সময়সীমা শেষ, দিল্লিতে ধরনায় বসবেন মমতা

03:19 PM Nov 21, 2016 |
Advertisement
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: প্রধানমন্ত্রীকে ৭২ ঘণ্টা সময়সীমা বেঁধে দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ সোমবার বিকেলেই সেই সময়সীমা শেষ হতেই কেন্দ্রের বিরুদ্ধে সংঘাতের পথে হাঁটলেন মমতা৷ ঘোষণা করে দিলেন, সাধারণ মানুষের স্বার্থে দেশজুড়ে মোদি-বিরোধী আন্দোলন সংগঠিত করবেন তিনি৷ এই আন্দোলনে সব দলকে পাশে দাঁড়ানোর ডাকও দিলেন৷ ২৩-২৬ নভেম্বর রাজ্যজুড়ে, তারপর দেশজুড়ে আন্দোলনে নামবেন মমতা৷ ধরনায় বসবেন দিল্লির যন্তরমন্তরে৷

Advertisement

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

জনগণের কাছ থেকে সাদা টাকা ছিনিয়ে নেওয়া হয়েছে৷ কালো নোট আরও কালো হয়েছে৷ সোমবার নবান্নে সাংবাদিক বৈঠকে এই ভাষাতেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে আক্রমণ করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ ক্যাবিনেট মন্ত্রীদের ঘরে আটকে রেখে মোদি নোট বাতিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন৷ একে ‘ফিন্যান্সিয়াল অ্যানার্কি’ বলেও এদিন মন্তব্য করেন মমতা৷ নোট বাতিলের প্রতিবাদে আগামিকাল ফের দিল্লি রওনা হচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী৷ পাশাপাশি, আগামী ২৯ তারিখ লখনউ, তারপর বিহার ও পাঞ্জাবেও সভা করবেন তিনি৷ বাংলার মাটি থেকে জন্ম নেওয়া কেন্দ্রবিরোধী আন্দোলনকে এবার জাতীয় স্তরে নিয়ে যেতে বদ্ধপরিকর মমতা৷ কোনও দল তাঁকে সমর্থন না করলে তৃণমূল একলাই কেন্দ্রের বিরুদ্ধে লাগাতার আক্রমণ চালিয়ে যাবেন বলে এদিন স্পষ্ট করেছেন তৃণমূল সুপ্রিমো৷

৫০০ ও ১০০০ টাকা পুরনো নোট বাতিল হওয়ায় বাংলার পাশাপাশি অন্যান্য কৃষিপ্রধান রাজ্যগুলিতেও খাদ্যশস্যের উৎপাদন বন্ধ হয়ে গিয়েছে বলে এদিন অভিযোগ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী৷ তাঁর দাবি, অবিলম্বে পুরনো নোট বাতিলের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার না করলে আগামী বছর বাংলায় খাদ্যসংকট দেখা দেবে৷ প্রধানমন্ত্রীর তুঘলকি সিদ্ধান্তে চা-পাট শিল্পের সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হয়েছে বলে এদিন সরব হয়েছেন মমতা৷ তিনি এও জানিয়েছেন, বাংলায় এখন কোনও ভোট নেই৷ তাই কেউ যেন এ কথা না ভাবে যে ভোটের কথা ভেবে তিনি আন্দোলনে নামছেন৷ তাঁর একমাত্র স্বার্থ মানুষের দুর্ভোগের সুরাহা করা৷

এর পাশাপাশি, বিজয় মালিয়ার মতো ঋণখেলাপির কোটি কোটি টাকা ঋণ মকুব করায় কেন্দ্রের তুমুল সমালোচনা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী৷ এর পিছনে বড় কোনও কারচুপি রয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন মমতা৷ এদিনও বিজেপি বিরোধী সব দলকে এক হওয়ার ডাক দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী৷ তাঁর স্পষ্ট বক্তব্য, কেন্দ্রের ছাপানো টাকায় বিজেপি অন্য রাজনৈতিক দলগুলিকে চুপ করিয়ে দিচ্ছে৷ কেউ চুপ না করলে তাঁকে প্রাণে মারার হুমকি দেওয়া হচ্ছে৷ তবে তিনি যে কাউকে ভয় পান না, সে কথা এদিন ফের একবার মনে করিয়ে দিয়ে মমতা বলেন, “আমাকে কী করবে, মারবে? আমি মরতে ভয় পাই না৷ আজীবন সংগ্রাম করেছি, এখনও করব৷” চিটফান্ড নিয়ে কেন্দ্র তথা প্রধানমন্ত্রী এতই চিন্তিত হলে কেন ১৯৮২-২০১০ সালের মধ্যে কোনও সিপিএম নেতাকে গ্রেফতার করা হয়নি, প্রশ্ন তুলেছেন মমতা৷ চিটফান্ড ইস্যুকে স্রেফ ভোটের রাজনীতি বলে এদিন ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন মমতা৷

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

The post সময়সীমা শেষ, দিল্লিতে ধরনায় বসবেন মমতা appeared first on Sangbad Pratidin.

Advertisement
Next