Advertisement

অফিসে বসেই দেদার মদ্যপান সরকারি আধিকারিকদের, চাঞ্চল্য যোগীরাজ্যে

08:10 PM Apr 21, 2019 |

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: অফিসে বসেই অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করছিলেন চারজন সরকারি আধিকারিক। তার ফাঁকেই একজন আবার টেবিলের ড্রয়ারে লুকিয়ে রাখা গ্লাসে ঢালছিলেন মদ। এই সময়ের একটি ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়াতে ভাইরাল হতেই একজনকে তাড়িয়ে দেওয়ার পাশাপাশি বাকিদের সাসপেন্ড করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তরপ্রদেশের আলিগড়ে পরিবহণ দপ্তরের এক অফিসে।

Advertisement

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

[আরও পড়ুন-মহারাষ্ট্রে বিজেপির মাথাব্যথার কারণ রাজ ঠাকরের বিশাল ‘অরাজনৈতিক’ জনসভা]

ভাইরাল হওয়া ওই ভিডিওটিতে দেখা গিয়েছে, অফিসের মধ্যে বসে কাজ করতে করতেই নিজেদের মধ্যে অশ্লীল ভাষায় কথা বলছেন ওই চার আধিকারিক। আর তাঁদের মধ্যে একজন আবার সামনে থাকা টেবিলের ড্রয়ার থেকে মাঝে মাঝে একটি গ্লাস বের করে তাতে ঢালছেন মদ। দেখে মনে হচ্ছে এই কাজে বেশ অভ্যস্ত তাঁরা।

[আরও পড়ুন-‘দেশ ভালবাসেন না’, বিজেপিতে যোগ দিয়েই সোনিয়াকে আক্রমণ প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর]

প্রথমে বিষয়টি নিয়ে কোনও পদক্ষেপ না নেওয়া হলেও ভিডিওটি ভাইরাল হতে নড়েচড়ে বসে প্রশাসন। তারপর শনিবার ওই চারজনের মধ্যে একজনকে চাকরি থেকে তাড়িয়ে দেওয়ার পাশাপাশি বাকিদের সাসপেন্ড করা হয়েছে বলে জানানো হয়।

[আরও পড়ুন-সন্তানকে বাঁচাতে চিতাবাঘের উপর ঝাঁপালেন মহিলা! সাহস আর বুদ্ধিকে কুর্নিশ]

এপ্রসঙ্গে আলিগড় পরিবহণ দপ্তরের অ্যাসিস্ট্যান্ট রিজিওনাল অ্যাডমিনিস্ট্রেটর জানান, চারজন আধিকারিককে গ্লাসে মদ ঢালতে দেখা গিয়েছিল। তাঁদের মধ্যে একজনকে তাড়িয়ে দেওয়ার পাশাপাশি বাকি তিনজনকে সাসপেন্ড করা হয়েছে।

[আরও পড়ুন-বিমানবন্দরেই প্রসব, ভারতীয় মহিলাকে সাহায্যের নজির রাখলেন দুবাইয়ের মহিলা পুলিশ]

বিষয়টি প্রকাশ্যে আসার পরেই যোগী সরকারের সমালোচনায় মুখর হয়ে উঠেছে বিরোধীরা। তাদের অভিযোগ, মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ রাজ্য থেকে দুষ্কৃতীদের সাফাই করার কথা বুক ঠুকে বললেও, সর্ষের মধ্যেই ভূত লুকিয়ে আছে। তাই তাঁর শাসনকালে কখনও প্রকাশ্যে মদ্যপান করতে দেখা যাচ্ছে পুলিশ কর্মীদের। আবার কখনও পরিবহণ দপ্তরে বসেই মদ্যপান করছে কর্মচারীরা।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

The post অফিসে বসেই দেদার মদ্যপান সরকারি আধিকারিকদের, চাঞ্চল্য যোগীরাজ্যে appeared first on Sangbad Pratidin.

Advertisement
Next