Advertisement

হয়রানি কমাতে বেসরকারি হাসপাতালকে রেমডেসিভির কেনার অনুমতি দিল তামিলনাড়ু

05:22 PM May 16, 2021 |

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনা (Corona Virus) কালে সব থেকে বেশি যে ওষুধের হাহাকার চলছে, তা হল রেমডেসিভির (Remdesivir)। সরকারি হাসপাতালে থাকলে রোগীদের রেমডেসিভির ইঞ্জেকশন দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু সমস্যা হল বেসরকারি হাসপাতালে ভরতি রোগীদের রেমডেসিভির প্রয়োজন হলে তা বাইরে থেকে কিনে আনতে হচ্ছে। আর রোগীর বাড়ির লোকরা হন্যে হয়ে ছুটে বেড়িয়েও অনেক ক্ষেত্রেই তা পাচ্ছেন না। অথবা পড়ছেন প্রতারণা বা দালাল চক্রের খপ্পরে। এই সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী এমকে স্ট্যালিন ঘোষণা করলেন, এবার বেসরকারি হাসপাতালগুলিও সরাসরি রেমডেসিভির কিনতে পারবে।

Advertisement

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

তামিলনাড়ু সরকারের তরফে জানানো হয়েছে, বেসরকারি হাসপাতালগুলি রোগীদের বিস্তারিত তথ্য দিয়ে সরকারি পোর্টালে রেমডেসিভিরের জন্য আবেদন করতে পারবে। যখনই তা উপলব্ধ হবে হাসপাতাল তা সংগ্রহ করে রোগীদের দিতে পারবে। তামিলনাড়ু মেডিক্যাল সার্ভিস কর্পোরেশন লিমিটেড থেকে বেসরকারি হাসপাতালগুলিকে সরাসরি দেওয়া হবে রেমডেসিভির। আর তা হলে বেসরকারি হাসপাতালে ভরতি রোগীর আত্মীয়দের আর জায়গায় জায়গায় ছুটে বেড়াতে হবে না।

আগামী ১৮ মে থেকে বেসরকারি হাসপাতালগুলির জন্য এই ব্যবস্থা চালু হচ্ছে। রেমডেসিভির বরাদ্দ হওয়ার পর হাসপাতালের প্রতিনিধি গিয়ে সেই ইঞ্জেকশন সংগ্রহ করতে পারবেন। তবে গোটা বিষয়টির উপর নজর থাকবে তামিলনাড়ু সরকারের। পাবলিক হেল্থ অ্যান্ড ওয়েলফেয়ার অফিসাররা নজরদারি চালাবেন বেসরকারি হাসপাতালের রেমডেসিভির কেনা বেচার উপর।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

[আরও পড়ুন: ‘আমাকেও গ্রেপ্তার করুন’, দিল্লিতে সরকার বিরোধী পোস্টার বিতর্কে গর্জে উঠলেন রাহুল]

তামিলনাড়ু সরকার জানিয়েছে, বহু জায়গা থেকে রেমডেসিভিরের কালোবাজারির অভিযোগ সামনে আসছে। সেই কালোবাজারি এবং মানুষের হয়রানি রুখতেই এই সিদ্ধান্ত। রেমডেসিভির কেনার বিশাল ভিড় সামলাতে চেন্নাইয়ে কিলপাউক মেডিক্যাল কলেজ থেকে নেহরু স্টেডিয়ামে সরিয়ে দেওয়া হয় বিক্রয় কেন্দ্র। কিন্তু সেখানেও ভিড় সামলাতে হিমশিম খেতে হয় পুলিশকে। সেই ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় আগেই ভাইরাল হয়েছে।

[আরও পড়ুন: করোনাবিধি ভাঙার ‘শাস্তি’, মোড়লদের পায়ে পড়ে ক্ষমা চাইতে হল তিন ‘দলিত’ বৃদ্ধকে]

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
Advertisement
Next