Advertisement

East Bengal: ‘ইনভেস্টরদের আচরণে আমরা দুঃখিত-বিরক্ত’, শ্রী সিমেন্টের চিঠি পেয়ে ক্ষুব্ধ মুখ্যমন্ত্রী

09:14 PM Aug 23, 2021 |

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: শ্রী সিমেন্ট ও ইস্টবেঙ্গলের (East Bengal) বিচ্ছেদ নিয়ে এবার মুখ খুললেন মুখ্য়মন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়! ইনভেস্টরদের বিরুদ্ধে কার্যত ক্ষোভ উগরে দিয়েই জানালেন, শেষ মুহূর্তে তাদের সরে দাঁড়ানোর বিষয়টি কোনওভাবেই মেনে নেওয়া যায় না। পাশাপাশি তিনি এও বলেন, ইস্টবেঙ্গল আইএসএলে খেললে তিনি খুশিই হবেন। সময় অল্প, তাও সবার মিলে এর সমাধান সূত্র খুঁজতে হবে।

Advertisement

সোমবার সাংবাদিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “একেবারে শেষ মুহূর্তে ইনভেস্টররা আমাকে চিঠি দিয়ে জানাচ্ছে তারা আর কিছু করতে পারবেন না। এটা অত্যন্ত খারাপ আচরণ। একটা ক্লাবকে এতদিন ধরে ঝুলিয়ে, তারপর শেষে বলছে আমি কিছু করতে পারব না, এর জন্য আমরা প্রত্যেকে দুঃখিত ও বিরক্ত। তাহলে আপনারা ছ’মাস, এক বছর ধরে কথা চালালেন কেন? এমনকী আমার সঙ্গেও দেখা করে বলে গিয়েছিল ১৬ তারিখে খুলে যাবে। তারপর এমন কী ঘটল? পিছনে কী রহস্য? যার জন্য তারা বলে দিচ্ছে পারব না চালাতে। ছেড়ে চলে যাচ্ছে!” এরপরই জুড়ে দেন, “ইস্টবেঙ্গল ক্লাবের একটা ঐতিহ্য আছে। আমরা চাই মোহনবাগান, ইস্টবেঙ্গল, মহামেডান-সহ ক্লাবগুলো আইএসএলে খেলুক। মোহনবাগান খেলছে বলে আমি খুশি, আমি চাই ইস্টবেঙ্গলও খেলুক। আমরা যে বিরক্ত, সেটা আমরাও ওদের জানাব। আর চেষ্টা করব, যদিও হাতে কম সময়। তবে আমার মনে হয়, ক্লাবের এমন সময়ে সবারই এগিয়ে আসা উচিত।”

[আরও পড়ুন: Tokyo Olympics: ব্রোঞ্জজয়ী ভারতীয় হকি দলের ১০ সদস্যকে বিরল সম্মান পাঞ্জাব সরকারের]

উল্লেখ্য, স্পোর্টিং রাইটস ক্লাবকে ফিরিয়ে দিচ্ছে বিনিয়োগকারী সংস্থাটি। সেই রাইটাস ছেড়ে দেওয়ার চিঠি পৌঁছে গিয়েছে মধ্যস্থতাকারীদের হাতেও। যে চিঠির কপি চলে গিয়েছে নবান্নেও। অর্থাৎ লাল-হলুদের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করার পথে জোরকদমে হাঁটতে শুরু করে দিয়েছে শ্রী সিমেন্ট (Shree Cement)। ইনভেস্টররা দেখতে চাইছে চিঠি হাতে পাওয়ার পরে মধ্যস্থতাকারীরা কী উত্তর দেয়। আজ রাত অথবা আগামিকালের মধ্যে ক্লাবে চূড়ান্ত চিঠি যাবে বলেই খবর।

চুক্তি নিয়ে ক্লাব ও বিনিয়োগকারী সংস্থার মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে সমস্যা চলছে। দুই পক্ষের সমস্যার সমাধানের জন্য মধ্যস্থতাকারীরা এগিয়ে এসেছেন। কিন্তু দিনের পর দিন কেটে যাচ্ছে। সমাধানের কোনও সূত্র মেলেনি। আর সেই কারণেই সম্পর্ক বিচ্ছেদের পথে হাঁটল তারা। তবে যেভাবে নবান্নে চিঠি দিয়ে সরে দাঁড়ানোর কথা বলা হয়েছে, তাতে মুখ্যমন্ত্রী যে বিরক্ত, তা স্পষ্ট জানিয়ে দিলেন তিনি। উল্লেখ্য, এর আগে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হস্তক্ষেপেরই ইনভেস্টর পেয়েছিল ইস্টবেঙ্গল। ফলে গত মরশুমে আইএসএলও খেলেছিল তারা। কিন্তু এবার লাল-হলুদের ভবিষ্যৎ এখনও বিশ বাঁও জলে। শোনা যাচ্ছে, সমস্যা মেটাতে আগামী বুধবার ইনভেস্টর ও ইস্টবেঙ্গল কর্তাদের সঙ্গে নবান্নে বৈঠকে বসবেন খোদ মুখ্যমন্ত্রী। তিনি কী পদক্ষেপ করেন, সেদিকেই তাকিয়ে ইস্টবেঙ্গল সমর্থকরা।

[আরও পড়ুন: Taliban Terror: আতঙ্কের মাঝেই বড় ঘোষণা রশিদ খানদের ক্রিকেট বোর্ডের]

Advertisement
Next