Advertisement

ফের যোগীরাজ্যে নৃশংসতা! নাবালিকাকে লাগাতার ধর্ষণ বাবার, অন্যদের সঙ্গেও যৌন মিলনে জোর!

05:47 PM Oct 13, 2021 |

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মা-বাবাই সন্তানের কাছে সবচেয়ে নিরাপদ আশ্রয়। কিন্তু রক্ষকই যখন ভক্ষক হয়ে ওঠে, তখন যেন অস্তিত্বই সংকটে পড়ে যায়। তেমনই ঘটনা ঘটল একাদশ শ্রেণির নাবালিকা ছাত্রীর সঙ্গে। মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠল খোদ বাবার বিরুদ্ধে! শুধু তাই নয়, অন্যদের সঙ্গেও নাকি যৌন সম্পর্ক স্থাপনে জোর করেছে সেই ‘গুণধর’ বাবা। এমনই বিস্ফোরক অভিযোগ জানিয়েছে নির্যাতিতা। গোটা ঘটনায় এখনও পর্যন্ত ২৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা রুজু করা হয়েছে।

Advertisement

ঘটনাস্থল ফের সেই উত্তরপ্রদেশ (Uttar Pradesh)। যোগীরাজ্যের ললিতপুর জেলায় বাবার যৌন লালসার শিকার একাদশ শ্রেণির কিশোরী। অভিযোগকারিনী নিজের বয়ানে জানায়, ষষ্ঠশ্রেণিতে পড়াকালীনই তার উপর যৌন নির্যাতন শুরু করেছিল বাবা। তারপর একাধিকবার জন্মদাতার হাতেই ধর্ষিতা হতে হয়েছে। শুধু তাই নয়, ব্যবসার স্বার্থে অনেককে ডেকে আনত অভিযুক্ত বাবা। তারাও চালাত যৌন নির্যাতন। মুখ বুজে সহ্য করতে হয়েছে সব যন্ত্রণা। কারণ কিশোরীকে হুমকি দিয়েছিল বাবা। বলেছিল, ধর্ষণের ঘটনা কাউকে বললেই তার মা’কে খুন করা হবে। অবশেষে পুলিশকে গোটা ঘটনা জানাতে পেরেছে সে।

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1630720090-3');});

[আরও পড়ুন: মার্চের মধ্যেই করোনার টিকা পাবেন সব প্রাপ্তবয়স্করা, রাজ্যগুলিকে ফোনে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রীর]

পুলিশ জানাচ্ছে, অভিযোগকারিনীর তালিকায় তার বাবার পাশাপাশি উঠে এসেছে সমাজবাদী পার্টির (SP) জেলা সভাপতি তিলক যাদব, তাঁর তিন ভাই, BSP জেলা সভাপতি দীপক অহির্ভর, সহ-সভাপতি নীরজ তিওয়ারি এবং তাঁর পরিবারের বেশ কয়েকজনের নামও। নির্যাতিতার অভিযোগের ভিত্তিতে এখনও পর্যন্ত ২৮ জনের বিরুদ্ধে POCSO আইন-সহ ভারতীয় দণ্ডবিধির একাধিক ধারায় মামলা রুজু হয়েছে। ললিতপুরের ASP গিরিজেশ কুমার জানিয়েছেন, নির্যাতিতার সমস্ত বয়ান খতিয়ে দেখার পরই ২৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা রুজু হয়েছে। পাশাপাশি নাবালিকার মেডিক্যাল পরীক্ষাও করা হবে। গোটা বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

লাগাতার যৌন নির্যাতনের শিকার নাবালিকা এখনও মানসিক ট্রমা কাটিয়ে উঠতে পারেনি। আরও একবার প্রশ্ন উঠছে যোগীরাজ্যে মেয়েদের নিরাপত্তা নিয়েও।

[আরও পড়ুন: অভিযুক্তকে জেরার সময় হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু উল্টোডাঙা থানার সাব ইনস্পেক্টরের]

Advertisement
Next