Advertisement

বিরোধী মহাজোটের স্বপ্নে ধাক্কা! পাঞ্জাবে কংগ্রেসের বিরুদ্ধে জোট গড়ল BSP-অকালি দল

02:00 PM Jun 12, 2021 |
Advertisement
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আগামী বছর অর্থাৎ ২০২২ সালে পাঞ্জাবে বিধানসভা নির্বাচন (Punjab Assembly Election 2022)। ইতিমধ্যে কোমর বাঁধতে শুরু করেছে রাজনৈতিক দলগুলি। এই পরিস্থিতিতে অনেকেই ভেবেছিলেন বিজেপির সঙ্গ ত্যাগের পর কংগ্রেসের হাত ধরবে  শিরোমণি অকালি দল (Shiromani Akali Dal) বা SAD। কিন্তু না, কংগ্রেস বা আপ নয়,  অকালি দল জোট বাঁধল মায়াবতীর (Mayawati) বহুজন সমাজ পার্টির (Bahujan Samaj Party) সঙ্গে। ফলে পাঞ্জাব বিধানসভা ভোটে বিরোধী মহাজোটের স্বপ্নে বড়সড় ধাক্কা লাগল। শনিবার সাংবাদিক সম্মেলনে এই জোটের কথা ঘোষণা করলেন অকালি দলের সভাপতি সুখবীর সিং বাদল। সংবাদ সংস্থা এএনআইয়ের পক্ষ থেকে খবরটি টুইটও করা হয়।

Advertisement

গত বছর কেন্দ্রের আনা বিতর্কিত তিন কৃষি আইন নিয়ে বিরোধ বাঁধে দুই জোট সঙ্গী শিরোমণি অকালি দল এবং বিজেপির মধ্যে। এরপর সেপ্টেম্বর মাসে বিজেপির দীর্ঘদিনের সঙ্গ ত্যাগ করে এনডিএ থেকে বেরিয়ে আসেন সুখবীর সিং বাদলরা। এমনকী এনডিএ ত্যাগের এক সপ্তাহ আগে মোদির মন্ত্রিসভা থেকে ইস্তফাও দেন অকালি দলের একমাত্র সাংসদ তথা মন্ত্রী হরসিমরত কউর বাদল। এরপরই দলের তরফ থেকে জানানো হয়, পাঞ্জাব নির্বাচনে বিজেপিকে ছাড়া লড়বে SAD। তবে কংগ্রেস, আপের সঙ্গেও জোটে যাওয়া হবে না, সেকথা তাঁরা ধারেভারে বুঝিয়ে দিয়েছিলেন। তবে এই তিন দল বাদে বাকিদের সঙ্গে জোটের রাস্তা অবশ্য খোলা ছিল অকালি দলের। আর সেই রাস্তা ধরেই মায়াবতীর বসপার সঙ্গে আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনের আগে জোট বাঁধল তাঁরা। কিন্তু তাঁদের এই পদক্ষেপে এটা পরিষ্কার বিজেপিকে রুখতে বিরোধীদের মহাজোট গড়া হচ্ছে না।

[আরও পড়ুন: দুর্দান্ত কার্যকরী করোনা টিকা, ২ ডোজে কমছে হাসপাতালে ভরতির সম্ভাবনা! বলছে সমীক্ষা]

এদিন সাংবাদিক সম্মেলনে বসপা-অকালি দলের জোট প্রসঙ্গে সাদ সভাপতি সুখবীর সিং বাদল বলেন, তাঁদের এই জোট পাঞ্জাবের রাজনীতিতে নতুন দিনের সূচনা করল। এরপরই তিনি বলেন, “২০২২ সালের পাঞ্জাব বিধানসভা নির্বাচন এবং পরবর্তী নির্বাচনগুলিতে একসঙ্গে লড়াই করবে।” এদিন, দুই দলের মধ্যে সিট নিয়ে রফাসূত্রও বেরিয়েছে। জানা গিয়েছে, পাঞ্জাবের ১১৭টি আসনের মধ্যে অকালি দল লড়বে ৯৭টি আসনে। আর মায়াবতীর দল লড়বে ২০টি আসনে। প্রসঙ্গত, ওই রাজ্যে ৪০ শতাংশ দলিত ভোট রয়েছে। এর মধ্যে ৩১ শতাংশই পেতে পারে মায়াবতীর দল। এছাড়া দোয়াবা এলাকার ২৩টি আসনেও দলিত ভোট এক্স ফ্যাক্টর হিসেবে কাজ করবে। প্রসঙ্গত, ১৯৯৬ সালের লোকসভা নির্বাচনে জোট বেঁধে লড়েছিল অকালি দল এবং বিএসপি। সেবার পাঞ্জাবের ১৩টি লোকসভা কেন্দ্রের মধ্যে ১১টি আসনেই জয়লাভ করেছিল তাঁরা। আর তাই এবারও পাঞ্জাব নির্বাচনে একসঙ্গে লড়বে সাদ এবং বসপা। এখন দেখার, আগের সাফল্যকেও ছাপিয়ে যেতে পারেন কি না তাঁরা।

[আরও পড়ুন: এপ্রিলের পর আজই দেশে সর্বনিম্ন দৈনিক Corona সংক্রমণ, তবে মৃতের সংখ্যা লাগামছাড়া]

Advertisement
Next