‘ইস্টবেঙ্গলকে ভয় পাবে প্রতিপক্ষ’, কলকাতায় পা রেখে হুঙ্কার কনস্ট্যানটাইনের

05:11 PM Aug 05, 2022 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ইস্টবেঙ্গলে শুরু হয়ে গেল কনস্ট্যানটাইন-যুগ। বৃহস্পতিবার সকালে সমর্থকদের হর্ষধ্বনির মধ্যে কলকাতা বিমানবন্দরে পা রেখেছিলেন স্টিফেন কনস্ট্যানটাইন (Stephen Constantine)। আর বেলা তিনটে নাগাদ যখন ইস্টবেঙ্গল (East Bengal) মাঠে ফুটবলারদের নিয়ে নেমে পড়লেন তখনও তাঁর নামে হর্ষধ্বনি হল। সমর্থকদের আবেগ দেখলেন সাহেব কোচ।

Advertisement

এই মরশুমে আজ বৃহস্পতিবার ছিল ইস্টবেঙ্গলের প্রথম অনুশীলন। প্র্যাকটিসের মাঝেই তাঁর গলায় পরিয়ে দেওয়া হল মালা। আর ইস্টবেঙ্গলের রিমোট কন্ট্রোল হাতে নিয়ে প্রথম দিন সাহেব কোচ যা বললেন, তাতে অন্যদের মেরুদণ্ড দিয়ে শীতল স্রোত বইতেই পারে। কনস্ট্যানটাইন বললেন, ”ইউ আর নট গোয়িং টু ওয়ান্ট টু প্লে এগেইন্সট ইস্টবেঙ্গল।” যার বাংলা তর্জমা করলে দাঁড়ায়, ”ইস্টবেঙ্গলের বিরুদ্ধে খেলতে চাইবে না কোনও প্রতিপক্ষ।”

[আরও পড়ুন: ৭৩ বছর বয়সে কমনওয়েলথ গেমসে সোনা! লন বোলে বাজিমাত স্কটল্যান্ডের ‘তরুণীর’]

ইতিমধ্যেই প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে অনেক ক্লাবই। সেদিক থেকে বিচার করলে ইস্টবেঙ্গলের শুরুটা হল খানিক দেরিতেই। হাতে সময় খুব বেশি নেই, বাছাবাছি করার সময়ও খুব একটা নেই। সেটা ধরা পড়ল বাস্তববাদী কোচের গলায়। শুভাশিস রায়চৌধুরী, সার্থক গোলুই-সহ জনা তিরিশেক ফুটবলারদের (রিজার্ভ ফুটবলাররাও প্র্যাকটিসে ছিলেন) অনুশীলন করিয়ে উঠে কনস্ট্যানটাইন বলছেন, ”হাতে সময় কম। বাছবিচার করার সময় বিশেষ নেই আমাদের হাতে।” সীমিত সময়ের মধ্যেই দলটাকে তৈরি করে নিতে চাইছেন হাতের তালুর মতো ভারতীয় ফুটবলকে জানা সাহেব কোচ।

Advertising
Advertising

কেরলকে সন্তোষ ট্রফি এনে দেওয়া কোচ বিনো জর্জ (Bino George) এবার কলকাতা লিগে ইস্টবেঙ্গলকে কোচিং করাবেন। আইএসএলে তিনি সহকারী কোচ হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন। এদিন কনস্ট্যানটাইনের সঙ্গে অনুশীলনে উপস্থিত ছিলেন তিনিও। একসময়ে দুই গোলকিপার শুভাশিস ও পবন কুমারকে নিয়ে আলাদা অনুশীলনেও দেখা গেল বিনো জর্জকে।  

আগে জাতীয় দলের কোচ ছিলেন কিন্তু এখন ক্লাব কোচিংয়ে ফিরলেন এদেশে। ফলে ফুটবলারদের সঙ্গে অনেক বেশি সময় কাটাতে পারবেন তিনি। রিজার্ভ টিম, অ্যাকাডেমি থেকে প্রতিভা অ্ন্বেষণ করবেন বলে জানিয়েছেন কনস্ট্যানটাইন। 

 

কোভিড পরিস্থিতিতে ময়দানে খেলা বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। এখন পরিস্থিতি অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে এসেছে। মাঠে ফিরছেন সমর্থকরা। ইস্টবেঙ্গলের প্রথম দিনের অনুশীলনেও উপস্থিত সমর্থকরা। সমর্থকদের উপস্থিতি ফুটবলারদের উজ্জীবিত করে। তাঁদের উৎসাহিত করে। কনস্ট্যানটাইন বলছেন, ”মাঠে দর্শক ফিরছে এটাই ভাল দিক। সমর্থকদের উপস্থিতি ছাড়া তো ভাল ফুটবল সম্ভব নয়।” 

[আরও পড়ুন:  মিটল ভিসা সমস্যা, নির্ধারিত দিনে আমেরিকাতেই ভারত-ওয়েস্ট ইন্ডিজ টি-২০, খেলতে পারেন রোহিত]

This browser does not support the video element.

Advertisement
Next