ওড়িশায় ৫৬৫ কোটি টাকার চিটফান্ড জালিয়াতি! কলকাতায় CBI-এর হাতে গ্রেপ্তার ৪

02:24 PM Sep 28, 2022 |
Advertisement

অর্ণব আইচ : ওড়িশার (Odisha) চিটফান্ড মামলায় (Chit Fund Case) সিবিআইয়ের (CBI) হাতে কলকাতা থেকে গ্রেপ্তার চার। তার মধ্যে একজন প্রাক্তন ডেপুটি রেজিস্ট্রার অফ কোম্পানিজ। সিবিআই সূত্রে জানা গিয়েছে, ধৃত ওই সরকারি কর্তার নাম শুভকুমার বন্দ্যোপাধ‌্যায়। বাকিরা হচ্ছেন উত্তম মুন্সি, লক্ষ্মণ শ্রীনিবাসন ও স্বপন দে, যাঁরা দু’টি চিট ফান্ড ও শেয়ার ট্রেডিং সংস্থার কর্মকর্তা।

Advertisement

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782001027-0'); });

প্রাক্তন ডেপুটি রেজিস্ট্রার নিজের ক্ষমতাবলে বেআইনিভাবে চলা চিটফান্ড সংস্থাকে মান‌্যতা দেন বলে অভিযোগ। সেই সুবিধা পেয়ে ওই চিটফান্ড সংস্থাগুলি ওড়িশার আমানতকারীদের মোটা সুদে টাকা ফেরৎ দেওয়ার নাম করে ৫৬৫ কোটি টাকা হাতিয়ে নেয় বলে অভিযোগ। সংস্থার অফিস বন্ধ করে কর্মকর্তারা উধাও হয়ে যায়। ২০১৪ সালে ওড়িশার বালেশ্বরের বালিয়াপাল থানায় অভিযোগ দায়ের হয়। সিবিআই তদন্ত শুরু করে দু’দফায় ভুবনেশ্বরের (Bhubaneswar) আদালতে চার্জশিট দাখিল করে। তারই ভিত্তিতে মঙ্গলবার চার জায়গায় তল্লাশি চালিয়ে চারজনকে গ্রেপ্তার করে সিবিআই।

window.unibots = window.unibots || { cmd: [] }; unibots.cmd.push(()=>{ unibotsPlayer('sangbadpratidin'); });

[আরও পড়ুন: পুজোয় মোবাইল চোরদের বাড়বাড়ন্ত, সতর্ক থাকুন, পরামর্শ কলকাতা পুলিশের]

এদিকে, এক লাখ টাকার ঘুষ নেওয়ার অভিযোগে মুম্বইয়ে (Mumbai) কর্মরত সেন্ট্রাল রেলওয়ের প্রিন্সিপাল চিফ মেকানিক‌্যাল ইঞ্জিনিয়ার, তাঁর গাড়ির চালক ও কলকাতার এক বেসরকারি সংস্থার কর্তাকে সিবিআই গ্রেপ্তার করে। একটি সংস্থার বকেয়া বিলের টাকা পাইয়ে দেওয়ার জন‌্য এক লাখ টাকা ঘুষ হিসাবে দাবি করা হয়। ওই রেলকর্তার চালক মুম্বইয়ের বান্দ্রার কাছ থেকে ঘুষ নিয়ে টাকা কলকাতার ব‌্যবসায়ীর কাছে পাঠান। মুম্বই, কলকাতা সহ দেশের দশটি শহরে তল্লাশি চালিয়ে ২৩ লাখ টাকা, ৪০ লাখ টাকার গয়না, ১৩ কোটি টাকার সম্পত্তি, দু’লাখ ডলার উদ্ধার করা হয় বলে জানিয়েছে সিবিআই।

এদিকে মঙ্গলবার প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ মামলায় নতুন করে সিবিআই তদন্তের নির্দেশ দিয়েও তদন্তকারী সংস্থার ভূমিকা নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন কলকাতা হাই কোর্টের বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় (Abhijit Gangopadhyay)। উল্লেখ করেন, খাঁচাবন্দি তোতাপাখির প্রসঙ্গ। প্রাথমিক টেটের ওএমআর শিট নষ্টের অভিযোগে সিবিআই তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়।

Advertising
Advertising

googletag.cmd.push(function() { googletag.display('div-gpt-ad-1652782050143-0'); });
Advertisement
Next