Advertisement

দীর্ঘ ৫৭ বছর রোগী দেখে গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে নাম তুললেন ‘এক টাকার ডাক্তার’

08:34 AM Jul 17, 2020 |

ভাস্কর মুখোপাধ্যায়, বোলপুর: দীর্ঘ ৫৭ বছর রোগী দেখে গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে (Guinness World Record) নাম তুললেন এক টাকার ডাক্তার সুশোভন বন্দ্যোপাধ্যায়। বৃহস্পতিবার তাঁকে “লংগেষ্ট অ্যাওয়ারনেস রিবন” (Longest Awareness Ribbon) পুরস্কার দেওয়া হয়। গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ড কতৃপক্ষ বোলপুরের বাড়িতে এসে সুশোভনবাবুর হাতে এই পুরস্কার তুলে দেন। প্রসঙ্গত, কয়েক মাস আগে তিনি পদ্মশ্রী সম্মানে সম্মানিত হয়েছেন।

Advertisement

প্রতিদিন সকালে বাড়ির সামনে লম্বা লাইন। বীরভূম এবং আশেপাশের জেলা থেকে ভিড় জমান রোগীরা। কেউ পেটের রোগে ভুগছেন। তো কেউ আবার হৃদযন্ত্রের সমস্যায়। ভিড় করে থাকা অধিকাংশ মানুষ হতদরিদ্র পরিবারের। আর তাঁদের চিকিৎসা করে হাসিমুখে বাড়ি ফেরানোর দ্বায়িত্ব নিয়েছেন চিকিৎসক সুশোভন বন্দ্যোপাধ্যায়। কেউ বলে গরিবের ডাক্তার। আবার কেউ তাঁকে বলেন, এক টাকার ডাক্তার। কারণ, তিনি চিকিৎসা করতে কয়েক দশক ধরে রোগী পিছু এক টাকা ফি নিয়ে আসছেন।

[আরও পড়ুন: ভাল স্মার্টফোন নেই, অনলাইনে পড়াশোনা কীভাবে হবে ভেবে চিন্তায় মাধ্যমিকে কৃতী ছাত্রী]

সুশোভন বন্দ্যোপাধ্যায় বিশ্বভারতীর পাঠভবনের ছাত্র ছিলেন। পরে তিনি আরজি কর থেকে ১৯৬২ সালে ডাক্তারি পড়েন। উচ্চশিক্ষা লাভের জন্য তিনি লন্ডনেও যান। তাঁর প্রথম কর্মক্ষেত্র বিশ্বভারতীর পিয়ারসন মেমোরিয়াল হাসপাতাল। দীর্ঘদিন সেখানে ডাক্তারি করেছেন তিনি। গরিব মানুষদের জন্য সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন বরাবর। হাসপাতালে চাকরির পাশাপাশি নিজের বাড়িতে এক টাকা ফি নিয়ে রোগী দেখা শুরু করেন। ১৯৬৩ সাল থেকে আজও তিনি এভাবেই রোগী দেখে চলেছেন। শরীরে রোগ বাসা বেঁধেছে কিন্তু রোগীদের কাছ থেকে তাকে কেউ সরাতে পারেনি। প্রতিদিন সকাল থেকে সন্ধে পর্যন্ত কমপক্ষে ১৫০ জন করে রোগী দেখেন তিনি। গিনেস বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে নাম ওঠায় অত্যন্ত খুশি সুশোভন বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, “গিনেস বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডের পক্ষ থেকে ৫৭ বছর ধরে প্রতিদিন ১৫০ করে রোগী দেখার জন্য আমাকে সম্মান জানানো হয়েছে। এই সম্মানে আমি অভিভূত।” 

[আরও পড়ুন: রক্তে মিশে লড়াই, পুঞ্চা থানার প্রথম মহিলা ওসি হিসাবে দায়িত্ব সামলাচ্ছেন এই ‘লেডি সিংঘম’]

The post দীর্ঘ ৫৭ বছর রোগী দেখে গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে নাম তুললেন ‘এক টাকার ডাক্তার’ appeared first on Sangbad Pratidin.

Advertisement
Next