Advertisement

বন্‌ধ LIVE UPDATE: দাবিতে অনড় কৃষকরা, অমিত শাহের সঙ্গে বৈঠকে আন্দোলনকারীরা

09:32 PM Dec 08, 2020 |
Advertisement
Advertisement

কেন্দ্রের কৃষি আইনের বিরোধিতায় সরব কৃষকরা। অবিলম্বে তা প্রত্যাহারের দাবি উঠেছে। সেই দাবিতেই মঙ্গলবার ভারত বন্‌ধ। কৃষকদের আন্দোলনকে সমর্থন করেছে ১৬টি বিরোধী দল।কৃষক আন্দোলনকে সমর্থন জানিয়েছে তৃণমূলও। এদিকে, উত্তরকন্যা অভিযানে মৃত্যু হয়েছে এক বিজেপি কর্মীর। তার প্রতিবাদে আজ উত্তরবঙ্গে ১২ ঘণ্টার বন্‌ধ ডেকেছে গেরুয়া শিবির। নজর রাখুন বন্‌ধ সংক্রান্ত লাইভ আপডেটে।

Advertisement

রাত ৯.০০: ইন্ডিয়ান কাউন্সিল ফর এগ্রিকালচার রিসার্চ ভবনে কৃষক সংগঠনের প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠক করছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। 

সন্ধে ৭.৪৫: বুধবার কৃষকদের সঙ্গে বৈঠকের আগে বৈঠকে মন্ত্রিসভার সদস্যরা। 

সন্ধে ৭.৪০: দিল্লির কৃষক বিক্ষোভের অথবা শাহিনবাগ, উভয় ক্ষেত্রেই বহিরাগত শক্তি ছিল পরিচালক। রাজনীতি হয়েছে দুই ক্ষেত্রেই। এবার বিস্ফোরক কেন্দ্রীয় মন্ত্রী মুখতার আব্বাস নকভি।

সন্ধে ৭.০০: আইন প্রত্যাহার করবেন  কি না, অমিত শাহের কাছে জানতে চাইবেন কৃষক প্রতিনিধি দল। 

সন্ধে ৫.৪৬: পাঞ্জাবি সংগীতশিল্পী জস বাজওয়া কৃষক আন্দোলনে যোগ দিলেন।

দুপুর ৩.৫৪: বিজেপি-কংগ্রেস সংঘর্ষে জয়পুরে ধুন্ধুমার।

দুপুর ৩.৪২: বুধবার বিকেল ৫টায় রাষ্ট্রপতির সঙ্গে দেখা করবেন বিরোধীরা। থাকবেন রাহুল গান্ধী, শরদ পওয়ার-সহ ৫ জন।

দুপুর ৩.২৩: “কৃষকদের আন্দোলনকে সমর্থন করি। তাই তাঁদের সম্মান জানিয়ে তিনটের পর সভা শুরু করেছি”, রানিগঞ্জের সভা থেকে বললেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।
দুপুর ২.৫৭: আন্দোলনকারী কৃষকদের সঙ্গে আজ সন্ধেয় বৈঠক অমিত শাহের।
দুপুর ২.৫১: ভারত বন্‌ধ  এবং কৃষকদের আন্দোলন প্রসঙ্গে সুব্রত মুখোপাধ্যায় বলেন, “কৃষক ধর্মঘটকে আমরা সমর্থন জানিয়েছি। তৃণমূল কৃষকদের সঙ্গে আছে। আমাদের দলের কর্মসূচিও আছে গান্ধিমূর্তিতে। তবে বনধ আমরা সমর্থন করি না। শিলিগুড়িতে বিজেপি যা করছে তা কৃষক আন্দোলন থেকে মুখ ঘোরানোর জন্য।”
দুপুর ২.০৬: কৃষকদের আন্দোলনকে সমর্থনে অনশনে আন্না হাজারে। 

দুপুর ১.৪৮: কৃষিমন্ত্রী নরেন্দ্র সিং তোমরের বাড়িতে হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রী মনোহরলাল খট্টর। 


দুপুর ১.৪৫: পুদুচেরিতে মিছিল কংগ্রেসের।

দুপুর ১.৪২: বন্‌ধের জেরে বেলঘরিয়া এক্সপ্রেসওয়েতে আটকে পড়ল করোনা রোগীর অ্যাম্বুল্যান্স। প্রায় ঘণ্টাখানেক ধরে হেনস্তার শিকার হন রোগী।
দুপুর ১.৩৮: মধ্যমগ্রামের চৌমাথায় যান চলাচলে বাধা বন্‌ধ সমর্থনকারীদের। বাধা দিতে গেলে পুলিশের সঙ্গে হাতাহাতি। ঘণ্টাদেড়েক ধরে চলে অবরোধ। 

দুপুর ১.৩৭: ভারত বন্‌ধের সমর্থনে বেহালায় টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ। 

দুপুর ১.১৬: আন্দোলনরত কৃষকদের সম্মান জানাতে দিল্লির সরোজিনী নগরে হাতে কালো ফিতে বেঁধে কাজ করলেন ব্যবসায়ীরা।

দুপুর ১.০৩: শিলিগুড়িতে তৃণমূল-বিজেপি হাতাহাতি। এমজি মোডে যুব মোর্চা রাস্তা আটকানো হয়। টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ দেখায় যুব মোর্চা। আগুন লাগিয়ে দেওয়া হল মুখ্যমন্ত্রীর পোস্টারে। ২৫ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। 

বেলা ১২.৩৭: কোচবিহার জেলা পরিষদ দপ্তর ভাঙচুরের অভিযোগ উঠল বিজেপির বিরুদ্ধে।

বেলা ১২.২৫: মহারাষ্ট্রে খোলা দোকানপাট। স্বাভাবিক যানচলাচল।

বেলা ১২.২১: দলীয় কর্মী মৃত্যুর প্রতিবাদে বালুরঘাটে এনবিএসটিসি স্ট্যান্ডের সামনে বিক্ষোভ বিজেপির।
বেলা ১২.০৪: ভারত বন্‌ধের সমর্থনে পথে নেমে হিলকার্ট রোডে সিপিএম দলীয় কার্যালয়ে অনিল বিশ্বাস ভবনের সামনে ক্রিকেট খেললেন শিলিগুড়ির বিধায়ক তথা পৌর প্রশাসক মণ্ডলীর চেয়ারম্যান অশোক ভট্টাচার্য।

বেলা ১২.০৩: বন্‌ধের সমর্থনে তেলেঙ্গানাতেও চলছে ব্যাপক বিক্ষোভ।

বেলা ১১.৫৯: রিষড়ায় কুড়ি মিনিটের জন্য রেল অবরোধ সিপিএম ও কংগ্রেসের। ১০ মিনিটের জন্য জিটি রোড অবরোধ করেন তাঁরা। বন্ধ করে দেওয়া হয় ওয়েলিংটন জুটমিল।

বেলা ১১.৪৬: গাজিপুর-গাজিয়াবাদ সীমান্তে বিক্ষোভ কৃষক সংগঠনের।

বেলা ১১.৩৪: মোহালিতে বিক্ষোভ বন্‌ধ সমর্থকদের।

বেলা ১১.১৭: কৃষি আইন কৃষকদের শেষ করে দেবে, মন্তব্য মুম্বইয়ের ডাব্বাওয়ালা অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতির।

বেলা ১১.০৬: গুয়াহাটির জনতা ভবনের কাছ থেকে বেশ কয়েজনকে আটক করল পুলিশ। 

বেলা ১১.০৩: মোদি কৃষকদের কথা শুনলেও কংগ্রেস কিছুই করেনি, দাবি প্রকাশ জাভড়েকরের।

সকাল ১০.৫৭: দিল্লির মুখ্যমন্ত্রীকে ‘গৃহবন্দি’ করা হয়নি, দাবি দিল্লির ডিসিপি নর্থের। 

সকাল ১০.৩৩: সিঙ্ঘু সীমান্তে কৃষকদের সঙ্গে দেখা করায় দিল্লি পুলিশ অরবিন্দ কেজরিওয়ালকে ‘গৃহবন্দি’ করে রেখেছে।

সকাল ১০.৩২: রাঁচিতে বিক্ষোভ ভারত বন্‌ধ সমর্থনকারীদের।

সকাল ১০.৩০: বিশাখাপত্তনমে রাস্তায় বিক্ষোভ এসএফআইয়ের।

সকাল ১০.১৯: টায়ার জ্বালিয়ে যাদবপুরে বিক্ষোভ বামেদের। 

সকাল ১০.১৪: হৃদয় থাকলে আন্দোলনরত কৃষকদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী কিংবা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কথা বলা উচিত জানালেন সঞ্জয় রাউত।

সকাল ১০.০৫: আসানসোলের মিছিল সিটুর।

সকাল ১০.০১: বিহারের দ্বারভাঙায় টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ আরজেডি সমর্থকদের।

সকাল ৯.৫৬: কর্ণাটকের ভারত বন্‌ধের সমর্থনে বিক্ষোভ কংগ্রেসের।

সকাল ৯.৪৯: বন্‌ধের দিন শান্তি বজায় রাখার আরজি তেলেঙ্গানার রাজাকোন্ডা পুলিশের।

সকাল ৯.৪৬: কর্ণাটকের কালবুর্গিতে স্লোগান বামেদের।

সকাল ৯.৪৪: শান্তিপূর্ণভাবে বন্‌ধ পালনের আরজি উত্তরপ্রদেশের গৌতম বুদ্ধ নগরের অ্যাডিশনাল এসপি লাভ কুমারের।

সকাল ৯.২০: বাম কংগ্রেসের ডাকা সাধারণ ধর্মঘট ঘিরে পূর্ব বর্ধমানের আউশগ্রামের বড়াচৌমাথায় ২ বি জাতীয় সড়ক অবরোধ করলেন সিপিএম কর্মীসমর্থকরা। এদিন অবরোধের জেরে বর্ধমান সিউড়ি রোডে আটকে পড়ে কিছু যানবাহন। ভাতারের বনপাশ অঞ্চল এলাকা, আউশগ্রামের বিল্বগ্রাম অঞ্চল এলাকার মিলে বেশ কয়েকটি গ্রাম থেকে সিপিএমের কর্মীসমর্থকরা বড়াচৌমাথায় জড়ো হন। তারপর শুরু হয় জাতীয় সড়ক অবরোধ।

সকাল ৯.২০: তেলেঙ্গানার কামারেড্ডিতে বিক্ষোভ।

সকাল ৯.১৪: যাদবপুরে রেল অবরোধ বামেদের।

সকাল ৯.০৭: পাটনায় বিশাল পুলিশবাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে।

সকাল ৯.০৫: হরিয়ানা-দিল্লি বর্ডারে মোতায়েন বিশাল পুলিশবাহিনী।

সকাল ৯.০১: অন্ধ্রপ্রদেশের পার্বতীপুরমের ভিজিয়ানাগরমে বিক্ষোভ বাম সংগঠনের।

সকাল ৮.৫০: বিজেপির ডাকা বন্‌ধে অশান্তি যাতে না হয় তাই শিলিগুড়িতে বাড়ানো হল নিরাপত্তা।

সকাল ৮.৪৮: বিজেপির ডাকা বন্‌ধে কোচবিহার বাস টার্মিনাসে ধস্তাধস্তি। মাথাভাঙায় টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ।

সকাল ৮.৪৩: পুনের এপিএমসি মার্কেট খোলা।

সকাল ৮.৩৮: দিল্লি ট্রাফিক পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে দৌরালা, কাপাশেরা, রাজোকরি এনএইচ ৮, বিজওয়াসন/বাজঘেরা, পালাম বিহাপ এবং ধুন্ধেরা বর্ডার খোলা থাকবে।

সকাল ৮.২৯: সম্পূর্ণ শান্তিপূর্ণভাবে ভারত বন্‌ধ করা হবে, দাবি ভারতীয় কিষাণ ইউনিয়নের মুখপাত্রের।

সকাল ৮.১৭: দিল্লির বুরারির নিরানকারি সমাগম গ্রাউন্ডে প্রার্থনা কৃষকদের।

সকাল ৮.০৮: অন্ধ্রপ্রদেশের বিজয়ওয়াড়াতেও বিক্ষোভ ভারত বন্‌ধ সমর্থনকারীদের।

সকাল ৮.০৩: ওড়িশার ভুবনেশ্বর স্টেশনে ট্রেন অবরোধ বাম ও কৃষক সংগঠনগুলির। 

সকাল ৭.৪৫: যাদবপুর এইট বি বাসস্ট্যান্ডের কাছে বামপন্থী সংগঠনের জমায়েত।

সকাল ৭.৪২: ওসমানিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের সমস্ত পরীক্ষা স্থগিত করা হল।

সকাল ৭.৩৮: মহারাষ্ট্রের বুলধানার মালকাপুরে রেল অবরোধ। পরে যদিও পুলিশ বিক্ষোভকারীদের হঠালে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। 


সকাল ৭.৩০: ধর্মতলায় মিছিল করেন বাম ছাত্র-যুব সংগঠন ডিওয়াইএফআইয়ের কর্মীরা।

Advertisement
Next