‘যে থালায় খাচ্ছেন, সেখানেই থুতু ফেলছেন!’, দাদার নিন্দুকদের তীব্র কটাক্ষ রোনাল্ডোর বোনের

12:22 PM Dec 08, 2022 |
Advertisement

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বান্ধবীর পরে দুই বোন। রোনাল্ডোকে বাদ দিয়ে প্রথম একাদশ নামানোর পরে নিন্দায় সরব হয়েছেন সিআর সেভেনের (Christiano Ronaldo) কাছের মানুষরা। নিন্দুকদের একহাত নিয়ে রোনাল্ডোর বোন এলমা আভেইরো বলেছেন, যারা দাদার নিন্দা করছে, তারা আসলে নিজের খাবারের থালাতেই থুতু ফেলছে। পর্তুগিজ মহাতারকার আরেক বোনের মতে, দলে যখন রোনাল্ডো এতটাই অপ্রয়োজনীয়, তাহলে তো কাতারে থাকার দরকারই নেই। বরং দেশে ফিরে এসে পরিবারের সঙ্গে বসে খেলা দেখুন তিনি। প্রসঙ্গত, পর্তুগালের কোচ ফের্নান্দো স্যান্টোসকে কটাক্ষ করে বার্তা দিয়েছিলেন রোনাল্ডোর বান্ধবী জর্জিনা রডরিগেজ।

Advertisement

ইনস্টাগ্রামে একটি পোস্ট করে এলমা বলেছেন, “পর্তুগাল এগিয়ে যাক। অন্যদিকে একজন বেঞ্চে বসে থেকে অন্যদের মাঠে নেমে খেলার সুযোগ করে দিয়েছে। আমরা ম্যাচ জিতে গিয়েছি, এখন পরের খেলায় মন দেওয়া দরকার। যে সমস্ত ভণ্ড সমালোচক রয়েছেন, তাঁদের জন্য আমার একটাই কথা বলার আছে। যে থালা থেকে আপনারা খাচ্ছেন, সেই থালাতেই থুতু ফেলবেন না। পর্তুগালের জন্য রোনাল্ডোর যা অবদান, সেটা কোনওদিন মুছে ফেলা যাবে না। আমার দাদা যা কিছু করেছে, তার জন্য আমি গর্বিত।”

[আরও পড়ুন: স্পেনকে হারিয়ে প্যালেস্টাইনের পতাকা নিয়ে উদযাপন, ফিফার শাস্তির কবলে কি পড়বে মরক্কো?]

সিআর সেভেনের আরেক বোন কাতিয়া আভেইরো আবার ঝাঁজালো আক্রমণ শানিয়েছেন পর্তুগাল টিম ম্যানেজমেন্টের দিকে। বিশাল একটি বার্তায় তিনি বলেছেন, “তরুণদের দাপটে পর্তুগাল জিতে গিয়েছে, খুব ভাল কথা। অনেকেরই মত, রোনাল্ডোকে ছাড়াই ভাল খেলছে দল। সেটা শুনতেও খুব খারাপ লাগছে। তাই আমার মনে হয়, এই মুহূর্তে জাতীয় দল ছেড়ে দেশে ফিরে আসুক রোনাল্ডো। আমাদের সঙ্গে বসে খেলা দেখুক, তাহলে আমরা ওকে জড়িয়ে ধরে বলতে পারব, সব কিছু ঠিক আছে। চিন্তা করার কোনও কারণ নেই।” প্রসঙ্গত, সুইজারল্যান্ড ম্যাচের আগে পর্তুগিজ ফুটবল ভক্তদের ৭০ শতাংশের দাবি ছিল, রোনাল্ডকে বসিয়ে দেওয়া হোক। তাই অভিমানি বোনের দাবি, তাহলে পরিবারের সান্নিধ্যেই থাকুন রোনাল্ডো, তাঁকে ছাড়াই এগিয়ে যাক দল।

Advertising
Advertising

প্রসঙ্গত, ম্যাচের পরেই স্যান্টোসকে একহাত নিয়েছিলেন রোনাল্ডোর বান্ধবী জর্জিনা রডরিগেজ। ইনস্টাগ্রামে তিনি লিখেছেন, “পর্তুগালকে অনেক অভিনন্দন। মাঠে দাঁড়িয়ে ১১ জন খেলোয়াড় জাতীয় সংগীত গাইছিল, কিন্তু সকলের নজর ছিল শুধু তোমার দিকেই। বিশ্বের সেরা খেলোয়াড়কে ৯০ মিনিটের জন্য দেখতে পেলাম না, এটা অত্যন্ত লজ্জাজনক। ভক্তরা শুধু তোমার নামের জয়ধ্বনি দিচ্ছিল। আশা করি ঈশ্বর ও ফের্নান্দো আরও একবার হাত মিলিয়ে তোমাকে ছাড়াই প্রথম একাদশ নামাক। তাহলে আরও একবার এরকম ম্যাজিক তৈরি হবে।” তবে স্যান্টোস বারবার দাবি করছেন, রোনাল্ডোর সঙ্গে তাঁর সম্পর্কে ফাটল ধরেনি। 

[আরও পড়ুন: ডাচদের প্রতি আক্রমণ চিন্তায় রাখছে, সেমিফাইনালে ব্রাজিল বনাম আর্জেন্টিনা হোক]

Advertisement
Next