Advertisement

সুযোগের অপেক্ষায় দেহব্যবসায়ীরা, নেটদুনিয়ায় শিশুদের তথ্য না দেওয়ার আরজি করিনার

07:43 PM May 26, 2021 |

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বেড, অক্সিজেন, প্লাজমা – অতিমারীর (Corona Pandemic) সময় এই শব্দগুলোই রোজ শোনা যায়। শোনা যায় মানুষের দুরবস্থার কাহিনি। আর শিশুরা? তাঁদের খবর রাখেন ক’জন? করোনার ছোবলে কেই বাবাকে হারিয়েছে, কেউ বা মা’কে। কেউ আবার বাবা-মা দু’জনকে হারিয়েই হয়েছে অনাথ। কঠিন এই সময়ে অনেক শিশুকেই দেহ ব্যবসার দিকে ঠেলে দেওয়া হচ্ছে, শিশুশ্রমিক হতে বাধ্য করা হচ্ছে। সবসময় যে কোনও প্রতারক বা সুযোগসন্ধানী তা করছে তা কিন্তু নয়। অভাবের তাড়নায় আপনজনরাই শিশুকে ঠেলে দিচ্ছে অনিশ্চিত, যন্ত্রণাদায়ক ভবিষ্যতের দিকে। এর বিরুদ্ধেই সোচ্চার হলেন করিনা কাপুর (Kareena Kapoor)।

Advertisement

নিজের ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইলে ‘ব্রুট ইন্ডিয়া’র (Brut India) একটি ভিডিওর স্ক্রিনশট শেয়ার করেছেন করিনা। ভিডিওটিতে জানানো হয়েছে, কীভাবে এই কোভিড (COVID-19) পরিস্থিতিতে শিশুরা অসহায় এবং অনাথ হয়ে পড়েছে। দত্তক প্রয়োজন বলে সোশ্যাল মিডিয়ায় অনেক পোস্টও দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু এমন সময়েও অনেক ধরনের প্রতারণা হচ্ছে। শিশুদের দেহ ব্যবসার দিকেও ঠেলে দেওয়া হচ্ছে। মাত্র ১ কেজি আটা কিংবা চাল পাওয়ার যৌননিগ্রহের শিকার হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। তাই কোনও শিশুকে দত্তক নিয়ে কিংবা তার পাশে দাঁড়ানোর ইচ্ছে থাকলে নিয়ম মেনে সঠিন সংস্থার সঙ্গে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে।

 
 
 
 
 
View this post on Instagram
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 

A post shared by Brut India (@brut.india)

[আরও পড়ুন: অরুণাচল চিনের অংশ! বিতর্কিত মন্তব্যের জেরে গ্রেপ্তার জনপ্রিয় ইউটিউবার]

একই কথা নিজের ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে লিখেছেন করিনা। আক্ষেপ করে অভিনেত্রী লিখেছেন, “খুবই খারাপ লাগছে এটা দেখে যে আমাদের দেশের শিশুদের বেঁচে থাকার প্রাথমিক প্রয়োজন মেটাতে এতটা নিষ্ঠুরতার সম্মুখীন হতে হচ্ছে।” এরপরই করিনা লেখেন, “দয়া করে শিশুদের তথ্য সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করবেন না। তার বদলে চাইল্ড লাইন নম্বর ১০৯৮-এ ফোন করুন যেকোনও তথ্য এবং প্রশ্নের উত্তর জানতে।”

[আরও পড়ুন: হাঁটুজল ভেঙে চণ্ডীপুরের প্লাবিত এলাকা পরিদর্শনে বিধায়ক সোহম]

Advertisement
Next