ধুলাগড়ে ঢুকতে দেওয়া হল না বিজেপির সংসদীয় দলকে

02:58 PM Dec 24, 2016 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: অশান্ত ধুলাগড়ে ঢুকতে দেওয়া হল না বিজেপির সংসদীয় দলকে৷ শনিবার হাওড়ার ধুলাগড়ের পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে ঘটনাস্থলে যায় বিজেপির সংসদীয় প্রতিনিধিদল৷ কিন্তু ধুলাগড়ে ঢোকার মুখেই পুলিশ তাঁদের গাড়ি আটকে দেয় বলে অভিযোগ৷ বিজেপি সাংসদ সত্যপাল সিংয়ের অভিযোগ, “আমাদের ঢুকতে দিলে কোনও অশান্তি হত না৷ আমরা শান্তি প্রতিষ্ঠা করতেই এসেছি৷ আমাদের উপস্থিতিতে জনতা কোনওরকম অশান্তিতে জড়াতেন না৷” ধুলাগড়ের পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে তিন সদস্যের সংসদীয় প্রতিনিধি দল পাঠিয়েছিলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ৷

Advertisement

গত কয়েকদিন ধরে দুই গোষ্ঠীর মধ্যে সংঘর্ষে রণক্ষেত্র হয়ে রয়েছে হাওড়ার ধুলাগড়৷ সংঘর্ষে এখনও পর্যন্ত আহত হয়েছেন ২৫ জনেরও বেশি৷ একটি মিছিলকে কেন্দ্র করে দুই গোষ্ঠীর মধ্যে সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে কলকাতা থেকে মাত্র ৩৫ কিলোমিটার দূর ধুলাগড়ের একাধিক পাড়া। অভিযোগের তির স্থানীয় কয়েকজন কুখ্যাত দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে৷ দুই গোষ্ঠীর মধ্যে সংঘর্ষে পুড়িয়ে দেওয়া হয় প্রায় শতাধিক বাড়ি, লুঠপাটও চালানো হয় বলে অভিযোগ। প্রাণ বাঁচাতে এলাকা ছেড়ে পালান বাসিন্দারা। প্রশাসনের তরফে কড়া হাতে পরিস্থিতির মোকাবিলা করা হচ্ছে৷ রাস্তার মোড়ে মোড়ে পুলিশ পিকেট বসানো হয়েছে৷ তৈরি রাখা হয়েছে র‍্যাফ৷

Advertising
Advertising

বিজেপির অভিযোগ, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আমলে বোমা তৈরির কারখানায় পরিণত হয়েছে রাজ্য৷ পাল্টা শাসক দল তৃণমূলের মুখ্য জাতীয় মুখপাত্র ডেরেক ও’ব্রায়েনের কটাক্ষ, বিজেপির মতো সাম্প্রদায়িক দল চাইলেও বাংলার শান্তিপ্রিয় মানুষ তাঁদের ধর্ম নিয়ে রাজনীতিকে প্রত্যাখ্যান করবে৷ এখনও পর্যন্ত এই ঘটনায় ৪৯ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে দাবি একটি সূত্রের৷ এই পরিস্থিতিতে রাজ্যের পুলিশের ডিজি সুরজিৎ কর পুরকায়স্থের কাছ থেকে হাওড়ার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির খোঁজখবর নেন রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠী। সূত্রের খবর, সুরজিৎ কর পুরকায়স্থকে রাজভবনে ডেকে পাঠান রাজ্যপাল। তাঁর কাছ থেকে হাওড়ার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির পুঙ্খানুপুঙ্খ বিবরণ চান। বিশেষত ধুলাগড় এখন কী অবস্থায় রয়েছে, খুঁটিয়ে জানতে চান কেশরীনাথ ত্রিপাঠী। গোটা বিষয়টি নিয়ে রাজ্যপালকে ‘ব্রিফ’ করেন পুলিশের ডিজি। হাওড়ার সার্বিক পরিস্থিতির উপর সুরজিৎ কর পুরকায়স্থকে নজর রাখতে বলেন রাজ্যপাল। দুষ্কৃতীদের চিহ্নিত করে তাদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক পদক্ষেপও করতে বলেছেন ডিজিকে। যাঁরা ভয়ে ধুলাগড় ছাড়তে বাধ্য হচ্ছেন, তাঁদের নিরাপত্তার বিষয়টি সুনিশ্চিত করতে বলেছেন রাজ্যপাল।

  • ডিজির কাছে ধুলাগড়ের পরিস্থিতি জানতে চাইলেন রাজ্যপাল
  • ধুলাগড় পরিদর্শনে এবার বিজেপির সংসদীয় দল
  • সাতদিন ধরে রণক্ষেত্র ধুলাগড়, আহত অন্তত ২৫
  • রাজ্যে আক্রান্ত হচ্ছে হিন্দুরা, মমতার হস্তক্ষেপ দাবি বিজেপির
  • মুখ্যমন্ত্রীর হতাশাতেই হাওড়া গ্রামীণ এসপির অপসারণ, বিস্ফোরক রূপা
Advertisement
Next