চলতি বছরে একই জায়গায় ২৬২টি দুর্ঘটনা, সাইরাস মিস্ত্রির মৃত্যুস্থল নিয়ে চাঞ্চল্যকর তথ্য

02:11 PM Sep 18, 2022 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: চলতি মাসের প্রথমদিকে গাড়ি দুর্ঘটনায় সাইরাস মিস্ত্রির মৃত্যুতে (Cyrus Mistry Death) হইচই পড়ে গিয়েছিল গোটা দেশে। আহমেদাবাদ থেকে মুম্বই আসার পথে গাড়ি দুর্ঘটনায় মৃত্যু হয় টাটা সন্সের প্রাক্তন চেয়ারম্যান সাইরাসের। সেই দুর্ঘটনার প্রেক্ষিতে উঠে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য। জানা গিয়েছে, আহমেদাবাদ-মুম্বই হাইওয়েতে (Ahmedabad-Mumbai) চলতি বছরে ২৬২টি দুর্ঘটনা ঘটেছে। তাতে মৃত্যু হয়েছে অন্তত ৬২জনের।

Advertisement

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782001027-0'); });

মহারাষ্ট্রের পালঘর এলাকায় গাড়ি দুর্ঘটনার পরিসংখ্যান জানাতে গিয়ে পুলিশের তরফে বলা হয়েছে, চলতি বছরে মোট ২৬২টি দুর্ঘটনা ঘটেছে। তাতে মৃত্যু হয়েছে ৬২ জনের। আহত হয়েছেন অন্তত ১৯২ জন। শুধু তাই নয়, পালঘরের যে অঞ্চলে সাইরাসের মৃত্যু হয়, সেখানেও চলতি বছরে দুর্ঘটনার ফলে ২৬ জনের মৃত্যু হয়েছে।

window.unibots = window.unibots || { cmd: [] }; unibots.cmd.push(()=>{ unibotsPlayer('sangbadpratidin'); });

কেন এই জায়গায় বারবার দুর্ঘটনা ঘটছে? অনেক ক্ষেত্রে গাড়ির বেপরোয়া গতি ও চালকের অসতর্কতার কথা উঠে আসে। তবে পুলিশ (Maharashtra Police) আধিকারিকদের মতে, আসলে সঠিকভাবে রাস্তাগুলির দেখভাল করা হয় না বলেই বারবার দুর্ঘটনা ঘটছে। রাস্তার বেহাল দশার পাশাপাশি সিগন্যালিং ব্যবস্থাকেও কাঠগড়ায় তুলছে পুলিশ। গাড়ির গতি নিয়ন্ত্রণ করার জন্য রাস্তায় স্পিডব্রেকারের ব্যবস্থাও নেই বলে মত পুলিশ আধিকারিকদের। 

Advertising
Advertising

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782050143-0'); });

[আরও পড়ুন: বিরোধী হাওয়া কেমন, বিজেপি শাসিত রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে আলোচনায় বসবে শীর্ষ নেতৃত্ব]

প্রশ্ন উঠছে, একটি নির্দিষ্ট জায়গায় বারবার দুর্ঘটনা ঘটার পরেও কেন উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি? রাস্তা দেখভালের দায়িত্ব অন্যদের বলেই দাবি করা হয়েছে ন্যাশনাল হাইওয়ে অথরিটি অফ ইন্ডিয়ার তরফে। জানা গিয়েছে, সাইরাসের দুর্ঘটনার আগেই এই রাস্তার দেখভাল করা নিয়ে বিশেষজ্ঞদের মতামত চেয়েছিল মহারাষ্ট্র পুলিশ। তবে এখনও রাস্তার উন্নতি করতে কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।

গত ৪ সেপ্টেম্বর দুর্ঘটনায় মৃত্যু হয়েছিল সাইরাস মিস্ত্রির। অত্যধিক গতির কারণে পালঘরের চারেটি এলাকায় নদীর উপরে একটি সেতুর ডিভাইডারে ধাক্কা মারে তাঁদের গাড়ি। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় সাইরাস ও তাঁর এক সঙ্গী জাহাঙ্গির পান্ডোলের। জানা যায়, মাত্র ৯ মিনিটে ২০ কিলোমিটার রাস্তা পাড়ি দিয়েছিল সাইরাসের গাড়ি। ঘন্টায় প্রায় ১৩৫ কিলোমিটার গতিতে গাড়িটি চালানো হচ্ছিল। সাইরাসের মৃত্যু হওয়ার পরেই পথ সুরক্ষা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন সাধারণ মানুষ। তার পরেই প্রকাশ্যে এসেছে চাঞ্চল্যকর তথ্য। 

[আরও পড়ুন:মোদিকে টক্কর দেওয়ার চেষ্টা! অখিলেশের সাহায্যে উত্তরপ্রদেশ থেকে লোকসভায় লড়তে পারেন নীতীশ]

 

Advertisement
Next