নিউ ইয়র্কে ছুরিবিদ্ধ ‘দ্য স্যাটানিক ভার্সেস’-এর স্রষ্টা সলমন রুশদি

09:31 PM Aug 12, 2022 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: নিউ ইয়র্কে ভাষণ দিতে গিয়ে ছুরিকাহত হলেন সলমন রুশদি। হাসপাতাল নিয়ে যাওয়া হয়েছে ‘দ্য স্যাটানিক ভার্সেস’-এর লেখক তথা বুকারজয়ী লেখককে। হামলাকারীকে আটক করেছে পুলিশ।

Advertisement

অ্যাসোসিয়েটেড প্রেস সূত্রে খবর, শুক্রবার নিউ ইয়র্কের চাউটাউকুয়া ইন্সটিটিউশনে ভাষণ দিতে পৌঁছনোর কথা ছিল রুশদির। কিন্তু মঞ্চে আসতেই তাঁর দিকে তেড়ে যায় এক ব্যক্তি। এই অতর্কিত আক্রমণে স্তম্ভিত হয়ে যান সকলেই। অত্যন্ত দ্রুততার সঙ্গে রুশদিকে উপর্যুপরি ছুরির আঘাত করে ওই ব্যক্তি। তাঁকে কিল-চড়ও মারে হামলাকারী। এদিকে, সম্বিত ফিরে পেয়েই হামলাকারীকে ধরে ফেলেন সেখানে উপস্থিত নিরাপত্তারক্ষীরা। রুশদিকে দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে বলে খবর।   

কেন এই হামলা তা এখনও স্পষ্ট নয়। তবে মনে করা হচ্ছে, রুশদিকে ‘ইসলাম অবমাননা’র সাজা দিতেই এই আক্রমণ। বলে রাখা ভাল, ২০১২ সালে ইরানের একটি ধর্মীয় সংগঠন রুশদির হত্যাকারীকে পুরস্কার দেওয়ার জন্য বিপুল পরিমাণে অর্থ সংগ্রহ করে। যদিও এহেন হুমকিকে কোনওদিন বিশেষ পাত্তা দেননি আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন ওই লেখক।           

Advertising
Advertising

উল্লেখ্য, ১৯৮৮ সালে প্রকাশিত হয় সলমান রুশদির বিখ্যাত উপন্যাস ‘দ্য স্যাটানিক ভার্সেস’। তারপরই ইসলামিক মৌলবাদীদের রোষের মুখে পড়েন তিনি। মৌলবাদীদের অভিযোগ, রুশদির এই রচনায় ইসলাম ও মহম্মদকে অপমান করা হয়েছে। বইটি বাজারে আসতে পরিস্থিতি এতটাই উত্তপ্ত হয়ে ওঠে যে রুশদিকে হত্যার ফতোয়া জারি করেন ইরানের প্রয়াত সুপ্রিম লিডার আয়াতোল্লা রুহুল্লা খোমেইনি। রুশদির হত্যাকারীকে ৩০ লক্ষ মার্কিন ডলার পুরস্কার দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছিলেন তিনি। অবশ্য বর্তমানে এই ফতোয়ার সঙ্গে কোনও সম্পর্ক নেই বলেই দাবি করে ইরানের প্রশাসন।                          

[আরও পড়ুন: ‘জনসন অ্যান্ড জনসন’ বেবি পাউডারে বিষ! অবশেষে গোটা বিশ্বে পণ্য বিক্রি বন্ধের সিদ্ধান্ত সংস্থার]

Advertisement
Next