Advertisement

সিনেমার জনপ্রিয় সংলাপে হিংসা ছড়ায় কি? মিঠুনের মামলায় সন্দেহ প্রকাশ হাই কোর্টের

04:35 PM Jul 28, 2021 |
Advertisement
Advertisement

শুভঙ্কর বসু: জনপ্রিয় সিনেমার ডায়লগ বলে বঙ্গ ভোটে উসকানি দেওয়ার অভিযোগ উঠেছিল বিজেপির তারকা সদস্য ‘মহাগুরু’ মিঠুন চক্রবর্তীর (Mithun Chakraborty) উপরে। গোটা ঘটনাকে কেন্দ্র করে পুলিশে অভিযোগ দায়ের হয়েছিল। শেষপর্যন্ত জল গড়ায় আদালতে। বুধবার সেই মামলার শুনানিই ছিল কলকাতা হাই কোর্টের (Calcutta HC) বিচারপতি কৌশিক চন্দের বেঞ্চে। সেখানেই বিচারপতির পর্যবেক্ষণে কিছুটা হলেও স্বস্তিতে মিঠুন চক্রবর্তী। এমনটাই মত, আইনজীবীদের একাংশের।

Advertisement

এদিন শুনানি চলাকালীন মিঠুন চক্রবর্তীর উসকানি মূলক মন্তব্যে নিয়ে বিচারপতি চন্দ নিজের পর্যবেক্ষণে, সিনেমার সংলাপ থেকে যে অশান্তি ছড়াতে পারে, তা নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেন। জানান, সিনেমার জনপ্রিয় সংলাপ থেকে যে অশান্তি ছড়াতে পারে, তা নিয়ে তাঁর সন্দেহ রয়েছে। এরপরই শোলে সিনেমায় ‘গব্বর’ তথা আমজাদ খানের সংলাপের প্রসঙ্গও তুলে ধরেন। বলেন, শোলে সিনেমায় আমজাদ খানের বিখ্যাত সংলাপও অমর হয়ে রয়েছে। এছাড়া আরও অনেক সিনেমাতে এই ধরনের একাধিক সংলাপ রয়েছে। এরকমই কোনও সিনেমার জনপ্রিয় সংলাপ থেকে যে হিংসা বা উসকানি ছড়াতে পারে, তা নিয়ে তাঁর সন্দেহ রয়েছে। আর বিচারপতি চন্দের এই পর্যবেক্ষণের পরই আইনজীবীদের একাংশে মত, এই মামলায় হয়তো আগামিদিনে ‘স্বস্তি’ পেতেই পারেন মিঠুন চক্রবর্তী। তবে এই পর্যবেক্ষণের পাশাপাশি তদন্তে কী কী অগ্রগতি হয়েছে, সেই সম্পর্কিত তথ্যও পুলিশের কাছে জানতে চেয়েছেন বিচারপতি কৌশিক চন্দ। মামলার পরবর্তী শুনানি আগামী মঙ্গলবার। সেদিনই পুলিশকে রিপোর্ট জমা দিতেও বলা হয়েছে।

[আরও পড়ুন: Post Poll violence: NHRC’র ৯৫১ পাতা রিপোর্ট খতিয়ে দেখতে রাজ্যকে আরও সময় দিল হাই কোর্ট]

মন্তব্য-পালটা মন্তব্যে সরগরম ছিল একুশের বিধানসভা ভোট (WB Election 2021)। প্রচারের মাইক হাতে পেয়ে অনেকেই সুর চড়িয়েছিলেন। ব্যতিক্রম ছিলেন না বিজেপিতে যোগ দেওয়া মিঠুন চক্রবর্তীও। একুশের বিধানসভা ভোটের আগে বিজেপির ব্রিগেড মঞ্চে কৈলাস বিজয়বর্গীয়, মুকুল রায় (Mukul Roy), শুভেন্দু অধিকারীদের উপস্থিতিতে গেরুয়া শিবিরে যোগ দিয়েছিলেন তিনি। সেই মঞ্চে তাঁর মুখে শোনা গিয়েছিল, “আমি জলঢোঁড়াও নই, বেলেবোড়াও নই। আমি জাত গোখরো, এক ছোবলে ছবি।” এই ধরনের মন্তব্যের জেরেই ৬ মে মানিকতলা থানায় মিঠুন চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে FIR করা হয়। সেই মামলাই গড়ায় আদালতে। যদিও কৌশিক চন্দের এজলাসে মামলাটি চলা নিয়ে শুরু থেকেই আপত্তি ছিল মামলাকারীর। সেক্ষেত্রে বিচারপতির বিজেপি যোগের বিষয়টি নিয়ে অনেকেই আপত্তি জানান। যদিও শেষপর্যন্ত তাঁর এজলাসেই মামলাটি চলছে।

[আরও পড়ুন: Covid-19: টিকাকরণে গাফিলতি বরদাস্ত নয়, কড়া নির্দেশিকা জারি রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তরের]

Advertisement
Next