লাল-গোলাপি নয়, প্রেম সপ্তাহে সমাদৃত রহস্যে ঘেরা ‘নীল’-‘সবুজ’ গোলাপ!

04:42 PM Feb 11, 2024 |
Advertisement

বিশ্বজ্যোতি ভট্টাচার্য, শিলিগুড়ি: প্রেম নিবেদনের ভাষা কি এবার নীল অথবা সবুজ গোলাপ! সেটাও রং করা নকল!

Advertisement

গোলাপ দিবসের পর ভ্যালেন্টাইনস সপ্তাহ যাপনের উচ্ছ্বাসে তরতাজা উত্তরের ফুলের বাজার অন্তত তেমনই আভাস দিচ্ছে। এতদিন গভীর প্রেমের প্রতীক ছিল ‘লাল গোলাপ’। সেই সাবেকি মিথ ভেঙে প্রেম নিবেদনে এবার ইতিমধ্যে সমাদর পেতে শুরু করেছে রহস্যের প্রতীক রং করা ‘নীল গোলাপ’ এবং ভাগ্যের প্রতীক ‘সবুজ গোলাপ’। এখানেই শেষ নয়। এবার বাঙালির ভ্যালেন্টাইন্স ডে সরস্বতী পুজো এবং ইংরেজি ভ্যালেন্টাইন্স ডে একই দিনে পড়েছে। দুইয়ের যুগলবন্দীর ধাক্কা সামলাতে ইতিমধ্যে প্রেমের দুনিয়ায় দামের আগুনে হাত পুড়তে শুরু করেছে কপোত-কপোতীদের।

অকপটে বলেছেনও অনেকে। যেমন, সেবক রোডের ফুল বাজারে অষ্টাদশী রিমঝিম সাহা বলে, “এতো দাম! ভেবেছিলাম কয়েক রংয়ের ফুল নেব। সম্ভব হল না।” শিলিগুড়ি এসএফ রোড, সেবক রোডের ফুল বিক্রেতাদের সূত্রে জানা গিয়েছে, জানুয়ারি মাসে যে গোলাপ কলি দশ থেকে কুড়ি টাকায় মিলেছে এখন সেটাই চল্লিশ টাকা থেকে সত্তর টাকায় বিকোচ্ছে। ১৪ ফেব্রুয়ারি সরস্বতী পুজো অর্থাৎ ভ্যালেন্টাইন্স ডে-তে গোলাপের চাহিদা অন্য বছরের তুলনায় অনেক বাড়বে চিন্তা করে এবার ফুলের আমদানি বাড়িয়েছেন বিক্রেতারা। অন্তত সাতটি প্রজাতি গোলাপ বাজার ছেয়েছে।

[আরও পড়ুন: মনুয়া কাণ্ডের ছায়া অশোকনগরে, প্রেমিকের সঙ্গে ফন্দি এঁটে স্বামীকে ‘খুন’ যুবতীর!]

 

৭ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হয়েছে ‘ভ্যালেন্টাইন্স উইক’ অন্য অর্থে প্রেম সপ্তাহ যাপন। তাই ফুল কেনাকাটায় কিশোর-কিশোরী থেকে মাঝ বয়সীদের ভিড় ক্রমশ বাড়ছে। শিলিগুড়ি শহরের হাশমিচকের ফুল বিক্রেতা গৌতম পট্টনায়ক জানান, এখনও সত্তর টাকার মধ্যে গোলাপ মিলছে। ভ্যালেন্টাইন্স ডেতে সেটা একশো টাকা হয়ে গেলে অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না। কেন এভাবে লাফিয়ে দাম বাড়ছে? মেদিনীপুরের বাসিন্দা ফুল ব্যবসায়ী গৌতম সামন্ত বলেন, “আবহাওয়ার জন্য রাজ্যে খুব ভালো ফুল হয়নি। চাহিদা মেটাতে বেঙ্গালুরু, সিকিমের গোলাপের উপরে ভরসা করতে হচ্ছে। সেই গোলাপ আনাতে ভালো খরচ পড়ছে। তাই দাম বাড়ছে।”

 

 

[আরও পড়ুন: সিগারেট খেয়েও নন-স্মোকারদের মতোই বাঁচতে পারবেন! কী বলছে সাম্প্রতিক সমীক্ষা?]

এতদিন বাজারে লাল, হলুদ, গোলাপি, সাদা, কমলা, বেগুনি রংয়ের গোলাপ ছিল। এবারও আছে। তবে বেশি সমাদৃত নীল এবং সবুজ গোলাপ। বিক্রেতাদের কথায়, প্রেম নিবেদনে এবার ওই দুই বিরল বর্ণের গোলাপ বাজিমাত করে ছেড়েছে। দামেও চড়া। এখনই একটা কলি চল্লিশ থেকে ষাট টাকায় বিক্রি হচ্ছে। বিক্রেতাদের দাবি, ভ্যালেন্টাইন্স ডেতে দাম কোথায় ঠেকবে বলা মুশকিল। কিন্তু নীল ও সবুজ গোলাপ আসছে কোথা থেকে? খুব কম ব্যবসায়ী ‘টপ সিক্রেট’ খোলসা করছেন। কেউ বলছেন বেঙ্গালুরু, আবার কেউ জানাচ্ছেন সিকিম থেকে আসছে। সত্যি কি তাই?

শিলিগুড়ি কাছারি রোডের ফুল বিক্রেতা রতন সামন্ত প্রশ্ন শুনে একগাল হেসে জানান, ভেষজ রংয়ে সাদা গোলাপকে সবুজ অথবা নীল করা হয়। সেটা কেমন করে? ওই ফুল বিক্রেতার কথায়, না ফোটা ফুলের কলি কিছু সময় রংয়ের বালতিতে চুবিয়ে রেখে দেওয়া হয়। এরপর আধফোটা হতে সেটা এতটাই নিখুঁতভাবে নীল অথবা সবুজ রংয়ের পাপড়ি মেলতে শুরু করে কেউ বুঝতে পারবে না। তবে কি প্রেমের বাজারেও জালিয়াতি? পাশে দাঁড়ানো মাঝবয়সী মহিলার প্রশ্ন শুনে ফুল বিক্রেতা বিপুল দাস বলেন, “জালিয়াতি কেন হবে? রং ভেষজ। প্রত্যেকে চাইছে। পছন্দে পরিবর্তন এসেছে। তাই বাজারে চালু হয়েছে।” বিক্রেতার সাফাই শুনে মহিলা কী ভাবলেন বোঝা গেল না। তিনি চল্লিশ টাকায় নীল গোলাপ কিনে চলে গেলেন। বিপুলবাবু জানান, ভালোবাসার দিনে কেউ শোক জ্ঞাপনের প্রতীক সাদা এবং বিচ্ছেদের প্রতীক হলুদ গোলাপের দিকে ফিরেও তাকায় না। কিন্তু সেটা চালাতে হবে। তাই অনেকে রং করছে।

Advertisement
Next