‘তোমাকেও ছাড়ব না!’এবার সলমনের আইনজীবীকে প্রাণনাশের হুমকি দিল লরেন্স বিষ্ণোইয়ের গ্যাং

06:58 PM Jul 06, 2022 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সলমন খানের পর এবার অভিনেতার আইনজীবীকে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে চিঠি পাঠাল গ্যাংস্টার লরেন্স বিষ্ণোইয়ের গ্যাং। সোমবার সলমনের আইনজীবী হস্তিমাল সরস্বতের অফিসের বাইরে থেকে পাওয়া গেল প্রাণনাশের হুমকি চিঠি।

Advertisement

চিঠিতে লেখা রয়েছে, শত্রুর বন্ধু আমাদের শত্রু। কেউ রক্ষা পাবে না। মুশেওয়ালার সঙ্গে যা ঘটেছে, তোমার সঙ্গেও তাই ঘটবে! গোটা ঘটনায় বেশ চিন্তিত আইনজীবী ও তাঁর পরিবার। পুলিশের কাছেও অভিযোগ করা হয়েছে। আইনজীবী হস্তিমাল সরস্বত সলমনের কৃষ্ণসার হরিণ শিকারের মামলাটি লড়ছেন।

Advertising
Advertising

[আরও পড়ুন:  ডাহা ফ্লপ কঙ্গনার ‘ধাকড়’, টাকা তুলতে বেচতে হচ্ছে অফিস! কী জানালেন প্রযোজক?]

অন্যদিকে, পাঞ্জাবি গায়ক সিধু মুসেওয়ালা (Sidhu Moose Wala) খুনে পুলিশের জালে লরেন্স বিষ্ণোই গ্যাংয়ের আরও দুই কুখ্যাত অপরাধী। জনপ্রিয় গায়ককে লক্ষ্য করে এলোপাথাড়ি গুলি চালিয়েছিল ধৃতদের একজন। অন্যজন তাকে আশ্রয় দিয়েছিল। রবিবার রাতে দিল্লির কাশ্মীরি গেট এলাকা থেকে দু’ জনকে গ্রেপ্তার করে দিল্লি পুলিশ। তার কাছ থেকে উদ্ধার হয়েছে পাঞ্জাব পুলিশের তিনটি উর্দিও। যা ঘিরে তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে।

সোমবার সকালে সাংবাদিক বৈঠক করে গ্রেপ্তারির বিষয়টি নিশ্চিত করেন দিল্লি পুলিশের স্পেশ্যাল সেলের পুলিশ কমিশনার। তিনি জানিয়েছেন, ধৃতদের নাম অঙ্কিত এবং শচীন ভিওয়ানি। অঙ্কিত ছিল লরেন্স বিষ্ণোই গ্যাংয়ের শার্প শুটার। হরিয়ানার সোনেপতের বাসিন্দা। অঙ্কিতের বিরুদ্ধে আগে থেকেই রাজস্থানে খুনের চেষ্টার একাধিক অভিযোগ রয়েছে। আর এই কুখ্যাত গ্যাংয়ের দুষ্কৃতীদের হ্যান্ডেলার ছিল শচীন। রাজস্থানে তার বিরুদ্ধেও একাধিক ঘৃণ্য অপরাধের অভিযোগ রয়েছে।

দিল্লি পুলিশ জানিয়েছে, অঙ্কিত-সহ ৪ হত্যাকারীকে আশ্রয় দিয়েছিল শচীন। কিন্তু শেষরক্ষা হল না। রবিবার রাত ৯টা নাগাদ দিল্লির কাশ্মীরি গেটে বাসস্ট্যান্ড থেকে দু’জনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তাদের কাছ থেকে দু’টি পিস্তল, ১৯ রাউন্ড কার্তুজ উদ্ধার হয়। মেলে পাঞ্জাব পুলিশের তিনটি উর্দি, দু’টি মোবাইল, একটি ডঙ্গেল এবং একটি সিমও। ইতিপূর্বে গুজরাটের কচ্ছ এলাকা থেকে দুই শার্প শুটারকে গ্রেপ্তার করেছিল পুলিশ।

প্রসঙ্গত, গত ২৯ মে আত্মীয়ের বাড়ি যাওয়ার পথে আততায়ীদের গুলিতে নিহত হন পঞ্জাবি গায়ক সিধু মুসেওয়ালা। চলতি বছরের নভেম্বর মাসেই বিয়ের পিঁড়িতে বসার কথা ছিল সিধুর। কিন্তু তার আগেই সব শেষ। নিরাপত্তা প্রত্যাহারের পরেরদিনই খুন হন তিনি। তাঁর খুনের ঘটনায় স্বাভাবিকভাবেই উঠছে নানা প্রশ্ন। যার উত্তর খুঁজছে তাঁর হত্যাকাণ্ডে গঠিত হওয়া SIT। হত্যার দায় স্বীকার করেছে লরেন্স বিষ্ণোই গ্যাং।

[আরও পড়ুন:গানে ‘হুসেন’ শব্দের ব্যবহার নিয়ে ক্ষোভ, মুসলিম সম্প্রদায়ের রোষানলে ‘খুদা হাফিজ চ্যাপ্টার ২’]

Advertisement
Next