Advertisement

করোনা টিকার দ্বিতীয় ডোজ নিতেই চুম্বকে পরিণত শরীর! আজব দাবি মহারাষ্ট্রের প্রৌঢ়ের

09:25 PM Jun 10, 2021 |
Advertisement
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: এ যেন কল্পবিজ্ঞানের গল্প। রাতারাতি ‘চুম্বক মানুষ’ হয়ে গিয়েছেন মহারাষ্ট্রের (Maharashtra) নাসিকের (Nasik) বাসিন্দা এক প্রৌঢ়। তাঁর দাবি, শরীরে স্টিলের চামচ, ছোট থালা ইত্যাদি বাসনকোসন ছোঁয়ালেই তা আটকে যাচ্ছে! করোনা টিকার (COVID vaccine) দ্বিতীয় ডোজ নেওয়ার পরই এই আজব ঘটনা ঘটতে শুরু করেছে বলে দাবি তাঁর। সেই দাবি ঘিরে শোরগোল পড়ে গিয়েছে নেট দুনিয়ায়।

Advertisement

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

নাসিকের শিবাজি চকের বাসিন্দা অরবিন্দ জগন্নাথ সোনার কিছুদিন আগেই করোনা টিকার দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছিলেন। তারপরেই তিনি আবিষ্কার করেন তাঁর শরীরে জন্ম নিয়েছে এক আশ্চর্য ক্ষমতা। তিনি হয়ে উঠেছেন মানুষরূপী আস্ত চুম্বক! গোড়ার দিকে বাড়ির লোকের বিশ্বাস হতে চায়নি স্বাভাবিক ভাবেই। তাঁরা মনে করেছিলেন, হয়তো ঘর্মাক্ত শরীরে আটকে যাচ্ছে থালা-চামচগুলি। কিন্তু দেখা যায় অরবিন্দ স্নান করে আসার পরে শুকনো শরীরেও একই ম্যাজিক! স্বাভাবিক ভাবেই হতভম্ব সকলে। একটি ভিডিও পোস্ট করে নিজের এই ‘ক্ষমতা’ প্রদর্শনও করেছেন তিনি। এমন আশ্চর্য ঘটনায় স্বাভাবিক ভাবেই এলাকায় ছড়িয়েছে চাঞ্চল্য।

[আরও পড়ুন: করোনা রোগীর কাছে পৌঁছতে এভাবেই খরস্রোতা নদী পেরলেন কোভিড যোদ্ধারা! ছবি ভাইরাল]

কিন্তু ঠিক কী করে ঘটছে এমনটা? এব্যাপারে এখনও কোনও উত্তর দিতে পারেননি চিকিৎসকরাও। নাসিকেরই চিকিযসক অশোক থোরাট এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলার সময় জানিয়েছেন, অরবিন্দবাবুর ঘটনার কথা তিনিও শুনেছেন। তবে পুরো বিষয়টি খতিয়ে না দেখে এব্যাপারে কোনও মন্তব্য করতে চাননি তিনি। তবে তিনি জানিয়েছেন, তাঁরা বিষয়টি মহারাষ্ট্র সরকারের কাছে পাঠাচ্ছেন। এরপর সরকারের নির্দেশমতো কাজ হবে।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

এই ঘটনায় অনেকেই উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। মহারাষ্ট্রে এমনিতেই টিকা নেওয়া নিয়ে নানা ভ্রান্তি তৈরি হয়েছে। অনেকেই নানা কুসংস্কারের কারণে টিকা নিতে চাইছেন না। এই পরিস্থিতিতে এই ধরনের ঘটনা আরও খারাপ প্রভাব ফেলবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। তাই এই ঘটনার আড়ালে থাকা আসল সত্যিটা প্রকাশ করা প্রশাসনের অবশ্য কর্তব্য বলেই মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।

[আরও পড়ুন: “ভগবানের আধার কার্ড আনুন!” মন্দিরের জমির ফসল বেচতে গিয়ে চূড়ান্ত হয়রানি পুরোহিতের]

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});
Advertisement
Next