisement

সন্দীপ চক্রবর্তী: নেতাজির (Subhas Chandra Bose) অন্তর্ধান রহস্যের সমাধানে নতুনভাবে উচ্চপর্যায়ের কমিশন বা তদন্ত কমিটি নিয়োগের দাবি জানাল ফরওয়ার্ড ব্লক। প্রধানমন্ত্রীকে এ ব্যাপারে দ্রুত চিঠিও পাঠাবে নেতাজির তৈরি করা এই রাজনৈতিক দল। ফরওয়ার্ড ব্লকের দাবি, সত্যিটা সামনে বের করে আনা কেন্দ্র সরকারের দায়িত্ব। এটা যেমন নৈতিক দায়িত্ব তেমনই দেশপ্রেমের পরিচয় হয়ে থাকবে। কেন্দ্রের গঠিত শাহনওয়াজ ও খোসলা কমিশন চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে ব্যর্থ হওয়ার কারণেই গঠন করা হয় মনোজ মুখার্জি কমিশন। কিন্তু মুখার্জি কমিশনের রিপোর্টকে সংসদে মান্যতা দেওয়া হয়নি।

Advertisement

সারা ভারত ফরওয়ার্ড ব্লকের বাংলা কমিটির সম্পাদক নরেন চট্টোপাধ্যায় এই প্রসঙ্গেই দাবি তুলেছেন, এবার দেশের সরকারকে অন্তর্ধান রহস্য উন্মোচনে সততা দেখাতে হবে। দেশের স্বার্থে ও দেশপ্রেমের স্বার্থে সময় হয়েছে, আর দেরি নয়। নতুন করে কমিশন বা উচ্চপর্যায়ের তদন্ত কমিটি গঠন করা হোক। সত্যটা জানাতে হবে কেন্দ্রকেই। খুব দ্রুত প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে এ ব্যাপারে চিঠি দেবে ফরওয়ার্ড ব্লক। তবে এর আগেও অনেকবার চিঠি দেওয়া হয়েছে, কিন্তু রাজনৈতিক কারণেই সব উত্তর দেওয়া হয়নি বলে ফরওয়ার্ড ব্লকের অভিযোগ।

Advertising
Advertising

[আরও পড়ুন: রাজনীতি ভুলে সৌজন্য! প্রাক্তন সিপিএম নেতার জন্য বুস্টার ডোজের ব্যবস্থা করলেন তৃণমূল নেতা]

নেতাজির পরিবারের সদস্য চন্দ্র বসু সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রীকে রেনকোজির মন্দিরের ভস্ম ফিরিয়ে এনে অন্ত্যেষ্টি ক্রিয়া করাতে চেয়ে চিঠি লিখেছেন। সেই প্রেক্ষিতে এটি ফরওয়ার্ড ব্লকের পালটা চাপ বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল। যদিও ফরওয়ার্ড ব্লক চন্দ্র বসুর বক্তব্যকে গুরুত্ব দিতে চাইছে না। ওই ভস্ম ফেরাতে কেন্দ্রের তরফে আগেও প্রচেষ্টা হয়েছিল। কলকাতা হাই কোর্টে এই পদক্ষেপের বিরুদ্ধে মামলাও হয়। দেশের স্বাধীনতার ৫০ বছরে এমন প্রেক্ষিতে মামলা করেছিলেন আইনজীবী অসীম গঙ্গোপাধ্যায়।

উল্লেখ্য, চন্দ্র বসুর পালটা হিসাবে ডিএনএ টেস্টের দাবি তুলেছেন নেতাজি সম্পর্কিত বিশিষ্ট গবেষক ইতিহাসবিদ চন্দ্রচূড় ঘোষ। চন্দ্র বসু আচমকা কীভাবে তাঁর এতদিনের ভাবনার ১৮০ ডিগ্রি ঘুরে মন্তব্য করেছেন, তাতে ‘রাজনৈতিক অভিসন্ধি’ দেখছেন চন্দ্রচূড়। বসু পরিবারের প্রবীণ সদস্য জয়ন্তী রক্ষিতও তাইহোকু বিমান দুর্ঘটনায় নেতাজির মৃত্যু হয়েছে বলে মানতে রাজি নন। গোপন ফাইল প্রকাশের দাবিতে রাস্তায় নেমেছিল ফরওয়ার্ড ব্লকও। দেশনায়কের জন্মশতবর্ষে দু’টি ভলিউমে ‘দ্য মিস্ট্রি অফ দ্য ডিসঅ্যাপিয়ারেন্স অফ নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু’ শীর্ষক তথ্য ও তদন্তমূলক বই প্রকাশ করে লোকমত প্রকাশনী। সেখানে ১৯৪৫ সালের ৩০ আগস্ট একটি বহুল প্রচলিত ইংরেজি সংবাদপত্রে এক মার্কিন সাংবাদিকের মত জানানো হয়েছে যেখানে তিনি বলেছেন, সম্ভবত নেতাজির মৃতু্য হয়নি। সেই সময় পণ্ডিত নেহরুর প্রকাশ্য মন্তব্যও দাবি করেছিলেন তিনি।

[আরও পড়ুন: এগিয়ে এসেছে গরমের ছুটি, রাজ্যের সরকারি স্কুলগুলিতে পরীক্ষা আপাতত স্থগিত]

Advertisement
Next