Advertisement

বছরের শুরুতেই তৎপর জোট নেতৃত্ব, ফেব্রুয়ারিতে ব্রিগেডে যৌথ সমাবেশ বাম-কংগ্রেসের

04:13 PM Jan 03, 2021 |
Advertisement
Advertisement

বুদ্ধদেব সেনগুপ্ত: বাম-কংগ্রেস (Left-Congress) জোট কর্মসূচির আনুষ্ঠানিক দামামা বাজতে চলেছে ফেব্রুয়ারিতেই। একুশে বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি ও তৃণমূল বিরোধী লড়াই হাতে হাত ধরে লড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্যের প্রধান দুই বিরোধী দল সিপিএম এবং কংগ্রেস। দু’দলের শীর্ষ নেতৃত্বের কাছ থেকে অনুমোদন পাওয়ার পর এবার মাঠে নেমে গা ঘামানোর পালা। রবিবার, সিপিএমের মুখপত্র ‘গণশক্তি’র অফিসে যৌথ কর্মসূচি, আসন বণ্টন-সহ একাধিক বিষয় নিয়ে প্রাথমিকভাবে আলোচনা সারলেন কংগ্রেস সাংসদ প্রদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়, বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু এবং সিপিএম সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি। সূত্রের খবর, আলোচনা হয়েছে ফেব্রুয়ারিতে ব্রিগেডে যৌথ সমাবেশ নিয়েও।

Advertisement

রবিবার ছিল ‘গণশক্তি’র ৫৪ তম প্রতিষ্ঠা দিবস। সেই উপলক্ষে এদিন কলকাতায় এসেছেন সিপিএম সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি (Sitaram Yechuri)। ‘গণশক্তি’র দপ্তরে গিয়েছিলেন শুভেচ্ছা জানাতে। সঙ্গে ছিলেন বিমান বসুও। প্রায় একই সময়ে সেখানে শুভেচ্ছা জানাতে যান বর্ষীয়ান কংগ্রেস নেতা প্রদীপ ভট্টাচার্য।

[আরও পড়ুন: টুইটে ‘বর্ধমান’ বানান ভুল, নেটদুনিয়ায় হাসির খোরাক রাজ্যপাল]

সীতারাম ইয়েচুরি এবং বিমান বসুর সঙ্গে প্রাথমিক কুশল বিনিময়ের পর তিনজনের মধ্যে জোট নিয়ে প্রাথমিক আলোচনা হয়েছে বলে খবর। আগামী ফেব্রুয়ারিতে ব্রিগেডে (Brigade Parade Ground) সমাবেশের পরিকল্পনা আগেই ছিল বামেদের তরফে। তা কংগ্রেসের সঙ্গে যৌথভাবেই করা হবে বলে স্থির হয়েছে প্রাথমিকভাবে। সম্ভবত ফেব্রুয়ারির দ্বিতীয় সপ্তাহে ব্রিগেড প্যারেড গ্রাউন্ডে যৌথ সমাবেশ করে জোট কর্মসূচির আনুষ্ঠানিক সূচনা করবেন বিমান বসু, অধীর চৌধুরীরা। সূত্রের খবর, সিপিএম নেতারা ব্রিগেডে সোনিয়া গান্ধী, রাহুল গান্ধীকে আমন্ত্রণ জানাতে চান বলে এদিন প্রদীপ ভট্টাচার্যকে জানিয়েছেন।

[আরও পড়ুন: বিমানবন্দরে দেওয়া ঠিকানা ভুয়ো, নিরুদ্দেশ লন্ডন থেকে কলকাতায় ফেরা ২০ যাত্রী]

এদিকে, একুশের ভোটে বাম-কংগ্রেসের আসন বণ্টন কীভাবে হবে, তা স্থির করতে সিপিএমের সদর দপ্তর আলিমুদ্দিন স্ট্রিটের কার্যালয়ে রাজ্য কমিটির (CPM State Committee) বৈঠক শুরু হয়েছে। দু’দিনের বৈঠকে জেলা থেকে পাওয়া রিপোর্টের ভিত্তিতে ঠিক হবে, কোথায় কোন আসন কংগ্রেসকে ছাড়া হবে আর কোথায় কোথায় সিপিএম লড়বে। জোটে সিলমোহর পাওয়ার পরই জেলা কমিটিগুলোকে এই সংক্রান্ত রিপোর্ট পাঠানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল আলিমুদ্দিন থেকে।

সূত্রের খবর, প্রতিটি জেলা থেকেই সেই রিপোর্ট এসে পৌঁছেছে। দু’দিনের রাজ্য কমিটির বৈঠকে সেসব হাতে নিয়েই আসন বণ্টনের আলোচনা হবে। বামেদের তরফে প্রাথমিকভাবে তা স্থির করার পর প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীররঞ্জন চৌধুরীর সঙ্গে আলোচনায় বসে বাকিটা চূড়ান্ত করা হবে বলে খবর। পাশাপাশি, এই রাজ্য কমিটির বৈঠকে ব্রিগেড সমাবেশের দিনক্ষণও চূড়ান্ত হওয়ার সম্ভাবনা প্রবল। সবমিলিয়ে, একুশের শুরুতেই জোটের তৎপরতা বাড়ল।

Advertisement
Next